ঢাকা ০৬:৩৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কুলিয়ারচরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে যুবকে হত্যা

মোঃ ওয়াহিদ: কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মো. রতন মিয়া (৩২) নামের দুই সন্তানের জনককে শাবল ও ধারালো ছুরি দিয়ে আঘাত করে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শনিবার (২০মে) সকাল ৮ টার দিকে উপজেলার গোবরিয়া আব্দুল্লাহপুর ইউনিয়নের পূর্ব আব্দুল্লাহপুর দক্ষিণ পাড়া গ্রামে এ হত্যা কাণ্ডের অভিযোগ পাওয়া যায় ঘটনাটি ঘটে। নিহত মোঃ রতন মিয়া ওই পূর্ব আব্দুল্লাহপুর দক্ষিণ পাড়া গ্রামের মোঃ বিল্লাল মিয়ার ছেলে।

নিহত স্ত্রী শান্তা ও মেয়ে নীলা আক্তার অভিযোগ করে বলেন, শনিবার সকাল ৭টার দিকে পার্শ্ববর্তী বাড়ির কলিম উদ্দিনের মেয়ে শিখা (২৮) রতন মিয়া বাড়িতে গিয়ে শান্তা আক্তার নিকট চাউল হাওলাত আনতে যান। শান্তা চাল হাওলাত রাজী না হওয়ায় দু’জনের মধ্য কথা কাটাকাটি হয়। দু’জনের কথা কাটাকাটির শব্দ শুনে শান্তার স্বামী নিহত রতন মিয়ার ঘুম ভেঙ্গে যায়।

পরে সকাল সাড়ে ৭ টার দিকে শান্তার স্বামী ঘুম থেকে উঠে শিখাদের বাড়ীর পাশে গিয়ে কি নিয়ে ঝগড়া হয়েছে জানতে চাইলে আঃ গফুরের পুত্র কলিম উদ্দিন (৬৫), স্ত্রী শরীফা (৫৫), মেয়ে শিখা (২৮) ছেলে কাকন (৩০) ও কাকনের স্ত্রী মিনা (২০) সহ ৫ জন ক্ষিপ্ত হয়ে শাবল ও ছুরি নিয়ে রতন মিয়ার উপর হামলা করে। হামলায় রতনের পেট থেকে ভুড়ি বের হয়ে যায় এবং তার দুই হাতে ধারালো ছুরার আঘাতে হাত কেটে রক্তক্ষরণ হয়। পরে স্থানীয়রা সহ পরিবারের সদস্যরা গুরুতর আহত অবস্থায় রতনকে বাজিতপুর ভাগলপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঘটনা প্রসঙ্গে নিহতের মেয়ে ১০ম শ্রেণীর ছাত্রী নিলা সাংবাদিক কে বলেন আমি আমার বাবাকে রক্ষা করতে গেলে ওরা আমাকে আমার মা’কে মারধর করে। এবং আমার বাবাকে আঘাত করার পর আমার বাবা আমাকে বলেছে তাড়াতাড়ি আমার পেটে উড়না নিয়ে বেধে হাসপাতালে নিয়ে যা, আমি আমার শরিরের উড়না দিয়ে বেধেও আমার বাবাকে বাঁচাতে পারিনি বলে কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে।

এ সংবাদ পেয়ে কুলিয়ারচর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা, এস আই মোঃ মাহাবুবুর রহমান ও মোঃ আমিনুল ইসলাম ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ওই বাড়িতে পুলিশ মোতায়েন করেন।

এব্যাপারে কুলিয়ারচর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা’র সাথে ঘটনাস্থলে কথা হলে তিনি বলেন, দুই পরিবারের ঝগড়ার সময় রতন মিয়া নামে এক যুবক খুন হয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করা হয়েছে। আসামি গ্রেফতার ও আলামত উদ্ধারের চেষ্টা অব্যাহত আছে বলেন জানান মামলার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

