বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈনিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ ।

মুুরাদনগরে যথাযোগ্য মর্যাদায় শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত

Muktir Lorai / ১২৬ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় সোমবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০২০

মাহফুজুর রহমান, মুরাদনগর (কুমিল্লা) প্রতিনিধি:
কুমিল্লার মুরাদনগরে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে যথাযোগ্য মর্যাদায় শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত হয়েছে। সোমবার সকালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ শেষে কবি নজরুল মিলনায়তনে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার অভিষেক দাশের সভাপতিত্বে ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শফিউল আলম তালুকদারের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: নাজমুল আলম, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাঈন উদ্দিন আহমেদ সোহাগ, মুরাদনগর থানা অফিসার ইনচার্জ মো: সাদেকুর রহমান, বাঙ্গরা বাজার থানা অফিসার ইনচার্জ কামরুজ্জামান তালুকদার, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা কবির আহমেদ, সাবেক উপজেলা মুক্তিযুদ্ধা কমান্ডার হারুন অর রশিদ প্রমূখ।
অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, বাংলাদেশের ইতিহাসে যে কয়েকটি জঘন্যতম ঘটনা ঘটেছে তার মধ্যে বুদ্ধিজীবী হত্যা অন্যতম। পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী দেশের রাজাকারদের সহায়তায় বাংলাদেশকে মেধাশূন্য করতে আজকের এই দিনে বুদ্ধিজীবীদেরকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে। তাঁরা আজ বেঁচে থাকলে দেশ আজ আরো অনেক দূর এগিয়ে যেতে পারত। দেশ স্বাধীনের পরও পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর দূসররা, তাদের যে প্রেতাত্মারা বাংলাদেশে রয়ে গিয়েছিল তারাও অনেক চেষ্টা করেছিল দেশকে পিছিয়ে রাখতে কিন্তু তারা সফল হতে পারেনি। কারণ আমাদের এখন একজন বঙ্গবন্ধু কন্যা আছে। বঙ্গবন্ধুর কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তাঁর যোগ্য নেত্রীত্বে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন উন্নয়নের দিকে। দেশের সকল বাঁধা বিপত্তি, বহির্বিশ্বের সকল ষড়যন্ত্রকে অতিক্রম করে বাংলাদেশকে উন্নত দেশের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন।
এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের কর্মকর্তা আফজালের রহমান, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা পারভীন আক্তার, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফৌজিয়া আক্তার, সহকারি প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন, সহকারি প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সায়মা আক্তার, সহকারি পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফাসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান, সহকারি শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ। অনুষ্ঠানের শুরুতে কোরআন তেলোয়াত করেন কাজিয়াতল মাদরাসার সুপার মোস্তাফিজুর রহমান ও গীতা পাঠ করেন সহকারি শিক্ষিকা সুমিত রানী দাস।


এই বিভাগের আরো সংবাদ
Translate »
Translate »