বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈনিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ ।

ঠাকুরগাঁওয়ে সড়কের নির্মাণকাজ বন্ধ করে দিলেন গ্রামবাসী

Muktir Lorai / ৯৬ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার, ২৪ ডিসেম্বর, ২০২০

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: নিম্নমানের উপকরণ দিয়ে কাজ করার অভিযোগে ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ-কাতিহার সড়কের নির্মাণকাজ বন্ধ করে দিয়েছেন গ্রামবাসী। রোববার ( তাঁরা নির্মাণাধীন ওই সড়কের প্রায় ৩০ ফুট থেকে পিচঢালাই সরিয়ে ফেলে কাজ বন্ধ করে দেন।
খবর পেয়ে পীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রেজাউল করিম বিকেল পাঁচটার দিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ সময় পীরগঞ্জ থানা–পুলিশ সেখানে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) ঠাকুরগাঁও কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, পীরগঞ্জ-কাতিহার সড়কের বিশমাইল পাকুড়তলা থেকে বেগুনগাঁও পর্যন্ত আড়াই কিলোমিটার পাকা রাস্তা নির্মাণের জন্য এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি) থেকে ১ কোটি ৭১ লাখ ১৪ হাজার ২৯৪ টাকার বরাদ্দ দেওয়া হয়। ১ কোটি ২৭ লাখ ৭৯ হাজার ১৮৪ টাকা চুক্তিমূল্যে ঠাকুরগাঁওয়ের ঠিকাদার এম এ মুক্ত সরকার কাজটি পান। চুক্তি অনুযায়ী ২০ ফেব্রুয়ারি রাস্তার কাজ শুরু করে ১৯ জুনের মধ্যে কাজ শেষ করা কথা।
রাস্তার আশপাশের এলাকার কয়েকজন বলেন, ঠিকাদার স্থানীয় প্রকৌশলী ও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের যোগসাজশে ব্যাপক অনিয়মের মাধ্যমে রাস্তার কাজ করেন। এলজিইডির প্রকৌশলীরা রাস্তার কাজ দেখতে এসে নিম্নমানের উপকরণ ব্যবহার করার বিষয়টি দেখেছেন। তবে তাঁরা ঠিকাদারের লোকজনকে বাধা দিয়ে নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করেন।
নিম্নমানের উপকরণ দিয়ে কাজ করার প্রতিবাদে রোববার বিকেল চারটা থেকে সাড়ে চারটা পর্যন্ত স্থানীয়রা সড়কের বিপিবি উচ্চবিদ্যালয় ও নয়াহাটের উত্তর পাশের সেলিমের চা দোকানের কাছের প্রায় ত্রিশ ফুট রাস্তার কার্পেটিং তুলে ফেলেন।
ওই রাস্তার কাজ শতভাগ বুঝে নেওয়ার দায়িত্বে নিয়োজিত এলজিইডির পীরগঞ্জ উপসহকারী প্রকৌশলী কাজী মিজানুর রহমান বলেন, ‘আমি তো ভালোভাবে কাজ করতে বলেছি। কিন্তু মিস্ত্রি-লেবাররা আমাকে পাত্তাই দেয় না। আমি কী করব। এবার জনগণ কাজ বন্ধ করেছে। এখন ভালো করে রাস্তার কাজ করুক।’
এ বিষয়ে পীরগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলী শামীম আহম্মেদ বলেন, ‘রাস্তার কাজ বন্ধ করে দেওয়ার খবর পেয়ে আমি বিষয়টি আমার ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। রাস্তার কাজে তদারকি বাড়িয়ে দিয়ে কাজের মান ভালো করার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’
পীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রেজাউল করিম বলেন, ‘আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে মানুষের কথা শুনেছি। এলজিইডির কারিগরি কর্তৃপক্ষকে এসে রাস্তার কাজের মান পরীক্ষা করার জন্য এলজিইডির স্থানীয় কর্মকর্তাকে বলেছি।’


এই বিভাগের আরো সংবাদ
Translate »
Translate »