শিরোনাম
ডেউয়াতলী গ্রামের মরহুম মোঃ কোব্বাদ খান ও মান্নান চৌধুরী পরিবারবর্গকে নিয়ে সফিউল্লা খন্দকারের মানহানিকর বক্তব্যের প্রতিবাদ পলাশ শিল্পাঞ্চল সরকারি কলেজ শিক্ষক ও কর্মচারিদের বিক্ষোভ বাস্তবময় জীবনের বাস্তবতা…অনামিকা চৌধুরী রু লাকসামে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আগুন : প্রায় ৭লাখ টাকার ক্ষতি মুরাদনগরে সাব-রেজিস্ট্রারের কার্যালয়ের অভ্যন্তরীন প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত পদ্মা সেতু আমাদের জাতিকে মাথা উঁচু করে দাঁড়ানোর সুযোগ করে দিয়েছে দীঘিনালায় জেলেদের মাঝে ছাগল বিতরণ গোমস্তাপুরে চাঞ্চল্যকর কুলুলেস ‍‍`মেহেরুল‍‍` হত্যা মামলার আসামি আটক তরুন উদ্যোক্তা নাসিমা জাহান বিনতী’র গ্লোবাল ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড অর্জন পলাশে চাচীর সাথে পরকিয়া করতে গিয়ে প্রেমিকের হাতের কব্জি কর্তন
বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈনিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ ।

বউ ফেরত চেয়ে শ্বশুরবাড়ির সামনে যুবকের অনশন

Muktir Lorai / ২০১ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় রবিবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০২০

প্রেমিককে পাওয়ার জন্য প্রেমিকার অনশনের ঘটনা অনেক ঘটলেও এবার বউ ফেরত পেতে শ্বশুরবাড়ির সামনে অনশনে বসেছেন এক যুবক। ঘটনা ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগনার অশোকনগরে।

শনিবার (৫ ডিসেম্বর) অশোকনগরের কল্যাণগড় পুরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের দেবীনগরে শ্বশুরবাড়ির সামনে অবস্থান নেন ওই যুবক।

প্রেমিক-স্বামী সৌমেন দত্ত নামের ওই যুবকের দাবি, তার বউকে ফেরত দিতে হবে, তা না হলে তিনি অবস্থান চালিয়ে যাবেন। তার অবস্থানের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় অশোকনগর থানা-পুলিশ। পুলিশের আশ্বাসে তিনি অবস্থান থেকে বিরতও হয়েছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, অশোকনগরের মানিকতলার সৌমেনের সঙ্গে দেবীনগরের গার্গী দাসের সাত বছরের সম্পর্ক। সম্পর্ক ক্রমশ পরিণতি পায় প্রায় সাড়ে তিন বছর আগে এবং তখনই তাদের রেজিস্ট্রি বিয়েও হয়। আইনি বিয়ে করলেও উভয়েই উভয়ের বাড়িতেই থাকতেন। গার্গী পড়াশোনা চালিয়ে যাচ্ছিলেন। সৌমেন অবশ্য উচ্চ মাধ্যমিকের পরে আর পড়েননি। সৌমেনের দাবি, গার্গীর পড়ালেখাসহ অন্যান্য খরচও নিয়মিত দিয়েছেন তিনি।

কিন্তু গত কয়েক মাসে এই মসৃণ সম্পর্কে বাধা আসে। জানা যায়, গার্গীর বাড়ির লোকজন তাকে সৌমেনের সঙ্গে সম্পর্ক রাখতে নিষেধ করেছেন। আর তারপর থেকেই সৌমেন গার্গীর সঙ্গে কোনোভাবে যোগাযোগ করে উঠতে পারছেন না।

তার দাবি, ফোনেও তার সঙ্গে গার্গীকে কথা বলতে দেওয়া হচ্ছে না। তাকে গার্গীর মা ও ভাই টেলিফোনে হুমকিও দিচ্ছেন বলে তার অভিযোগ। তারা গার্গীর সঙ্গে তার বছর সাতেকের সম্পর্ক এবং রেজিস্ট্রি বিয়ে সব কিছুই অস্বীকার করছেন। এরই প্রতিবাদে প্রেমিকা তথা স্ত্রীর বাড়ির সামনে অবস্থান করছেন প্রেমিক-স্বামী সৌমেন।

কী বলছেন, গার্গীর অভিভাবক?
সূত্র জানাচ্ছে, সৌমেনের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন গার্গীর মা গোপা দাস। তার দাবি, তার মেয়েকে ভুলিয়ে-ভালিয়ে রেজিস্ট্রি বিয়ে করেছেন সৌমেন। তারা এই সম্পর্ক মানেন না। তারা মেয়ের বিয়ে অন্যত্র ঠিকও করে রেখেছেন।

মেয়ে এখন পড়াশোনা করছেন। উচ্চশিক্ষিত হয়ে পরবর্তীতে চাকরি করবেন। শুধু তাই নয়, সৌমেনকে উদ্দেশ করে তার বক্তব্য, সৌমেন উচ্চ মাধ্যমিক পাস। কাজও কিছু করেন না। তার সঙ্গে মেয়ের বিয়ে দেবেন না।

সৌমেন কিন্তু বিষয়টি নিয়ে নাছোড়বান্দা। তার সাফ কথা, আমার সাত বছর ফিরিয়ে দিতে হবে। আমার সঙ্গে যা হচ্ছে, একজন নারীর সঙ্গে এমন ঘটলে আইনত যেমন ব্যবস্থা নেওয়া হয়, এ ক্ষেত্রেও তেমনই ব্যবস্থা করতে হবে।

আর সৌমেনের বাড়ির লোকজনের প্রতিক্রিয়া?
সৌমেনের দাদা সৌভিক জানান, তার ভাইয়ের বউ যাতে নির্বিঘ্নে তাদের বাড়ি আসতে পারেন সেটা তারা চান। তারা ভাইয়ের পাশেই আছেন। পুলিশ দু’পক্ষকেই থানায় ডেকে পাঠিয়েছে। আপাতত অবস্থান তুলেও নিয়েছেন সৌমেন।

সূত্র : জিনিউজ।


এই বিভাগের আরো সংবাদ
Translate »
Translate »