বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈনিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ ।

রূপসায় মন্দির ও বাড়ী ভাংচুরের ঘটনায় ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর পরিদর্শন ও চেক বিতরন

Muktir Lorai / ৮৭ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার, ১৯ আগস্ট, ২০২১

নাহিদ জামান, খুলনা প্রতিনিধিঃ খুলনা জেলার রূপসা উপজেলায় শিয়ালী গ্রামে গত ৭ আগষ্ট সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের মন্দির, বাড়িঘর, দোকানপাট ভাংচুর ঘটনায় আজ ১৯ আগষ্ট শিয়ালী গ্রাম পরিদর্শন করেন, ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান। তিনি সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায় উদ্যেশে বলেন, বঙ্গবন্ধু যখন এদেশ স্বাধীন করেন আপনাদের আমাদের সকলের রক্তের বিনিময়ে এদেশ স্বাধীন করে স্বাধীকার আদায় করেছিলেন। আজ বঙ্গ বন্ধুর স্বাধীন দেশে যদি কোন বেক্তি নির্যাতিত হন সেটা অনেক দুঃখ জনক, কষ্টের এবং লজ্জার বিষয়। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর কন্যা যিনি আজ দেশ পরিচালনা করছেন মানবতার মা আপনাদের মা, প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার উনি সকল সময় আপনাদের কথা চিন্তা করে। আপনাদের কথা চিন্তা করেই আমাকে আপনাদের কাছে পাঠিয়েছেন।
আজ আপনাদের এলাকাতে কিছু দুস্কৃতকারি সন্ত্রাসী জঙ্গী অপরাধকারি মন্দির বাড়ী ঘর ভেঙ্গেছে তারা যে দলের হোক না কেন? তাদের কে আমরা দল হিসাবে চিহ্নিত করবো না। তাদের কে আমরা চিহ্নিত করবো দুস্কৃতিকারি অপরাধী হিসাবে। এই সকল লোকদের জন্য সরকারের সুনিদৃষ্ট চিন্তা তাদের কে আইনের আওতায় এনে শাস্তির ব্যাবস্থা করা। ইতি মধ্যে এদের কে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। ধরা ও পড়েছে এই বিষয়ে আপনারা অবগত আছেন। এদের শাস্তির আওতায় আনতে জেলা প্রশাসন, পুলিশ বাহিনী , র‍্যাব নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছে। এই জন্য সরকারের পক্ষ থেকে তাদের কে ধন্যবাদ জানাই। আমরা প্রশাসন কে নির্দেশ দিয়েছি আপনারা লক্ষ রাখবেন অন্যায় ভাবে যেন কেহ হয়রানির স্বীকার না হয়। আমরা চাই প্রকৃত দোষী বেক্তি সনাক্ত করে তাদের কে বিচারের আওতায় এনে শাস্তি প্রদান করতে।
পরিদর্শন শেষে ক্ষতি গ্রস্থদের নিয়ে আলোচনা সভা ও চেক বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।
ক্ষতিগ্রস্থ প্রত্যেক পরিবার কে নগদ দশ হাজার টাকার চেক প্রদান করা হয়। আলোচনা সভা ও চেক প্রদান অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথী হিসাবে উপস্থিত ছিলেন
বাংলাদেশ হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাষ্ট এর সিনিয়র সহ-সভাপতি, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সাবেক মন্ত্রী বাবু নারায়ণ চন্দ্র চন্দ (এমপি), সাংসদ মনোরঞ্জন শীল গোপাল, সাংসদ আব্দুস সালাম মুর্শিদী, সাংসদ আক্তারুজ্জামান বাবু, বাংলাদেশ হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাষ্টের সহসভাপতি সুব্রত পাল, খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট সুজিত অধিকারী,যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক এডভোকেট ফরিদ আহমেদ,রূপসা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন বাদশা, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ, ডুমুরিয়া উপজেলা শাখার আহবায়ক বাবু নির্মল চন্দ্র বৈরাগী সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।


এই বিভাগের আরো সংবাদ
Translate »
Translate »