আগরতলায় পুলিশি নির্দেশ না মেনে কর্মসূচি

প্রসেনজিৎ দাস, আগরতলা: প্রয়াত শিক্ষক-শিক্ষিকাদের শ্রদ্ধাঞ্জলি দিতে এসে পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার ১০৩২৩ এর চাকুরিচ্যুতরা। রবিবার সকাল ১১ টা নাগাদ চাকরিচ্যুত শিক্ষক-শিক্ষিকারা শহরে বিক্ষোভ কর্মসূচি গ্রহণ করে এবং মৃত শিক্ষক-শিক্ষিকাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে কর্মসূচি করার সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু এনিয়ে প্রশাসনের কাছে অনুমতি চাওয়া হলে পুলিশ করোনা পরিস্থিতির কারণে অনুমতি দেয় নি। কিন্তু প্রশাসনের নিয়ম না মেনেই রবিবার সকালে রবীন্দ্র ভবন সহ জগন্নাথ বাড়ি এলাকায় জমায়েত শুরু করে ১০৩২৩ চাকরিচ্যুতরা। যদিও পুলিশ চাকরিচ্যুত শিক্ষক-শিক্ষিকাদের কর্মসূচি বাস্তবায়ন হতে দেয়নি। তার আগেই তাদের গাড়িতে তুলে আটক করে নেয়। এনিয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে যায় চাকরিচ্যুতরা। সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে তারা বলেন, সরকার তাদের সাথে সম্পূর্ণভাবে অমানবিক আচরণ করছে। শ্রদ্ধাঞ্জলি অনুষ্ঠান পর্যন্ত করতে দেওয়া হচ্ছে না। এখন পর্যন্ত ১০৪ জন চাকরিচ্যুত শিক্ষক শিক্ষিকার মৃত্যু হয়েছে। অভিযোগ ১০,৩২৩ -এর প্রতি সিপিআইএম সরকার মানবিক ছিল না, বর্তমান বিজেপি ও আইপিএফটি জোট সরকারও মানবিক নয়। তাদের সাথে শুধুমাত্র ইনজাস্টিস করে চলেছে সরকার। কারণ ১০,৩২৩ চাকরিচ্যুত শিক্ষক-শিক্ষিকারা যে নিয়োগ নীতিতে চাকরি পেয়েছিল, ২০১২ সালে বিজ্ঞান বিভাগে শিক্ষকরাও অনুরূপভাবে সেই নিয়োগ নীতিতে চাকরি পেয়েছিল। কিন্তু আশ্চর্যের বিষয় হলো ২০১০ সালের নিয়োগ নীতির পর ৫৬ জন বেকার আদালতে মামলা দায়ের করে। পরবর্তী সময় সেইসব বেকারদের চাকরি দেওয়া হয় নি। কিন্তু ২০১২ সালে বিজ্ঞান বিভাগে চাকুরি প্রদানের পর যারা মামলা করেছিল তাদের চাকরি দিয়ে দেয় তৎকালীন সিপিআইএম সরকার। আশ্বাস ছিল বিজেপি সরকার রাজ্যে প্রতিষ্ঠা হলে তারা বিষয়টি দেখবেন। কিন্তু রাজ্যে যখন ২০১৮ সালে বিজেপি সরকার প্রতিষ্ঠিত হয় তখন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী রতন লাল নাথের কাছে গেলে ১০,৩২৩ শিক্ষক-শিক্ষিকাদের শিক্ষামন্ত্রী বলেন, সুদীপ রায় বর্মন যেহেতু প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, তাই সুদীপ রায় বর্মনের কাছে যাওয়ার জন্য। তিনি আরো বলেন, গত ২২ জুন রাজ্য মন্ত্রিসভায় বিজ্ঞান শিক্ষিক শিক্ষিকারা নিয়মিত হওয়ার পর তাদের শুভেচ্ছা জানাতে বাড়িতে যাচ্ছেন রাজ্যের বিধায়িকা। আর যখন দীর্ঘ ১৫ মাস যাবত চাকুরি হারিয়ে অভাব-অনটনে ভুগছে চাকুরিচ্যুত ১০,৩২৩ শিক্ষক-শিক্ষিকারা, তখন কেউ চাকরিচ্যুত শিক্ষক-শিক্ষিকাদের বাড়িতে গিয়ে খোঁজ পর্যন্ত নিচ্ছেন না বর্তমান সরকারের জনপ্রতিনিধি বিধায়ক বিধায়িকারা। সমগ্র ঘটনা নিয়ে ব্যাপক ক্ষোভ জাহির করেন আন্দোলন কারীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *