বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈনিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ ।

কুমিল্লায় সিএনজি শ্রমিকদের উপর অতর্কিত হামলা, ৬জনকে কুপিয়ে জখম

Muktir Lorai / ৯২ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার, ২৪ ডিসেম্বর, ২০২০

কুমিল্লা প্রতিনিধিঃ
কুমিল্লা লালমাই উপজেলার বাগমারা বাজারে যুবলীগনেতা ও নামধারী বিএনপিনেতা আবু তাহেরের আধিপত্য বিস্তার করে করোনাকালীন সময়ে সিএনজি স্ট্যান্ড দখল করে চাঁদাবাজি ও বৈধ সিএনজি শ্রমিক ইউনিয়নের সদস্যদের কার্ড ছিনিয়ে নিয়ে যাওয়াকে বাধাঁ দেয়ায় দু পক্ষের সংঘর্ষে ৬ জন আহত হয়েছেন। গুরুতর আহত মোহাম্মাদ আলী, খোকন, নাইমা আক্তারকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হসপিটালে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া আরো কয়েকজন আহত অবস্থায় বিভিন্ন হসপিটালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
আজ (২১ ডিসেম্বর) ২০২০ইং সকাল সাড়ে ৬টায় বাগমারা বাজারে অবৈধ ভাবে পরিচয় দেয়া রেজি: নং ২০৩৬ সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের ও রেজি: নং ১৫৬৯ এর বাগমারা বাজার শাখা কমিটির সভাপতি সোলায়মান গ্রুপের মধ্যে এই সংঘর্ষ হয়।
এর আগে এই সিএনজি স্ট্যান্ড নিয়ে যুবলীগনেতা মোতালেব ও আবু তাহেরের সাথে বার বার হামলা ও নির্যাতনের শিকার হয়েছেন সোলায়মানসহ নির্বাচিত কমিটির নেতৃবৃন্দরা। শ্রম দপ্তরের বৈধতা নিয়ে শ্রমিকদের ভোটে নির্বাচিত সভাপতি সোলায়মান ও সাধারণ সম্পাদক খোকন তাদের এই জোরদখল এবং শ্রমিকদের উপর নির্যাতনের অভিযোগ করে উপজেলা প্রশাসন, লালমাই থানা অফিসার ইনচার্জ ও জেলা প্রশাসকসহ বিভিন্ন দপ্তরের অভিযোগ প্রেরন করলেও তার কোন প্রতিকার মেলেনি।
এ বিষয়ে কুমিল্লা জেলা সিএনজি শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো: আলম বলেন, বাগমারা ১৫৬৯ শ্রমিক ইউনিয়নের শাখা কার্যালয়ে শ্রমিকদের ভোটে নির্বাচিত সভাপতি মোঃ সোলেমান, সাধারণ সম্পাদক খোকন সহ ১৫ জন বিশিষ্ট পূর্নাঙ্গ কমিটি বাগমারা বাজার ও রেল গেইট পরিচালনা করে আসছিল। তাহের মজুমদার এই কমিটির উপদেষ্টা থাকা কালীন কখনো কোন ঝামেলা দেখা যায় নি। তাহের মজুমদারের মৃত্যুর পর থেকে রাজনৈতিক প্রভাব ঘাটিয়ে যুবলীগ নেতা মোতালেব, বিএনপি নেতা আবু তাহের, ক্যাশিয়ার সফিক ও মোহন সহ এই নির্বাচিত ১৫৬৯ কমিটির উপর আজ সকাল ৬.৩০ মিনিটের সময় অর্তকিত হামলা চালিয়ে ১৫৬৯ শ্রমিক সংগঠনের নেতা ও সিএনজি ড্রাইভার সহ ৬ জনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করে। পরে আহত শ্রমিকদের কে চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল হসপিটালে প্রেরণ করা হয়।
তাদের এই চাঁদাবাজী টিকিয়ে রাখার জন্যই বিএনপি ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা মিলে ১৫৬৯ এর বৈধ সংগঠনের শ্রমিকদের উপর এই হামলা চালিয়ে ৬ জনকে আহত করে। এসময় মোহাম্মদ আলীকে মারধরের আত্ম চিৎকারে তাকে রক্ষার জন্য মোহাম্মদ আলীর বোন এগিয়ে আসলে তাকেও পিটিয়ে আহত করা হয়। এবিষয়ে প্রধান কার্যালয়ে কর্তৃক যখন আহত শ্রমিকদের কে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে রয়েছি, তখন তারা আমাদের নামে মিথ্যা মামলা করার পায়তারা চালাচ্ছে।


এই বিভাগের আরো সংবাদ
Translate »
Translate »