বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈনিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ ।

আগরতলায় অনুপ্রবেশকারীদের আস্ফালনে বিপন্নতার মুখে ত্রিপুরার উপজাতি অংশের অভিযোগ

Muktir Lorai / ১১৮ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় শুক্রবার, ১৬ জুলাই, ২০২১

প্রসেনজিৎ দাস, আগরতলা: অনুপ্রবেশকারীদের আস্ফালনে বিপন্নতার মুখে বিভিন্ন উপজাতি অংশের কৃষ্টি সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য। যা কোনভাবেই মেনে নেওয়ার না। তাই এনিয়ে সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করতে এগিয়ে এলো কাউন্সিল অফ তিপ্রাসা হদা সংগঠন। ত্রিপুরার মাটিতে বিভিন্ন সম্প্রদায়ের উপজাতিদের কৃষ্টি সংস্কৃতি বর্তমানে বিপর্যস্ত।
কৃষ্টি, সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যকে রক্ষা করার জন্যই কাউন্সিল অফ তিপ্রাসা হদা গঠন করা হয়েছে। অরাজনৈতিক দল এটি। গনতন্ত্র ও সংবিধানকে বিশ্বাস করে কাউন্সিল অফ তিপ্রাসা হদা। সংবিধান বিরোধী কাজ হলে তিপ্রাসা হদা রুখে দাঁড়ায় । এই উদ্দেশ্য নিয়ে দুই বছর পর ফের সাংবাদিক বৈঠক করল কাউন্সিল অফ তিপ্রাসা হদা। আগরতলা প্রেস ক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করে এই কথা জানান তারা। এই কমিটিতে আছে জমাতিয়া অখ্রা, মলসম হদা, রিয়াং , দেববর্মা, ক্ষত্রিয় সমাজ, রূপিণী, কলই সমাজের প্রতিনিধিরা। ধর্মকে রক্ষা করার অনেক ক্ষেত্রে অসুবিধায় পড়ে যাচ্ছে বলে জানান কাউন্সিল অফ তিপ্রাসা হদা চেয়ারম্যান । কাউন্সিল অফ তিপ্রাসা হদা কোন ধর্ম ও জাতির বিরুদ্ধে নয় বলে অভিমত ব্যক্ত করা হয়। তাদের মূল সমস্যা অনুপ্রবেশকারীদের বিরুদ্ধে। অভিযোগ অনুপ্রবেশকারীরা বাইরে থেকে এসে রাজ্যের বিভিন্ন অংশে নিজেদের স্থায়িত্ব শাসন কায়েম করার চেষ্টা করছে। যার তীব্র প্রতিবাদ জানায় সংগঠন। এই ক্ষেত্রে কোন জাতির প্রতি নির্দিষ্ট ভাবে অভিযোগ নেই তাদের। কিন্তু কিছু কিছু অংশে চাকমারা প্রবেশ করে অবৈধ ভাবে বসবাস করছে বলে অভিযোগ করেন কাউন্সিল অফ তিপ্রাসা হদা আহ্বায়ক। এই নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে চিঠি দেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি। এদিন সংগঠনের নতুন কমিটির নাম ঘোষণা করা হয়।


এই বিভাগের আরো সংবাদ
Translate »
Translate »