শিরোনাম
ডেউয়াতলী গ্রামের মরহুম মোঃ কোব্বাদ খান ও মান্নান চৌধুরী পরিবারবর্গকে নিয়ে সফিউল্লা খন্দকারের মানহানিকর বক্তব্যের প্রতিবাদ পলাশ শিল্পাঞ্চল সরকারি কলেজ শিক্ষক ও কর্মচারিদের বিক্ষোভ বাস্তবময় জীবনের বাস্তবতা…অনামিকা চৌধুরী রু লাকসামে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আগুন : প্রায় ৭লাখ টাকার ক্ষতি মুরাদনগরে সাব-রেজিস্ট্রারের কার্যালয়ের অভ্যন্তরীন প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত পদ্মা সেতু আমাদের জাতিকে মাথা উঁচু করে দাঁড়ানোর সুযোগ করে দিয়েছে দীঘিনালায় জেলেদের মাঝে ছাগল বিতরণ গোমস্তাপুরে চাঞ্চল্যকর কুলুলেস ‍‍`মেহেরুল‍‍` হত্যা মামলার আসামি আটক তরুন উদ্যোক্তা নাসিমা জাহান বিনতী’র গ্লোবাল ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড অর্জন পলাশে চাচীর সাথে পরকিয়া করতে গিয়ে প্রেমিকের হাতের কব্জি কর্তন
বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈনিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ ।

শ্রম আইন সংশোধনের দাবীতে মানববন্ধন

Muktir Lorai / ৯৪ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টারঃ মঙ্গলবার সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে তাজরিন হত্যাকান্ডের ৮ বছরে শ্রম আইন সংশোধন করে কর্মক্ষেত্রে দুর্ঘটনায় মৃত্যবরণকারী শ্রমিকের পরিবার কে আজীবন আয়ের মানদন্ডে ক্ষতিপুরণ প্রদানের বিধান করার দাবিতে এবং নিহত শ্রমিকদের স্মরণে বাংলাদেশ কনফেডারেশন অব লেবার(বিসিএল)’র উদ্যোগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত।

মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ কনফেডারেশন অব লেবার (ইঈখ)’র সভাপতি সুলতানা বেগম। বক্তব্য রাখেন বিসিএল’র সাধারণ সম্পাদক নাজিমউদ্দিন, কোষাধ্যক্ষ মাহাতাব উদ্দিন সহিদ, সদস্য বাহারানে সুলতানা বাহার, কপিল উদ্দিন, শামীমখান, শামীমা আক্তার শিরিন, মোঃবিল্লাল,আব্দুল আজিজ, আরাফাত জাকারিয়া সঞ্চয়, আব্বাস উদ্দিন, খাদিজার হমান ও রুজিনা আক্তার সুমী প্রমুখ

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন তাজরিন ট্রাজেডির এই দীর্ঘ সময় অতিবাহিত হলেও ক্ষতিগ্রস্থরা এখনও পর্যন্ত এর সঠিক বিচার পায়নি। ২০১২ সালের ২৪নভেম্বর তাজরিন ফ্যাশনলিঃ এর ভয়াবহ হত্যাকান্ডের ঘটনায় নিহত ১১৩জন শ্রমিক-কর্মচারী এবং আহত হয়েছিল প্রায় ২শতাধিক শ্রমিক। এটা আপাততঃ দৃষ্টিতে একটি অগ্নিকান্ড মনেহলেও প্রকৃত অর্থে মালিক পক্ষের একটি সুপরিকল্পিত হত্যাযজ্ঞ। তাজরিন হত্যাকান্ডের দায়িদের সর্বোচ্চ শাস্তি, কর্মক্ষেত্রের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, শ্রম আইন সংশোধন করে কর্মক্ষেত্রে দুর্ঘটনায় মৃত্যুবরনকারী শ্রমিকের পরিবার কে আজীবন আয়ের মানদন্ডে ক্ষতিপুরণ প্রদানের বিধান ও তাজরিনের আহত শ্রমিকদের চিকিৎসা ও পুণর্বাসন চাই। প্রায় ২শতাধিক শ্রমিক-কর্মচারী বিভিন্ন ভাবে পঙ্গুত্ববরন কওে আজও মানবেতর জীবন যাপন করছে। অগ্নিকান্ডে পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম সদস্যকে হারিয়ে নিঃস্ব হয়েছে অনেক পরিবার। আমরা সেই সব নিঃস্ব পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আকুল আবেদন জানাচ্ছি। এখনও যারা কর্মক্ষম হয়ে আছে তাদের পূনর্বাসন ও প্রয়োজনীয় ক্ষতিপূরণ প্রদানের ব্যবস্থা এবং নিরাপদ কর্মপরিবেশ ও শ্রমিক নিরাপত্তা তহবিল গঠনের দাবী জানাচ্ছি।
মানববন্ধন শেষে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে হয়ে তোপখানা রোড পল্টন মোড় প্রদক্ষিন করে।


এই বিভাগের আরো সংবাদ
Translate »
Translate »