কুলিয়ারচরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে যুবকে হত্যা

আপডেট সময় ০৫:০১:১৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ মে ২০২৩

মোঃ ওয়াহিদ: কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মো. রতন মিয়া (৩২) নামের দুই সন্তানের জনককে শাবল ও ধারালো ছুরি দিয়ে আঘাত করে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শনিবার (২০মে) সকাল ৮ টার দিকে উপজেলার গোবরিয়া আব্দুল্লাহপুর ইউনিয়নের পূর্ব আব্দুল্লাহপুর দক্ষিণ পাড়া গ্রামে এ হত্যা কাণ্ডের অভিযোগ পাওয়া যায় ঘটনাটি ঘটে। নিহত মোঃ রতন মিয়া ওই পূর্ব আব্দুল্লাহপুর দক্ষিণ পাড়া গ্রামের মোঃ বিল্লাল মিয়ার ছেলে।

নিহত স্ত্রী শান্তা ও মেয়ে নীলা আক্তার অভিযোগ করে বলেন, শনিবার সকাল ৭টার দিকে পার্শ্ববর্তী বাড়ির কলিম উদ্দিনের মেয়ে শিখা (২৮) রতন মিয়া বাড়িতে গিয়ে শান্তা আক্তার নিকট চাউল হাওলাত আনতে যান। শান্তা চাল হাওলাত রাজী না হওয়ায় দু’জনের মধ্য কথা কাটাকাটি হয়। দু’জনের কথা কাটাকাটির শব্দ শুনে শান্তার স্বামী নিহত রতন মিয়ার ঘুম ভেঙ্গে যায়।

পরে সকাল সাড়ে ৭ টার দিকে শান্তার স্বামী ঘুম থেকে উঠে শিখাদের বাড়ীর পাশে গিয়ে কি নিয়ে ঝগড়া হয়েছে জানতে চাইলে আঃ গফুরের পুত্র কলিম উদ্দিন (৬৫), স্ত্রী শরীফা (৫৫), মেয়ে শিখা (২৮) ছেলে কাকন (৩০) ও কাকনের স্ত্রী মিনা (২০) সহ ৫ জন ক্ষিপ্ত হয়ে শাবল ও ছুরি নিয়ে রতন মিয়ার উপর হামলা করে। হামলায় রতনের পেট থেকে ভুড়ি বের হয়ে যায় এবং তার দুই হাতে ধারালো ছুরার আঘাতে হাত কেটে রক্তক্ষরণ হয়। পরে স্থানীয়রা সহ পরিবারের সদস্যরা গুরুতর আহত অবস্থায় রতনকে বাজিতপুর ভাগলপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঘটনা প্রসঙ্গে নিহতের মেয়ে ১০ম শ্রেণীর ছাত্রী নিলা সাংবাদিক কে বলেন আমি আমার বাবাকে রক্ষা করতে গেলে ওরা আমাকে আমার মা’কে মারধর করে। এবং আমার বাবাকে আঘাত করার পর আমার বাবা আমাকে বলেছে তাড়াতাড়ি আমার পেটে উড়না নিয়ে বেধে হাসপাতালে নিয়ে যা, আমি আমার শরিরের উড়না দিয়ে বেধেও আমার বাবাকে বাঁচাতে পারিনি বলে কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে।

এ সংবাদ পেয়ে কুলিয়ারচর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা, এস আই মোঃ মাহাবুবুর রহমান ও মোঃ আমিনুল ইসলাম ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ওই বাড়িতে পুলিশ মোতায়েন করেন।

এব্যাপারে কুলিয়ারচর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা’র সাথে ঘটনাস্থলে কথা হলে তিনি বলেন, দুই পরিবারের ঝগড়ার সময় রতন মিয়া নামে এক যুবক খুন হয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করা হয়েছে। আসামি গ্রেফতার ও আলামত উদ্ধারের চেষ্টা অব্যাহত আছে বলেন জানান মামলার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।