ঢাকা ০৩:৪৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

আমতলীতে জাটকা রক্ষায় অভিযানে জাল ও ট্রলার জব্দ

জাটকা ইলিশ রক্ষায় বরগুনার আমতলী উপজেলার পায়রা (বুড়িশ্বর) নদীতে অভিযান ও মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে ২টি অবৈধ বেহুন্দি জাল ও ৩ টি ইঞ্জিন চালিত মাছ ধরার ট্রলার জব্দ এবং ২ জন জেলেকে আটক করে জরিমাণা করা হয়।

রবিবার ভোর ৫ টা থেকে বেলা ১১ টা পর্যন্ত উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা হালিমা সরদার, মেরিন ফিসারিজ অফিসার সায়েদ মোহাম্মদ ফারাহ, ফিল্ড ফেসিলেটর হিমেল আহমেদ, মোঃ আরিফুর রহমান ও ক্ষেত্র সহকারী নয়ন চন্দ্র ঘরামি আমতলী থানা পুলিশ সদস্যদের সহায়তায় পায়রা (বুড়িশ্বর) নদীর পুরাকাটাসহ বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেন।

অভিযানে শেষে দু’জেলেকে বেহুন্দি জাল ফেলে মাছ শিকার করার অপরাধে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জনপ্রতি ৫ হাজার টাকা করে জরিমাণা, তিনটি মাছ ধরার ট্রলার জব্দ করে নিলামে তোলা হয় ও ১৮৫ ফুট দৈর্ঘ্যরে আটককৃত অবৈধ দুটি বেহুন্দি জাল পুড়িয়ে বিনষ্ট করা হয়। স্থাণীয় জেলেরা নিলামকৃত মাছ ধরার ট্রলার তিনটি ক্রয় করেন।

জাটকা ইলিশ রক্ষায় ভ্রাম্যমান আদালত ও নিলাম পরিচালনা করেন বরগুনা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিষ্টেট মোঃ জাহিদুর রহমান।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মৎস্য অফিসের অন্যান্য কর্মকর্তা- কর্মচারী, সাংবাদিক,স্থানীয় জেলেসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার লোকজন।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

আমতলীতে জাটকা রক্ষায় অভিযানে জাল ও ট্রলার জব্দ

আপডেট সময় ০৪:০১:০৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ৫ মার্চ ২০২৩

জাটকা ইলিশ রক্ষায় বরগুনার আমতলী উপজেলার পায়রা (বুড়িশ্বর) নদীতে অভিযান ও মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে ২টি অবৈধ বেহুন্দি জাল ও ৩ টি ইঞ্জিন চালিত মাছ ধরার ট্রলার জব্দ এবং ২ জন জেলেকে আটক করে জরিমাণা করা হয়।

রবিবার ভোর ৫ টা থেকে বেলা ১১ টা পর্যন্ত উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা হালিমা সরদার, মেরিন ফিসারিজ অফিসার সায়েদ মোহাম্মদ ফারাহ, ফিল্ড ফেসিলেটর হিমেল আহমেদ, মোঃ আরিফুর রহমান ও ক্ষেত্র সহকারী নয়ন চন্দ্র ঘরামি আমতলী থানা পুলিশ সদস্যদের সহায়তায় পায়রা (বুড়িশ্বর) নদীর পুরাকাটাসহ বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেন।

অভিযানে শেষে দু’জেলেকে বেহুন্দি জাল ফেলে মাছ শিকার করার অপরাধে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জনপ্রতি ৫ হাজার টাকা করে জরিমাণা, তিনটি মাছ ধরার ট্রলার জব্দ করে নিলামে তোলা হয় ও ১৮৫ ফুট দৈর্ঘ্যরে আটককৃত অবৈধ দুটি বেহুন্দি জাল পুড়িয়ে বিনষ্ট করা হয়। স্থাণীয় জেলেরা নিলামকৃত মাছ ধরার ট্রলার তিনটি ক্রয় করেন।

জাটকা ইলিশ রক্ষায় ভ্রাম্যমান আদালত ও নিলাম পরিচালনা করেন বরগুনা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিষ্টেট মোঃ জাহিদুর রহমান।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মৎস্য অফিসের অন্যান্য কর্মকর্তা- কর্মচারী, সাংবাদিক,স্থানীয় জেলেসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার লোকজন।