• সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ১২:১৯ অপরাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
শিরোনাম
ধোপাজান চলতি নদীতে ৮টি নৌকা আটক, ২ লক্ষ টাকা জরিমানা পাচার বাণিজ্যে মতানৈক্যের জেরে সীমান্তে অপহৃত নাবালক ৬ চিকিৎসক নিয়ে ধুঁকে ধুঁকে চলছে বরগুনা সরকারি হাসপাতাল সামাজিক দূরত্ব ভুলে রাসিক মেয়র লিটনের খাদ্য সামগ্রী বিতরন সলঙ্গায় ১০কেজি গাঁজাসহ মাদক ব‍্যবসায়ী আটক বরুড়ায় ১৫০ অক্সিজেন সিলিন্ডার দিলেন এসকিউ গ্রুপের শফিউদ্দিন শামীম বাবার মৃত্যুর একদিন পর মাকেও হারালেন সহকারী এটর্নি জেনারেল এড. ফারুক সাতক্ষীরা শহরের বাগানবাড়িতে ভূমিহীনদের পুর্নবাসনের দাবিতে উঠান বৈঠক আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে আনতে হবে: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মুরাদনগরে দিনব্যাপী ডিউটি অফিসারের ভূমিকায় এএসপি
বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈনিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ ।

কুবির দুই শিক্ষককে হেনস্থা করায় সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের নিন্দা প্রতিবাদ

news / ২৫ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় শুক্রবার, ২ জুলাই, ২০২১

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ ভর্তি পরীক্ষার অসঙ্গতির ব্যাপারে গণমাধ্যমকে তথ্য দেওয়ার কারণে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মাহবুবুর রহমান ভূঁইয়াকে শাস্তি প্রদানের সুপারিশ করে তাকে হেনস্তা করা এবং বিদ্বেষমুলকভাবে একই বিভাগের শিক্ষক কাজী আনিছের পদন্নোতি আটকে দেওয়ার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট কেন্দ্রীয় কমিটি। সভাপতি আল কাদেরী জয় ও সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন প্রিন্স এক যুক্ত বিবৃতিতে বলেন, “বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছ থেকে এরকম বিদ্বেষমূলক স্বৈরাচারী আচরণ কখনই কাম্য নয়। একদিকে তারা স্বীকার করেছে ভর্তি পরীক্ষায় অসঙ্গতি হয়েছে, অন্যদিকে এই খবর কিভাবে গণমাধ্যমে গেল, তা খুঁজে বের করার জন্য তদন্ত কমিটি গঠন করে শিক্ষক মাহবুবুর রহমান ভূঁইয়াকে শাস্তি প্রদানের সুপারিশ করা হয়েছে। অথচ অসঙ্গতির জন্য যারা দায়ী, তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেওয়ার চেষ্টাও করা হয়নি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এটাই বলতে চাইছে যে অনিয়ম হওয়াটা সমস্যা না, অনিয়মের কথা প্রকাশ করাই বড় সমস্যা”।

শিক্ষক কাজী আনিছের বিষয়ে বিবৃতিতে বলা হয়, “পূর্বের সিন্ডিকেট মিটিং এর সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কাজী আনিছকে সহকারী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি দিয়ে সে অনুযায়ী বেতন ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধাও দেওয়া হলেও পরবর্তী সিন্ডিকেট মিটিং এ তা ঠুনকো অভিযোগে বাতিল করে দেওয়া হয়। এই ঘটনা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের বিদ্বেষমূলক ও অসৎ উদ্দেশ্যেরই বহিঃপ্রকাশ।

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, একে একে দলীয় তাবেদার লোককে প্রশাসনে বসিয়ে উচ্চশিক্ষাকে ধ্বংস করে দিয়েছে বর্তমান সরকার। তাই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিরা আজ শিক্ষা, গবেষণা, শিক্ষার গণতান্ত্রিক পরিবেশ নিশ্চিত করা এগুলোর চেয়েও কিভাবে উপর মহলের কাছে নিজেদের আনুগত্য প্রমাণ করা যায় তার উপায় খুঁজে বেড়ান। এর ফলেই বিভিন্ন সময় দায়িত্বজ্ঞানহীন মন্তব্য ও কর্মকাণ্ড করে তারা দেশব্যাপী গণধিকৃত হয়ে আবার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করেন। এর সর্বশেষ উদাহরণ কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়।

নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে মাহবুবুর রহমান ভূঁইয়াকে শাস্তি দেওয়ার সুপারিশ বাতিলের দাবি জানান ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে একজন শিক্ষককে অকারণে হেনস্তা করার জন্য ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানান।


এই বিভাগের আরো সংবাদ