• সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ১২:৩২ অপরাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
শিরোনাম
ধোপাজান চলতি নদীতে ৮টি নৌকা আটক, ২ লক্ষ টাকা জরিমানা পাচার বাণিজ্যে মতানৈক্যের জেরে সীমান্তে অপহৃত নাবালক ৬ চিকিৎসক নিয়ে ধুঁকে ধুঁকে চলছে বরগুনা সরকারি হাসপাতাল সামাজিক দূরত্ব ভুলে রাসিক মেয়র লিটনের খাদ্য সামগ্রী বিতরন সলঙ্গায় ১০কেজি গাঁজাসহ মাদক ব‍্যবসায়ী আটক বরুড়ায় ১৫০ অক্সিজেন সিলিন্ডার দিলেন এসকিউ গ্রুপের শফিউদ্দিন শামীম বাবার মৃত্যুর একদিন পর মাকেও হারালেন সহকারী এটর্নি জেনারেল এড. ফারুক সাতক্ষীরা শহরের বাগানবাড়িতে ভূমিহীনদের পুর্নবাসনের দাবিতে উঠান বৈঠক আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে আনতে হবে: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মুরাদনগরে দিনব্যাপী ডিউটি অফিসারের ভূমিকায় এএসপি
বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈনিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ ।

করোনায় অসহায় গোমস্তাপুরের ঢাকা কোচ মাস্টার ও সহকর্মীরা

news / ৩৮ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় বুধবার, ৭ জুলাই, ২০২১

কাবিরুল ইসলাম, গোমস্তাপুর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ মহামারী করোনাভাইরাসে বিপর্যস্ত জনজীবন। করোনাকালে অনেকেই চাকরি হারিয়েছেন, কেউ হারিয়েছেন নিজের কাজের জায়গা। তাই থমকে গেছে জীবনযাত্রা। গোমস্তাপুর উপজেলার ঢাকা কোচ মাস্টার সমিতির মাস্টার ও সহকর্মীরা বর্তমানে মানবতার জীবনযাপন করছেন। এপ্রিল (২০২১) মাসের শুরু থেকে অদ্যবধি ঢাকাগামী সমস্ত কোচ বন্ধ থাকায় তারা বেকার জীবন যাপন করছেন। আয়ের পথ হয়ে গেছে বন্ধ।
জীবন-জীবিকার তাগিদে অনেকেই ইতিমধ্যে বেছে নিয়েছেন অন্য পেশা। জড়িয়ে গেছেন নানা কাজে। কারণ পেট তো আর বাধা মানে না। সংসারের হাল ধরতে গিয়ে ঢাকা কোচের মাস্টাররা এবং তাদের সহকর্মীরা নিম্ন কাজ করতেও দ্বিধা বোধ করছেন না। এমন অবস্থায়
চাঁপাইনবাবগঞ্জ গোমস্তাপুরের রহনপুর ঢাকা কোচ সমিতির সকল সদস্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট করোনাকালে আর্থিক প্রণোদনা পাওয়ার জন্য আবেদন করেছেন। উপজেলা ঢাকা কোচ মাস্টার সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ আলী জানান, করোনা ভাইরাসের কারণে গত ২০২০ সালে ৪ মাস এবং ২০২১ সালের
এপ্রিল মাস থেকে সকল ঢাকা কোচ বন্ধ থাকায় আমাদের সকলকে অত্যন্ত
কষ্টের সাথে দিন যাপন করতে হচ্ছে। ইতিমধ্যেই অফিস ঘরের ভাড়া বাকি
পড়ে গেছে, বিদ্যুৎ বিলও অনাদায়ী অবস্থায় রয়েছে। সংসার চালাবার
মতো সামর্থ্য আমরা হারিয়ে ফেলেছি। এই অবস্থায় আমরা গতবছর অর্থাৎ ২০২০ সালে উপজেলা প্রশাসনের নিকট সাহায্যের জন্য আবেদন করেছিলাম। কিন্তু এখন পর্যন্ত আমরা কোন সাহায্য পায়নি। তাই নিরুপায় হয়ে আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট সুদৃষ্টি কামনার জন্য দাবি জানাচ্ছি। উল্লেখ্য বর্তমানে গোমস্তাপুর উপজেলার প্রায় ৭০
জন মাস্টার ও সহকর্মীরা কর্মহীন হয়ে পড়ায় মানবেতর দিনযাপন করছি।


এই বিভাগের আরো সংবাদ