শিরোনাম
ডেউয়াতলী গ্রামের মরহুম মোঃ কোব্বাদ খান ও মান্নান চৌধুরী পরিবারবর্গকে নিয়ে সফিউল্লা খন্দকারের মানহানিকর বক্তব্যের প্রতিবাদ পলাশ শিল্পাঞ্চল সরকারি কলেজ শিক্ষক ও কর্মচারিদের বিক্ষোভ বাস্তবময় জীবনের বাস্তবতা…অনামিকা চৌধুরী রু লাকসামে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আগুন : প্রায় ৭লাখ টাকার ক্ষতি মুরাদনগরে সাব-রেজিস্ট্রারের কার্যালয়ের অভ্যন্তরীন প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত পদ্মা সেতু আমাদের জাতিকে মাথা উঁচু করে দাঁড়ানোর সুযোগ করে দিয়েছে দীঘিনালায় জেলেদের মাঝে ছাগল বিতরণ গোমস্তাপুরে চাঞ্চল্যকর কুলুলেস ‍‍`মেহেরুল‍‍` হত্যা মামলার আসামি আটক তরুন উদ্যোক্তা নাসিমা জাহান বিনতী’র গ্লোবাল ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড অর্জন পলাশে চাচীর সাথে পরকিয়া করতে গিয়ে প্রেমিকের হাতের কব্জি কর্তন
বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈনিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ ।

মুরাদনগরে জমি সংক্রান্ত জেরে বৃদ্ধাঙ্গুল কেটে নিল প্রতিপক্ষ

Muktir Lorai / ১০৮ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার, ১৭ নভেম্বর, ২০২০

মাহফুজুর রহমান, মুরাদনগর (কুমিল্লা) প্রতিনিধি:
কুমিল্লার মুরাদনগরে জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে আবু কালাম নামের এক ব্যক্তির বৃদ্ধাঙ্গুল কেটে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে প্রতিবেশী বাবুল মিয়ার বিরুদ্ধে। এসময় তাকে বাঁচাতে গিয়ে রামদায়ের আঘাতে গুরুত্বর আহত হয়েছে ছোট ভাই সাদেক। এ ঘটনায় মুরাদনগর থানায় বাবুলসহ তার পরিবারের ৬ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়েছে।
আহত আবু কালাম ও সাদেক উপজেলা সদরের আলীরচর গ্রামের মৃত জুলহাস মিয়া ব্যাপারীর ছেলে ও প্রতিবেশী বাবুল মিয়া একই গ্রামের মৃত ইউনূছ মিয়ার ছেলে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলা সদরের আলীরচর গ্রামের আবু কালামের পরিবারের সাথে একই গ্রামের বাবুল মিয়ার মধ্যে দীর্ঘদিন যাবত জায়গায় সম্পত্তি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। সেই বিরোধের জের ধরে রবিবার বিকালে বাড়ির সীমানার খুটি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে আবু কালামের ছোট ভাই সবুজ মিয়াকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করেন বাবুল ও তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা। এক পর্যায় বাবুল সবুজকে মারধর শুরু করেন। এসময় তার চিৎকার শুনে বড় ভাই আবু কালাম ও সাদেক বাড়ী থেকে বের হয়ে সবুজকে মারধরের কারণ জানতে চাইলে পূর্বপরিকল্পীত ভাবে বাবুল ও তার দুই ছেলে রামদা, ছুরি ও শাবল দিয়ে আবু কালামসহ তার ছোট দুই ভাইয়ের উপর হামলা চালায়। হামলার এক পর্যায়ে বাবুলের ছোট ছেলে সিয়াম রামদা দিয়ে আবু কালামকে এলোপাতারি আঘাত করে তার বাম হাতের বৃদ্ধাঙ্গুল কেটে নিয়ে যায়। অন্যদিকে বাবুল রামদা দিয়ে সাদেকের মাথায় সা-জোরে আঘাত করলে রামদায়ের আঘাতে সাদেকের মাথায় গুরুতর জখম হয়। এসময় আবু কালামের পরিবারের লোকজনের চিৎকার শুনে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে বাবুল ও তার পরিবারের লোকজন পালিয়ে যায়। পরে আশংকাজনক অবস্থায় আবু কালাম ও তার ছোট ভাই সাদেকে উদ্ধার করে মুরাদনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করে।
এ বিষয়ে মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) নাহিদ আহমেদ বলেন, এ ঘটনায় রবিবার রাতেই বাবুলসহ তার পরিবারের ৬জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়েছে। আসামী ধরতে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।


এই বিভাগের আরো সংবাদ
Translate »
Translate »