ঢাকা ০১:২৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ০২ অক্টোবর ২০২৩, ১৭ আশ্বিন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
Logo সাঁথিয়ায় বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ও পুনর্বাসন সোসাইটির কর্মীসভা অনুষ্ঠিত Logo শেখ হাসিনা দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করেছেন:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী Logo রূপগঞ্জে অটো রিক্সা চালকের লাশ উদ্ধার Logo গোমস্তাপুরে মহানন্দা নদীতে অজ্ঞাত মহিলার লাশ উদ্ধার Logo নিকলীতে হাওরে স্পিডবোট ডুবে নিখোঁজ হওয়ার দু’দিন পর শিশুর মরদেহ উদ্ধার Logo রাঙ্গামাটি আসবাবপত্র ব্যবসায়ী কল্যাণ বহুমুখী সমবায় সমিতি লিমিটেডের বার্ষিক সভা Logo কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে ০২ মহিলা ছিনতাইকারী আটক Logo ঈদ ই মিলাদুন্নবী (সাঃ) উপলক্ষে সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদ কুমিল্লার আলোচনা সভা Logo গোমস্তাপুরে ৩৩ তম আন্তর্জাতিক প্রবীণ দিবস পালিত Logo ইকো রিসোর্টে হামলার ঘটনায় রহস্যজনক কারনে মামলা নেয়নি জয়দেবপুর থানা

গোমস্তাপুরে নমুনা শস্য কর্তনের উদ্ধোধন

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গোমস্তাপুর উপজেলার গোমস্তাপুর ইউনিয়ানের নিমতলা কাঠাল এলাকায় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আয়োজনে নমুনা শস্য কর্তন উদ্বোধন করা হয়।
মঙ্গলবার (২ মে) বিকেল ৩ টায় ব্রি ধান ৮৯ এর নমুনা শস্য কর্তন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডা. পলাশ সরকার উপ-পরিচালক কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর চাঁপাইনবাবগঞ্জ, ডা. বিমল কুমার প্রামানিক হাটিকালচার সেন্টার চাঁপাইনবাবগঞ্জ, মনিটরিং অফিসার তেল জাতীয় ফসল উৎপাদন প্রকল্প চাঁপাইনবাবগঞ্জ, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ তানভীর আহমেদ সরকার, সহকারী কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার মোঃ আব্দুল রাজ্জাক, উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা মোঃ সেরাজুল ইসলাম অত্র এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ কৃষকগণ ব্রি ধান ৮৯ এর বীজ উৎপাদন ও মাঠ পরিদর্শণ করেন। ব্রি ধান ৮৯ এর ফলন দেখে কৃষকগণ এ ধান চাষে ব্যাপক আগ্রহ প্রকাশ করেন।

নমুনা শস্য কর্তনের আলোচনা সভায় উপজেলা কৃষি অফিসার তানভীর আহমেদ সরকার বলেন, ২০২২-২০২৩ অর্থ বছরে কৃষি প্রদনা কর্মসূচি ও রাজস্ব প্রকল্পের আওতায় প্রায় ১৫০০ শ কৃষকে বীজ ও সার প্রদান করেছি। হিসাবে ব্রি ধান ৮৯ বোরো মৌসুমে অত্যন্ত সম্ভাবনাময় জাত, ও ফলন বেশি। আমাদের আবাদি জমি প্রতিনিয়ত কমে যাচ্ছে অন্যদিকে জনসংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলে কম জমিতে বেশি পরিমাণে ধান উৎপাদন করতে হবে। ব্রি ধান ৮৯ এর গাছ শক্ত, সহজে বাতাসে হেলে পড়ে না, ছড়ায় ধানের সংখ্যা বেশি এবং চিটা হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম। ফলে বোরো মৌসুমে এ জাতের আবাদ বৃদ্ধি করে এদেশের খাদ্য নিরাপত্তা আরও টেকসই করে বিদেশে চাল রপ্তানী করা সম্ভব। বর্তমান কৃষি বান্ধব সরকারের আন্তরিক সহযোগিতায় কৃষি ও কৃষকের উন্নয়ন কার্যক্রম আরোও গতিশীল হবে এবং দেশের খাদ্য নিরাপত্তা হবে টেকসই। উৎপাদনকৃত সকল ধান বীজ হিসেবে সংরক্ষণ করে কৃষকদের মাঝে বীজ বিনিময় ও বিক্রয়ের মাধ্যমে এ জাতের আবাদ সম্প্রসারণ করতে আগত সবাইকে পরামর্শ প্রদান করেন।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

সাঁথিয়ায় বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ও পুনর্বাসন সোসাইটির কর্মীসভা অনুষ্ঠিত

গোমস্তাপুরে নমুনা শস্য কর্তনের উদ্ধোধন

আপডেট সময় ১১:৩৯:৪৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২ মে ২০২৩

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গোমস্তাপুর উপজেলার গোমস্তাপুর ইউনিয়ানের নিমতলা কাঠাল এলাকায় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আয়োজনে নমুনা শস্য কর্তন উদ্বোধন করা হয়।
মঙ্গলবার (২ মে) বিকেল ৩ টায় ব্রি ধান ৮৯ এর নমুনা শস্য কর্তন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডা. পলাশ সরকার উপ-পরিচালক কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর চাঁপাইনবাবগঞ্জ, ডা. বিমল কুমার প্রামানিক হাটিকালচার সেন্টার চাঁপাইনবাবগঞ্জ, মনিটরিং অফিসার তেল জাতীয় ফসল উৎপাদন প্রকল্প চাঁপাইনবাবগঞ্জ, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ তানভীর আহমেদ সরকার, সহকারী কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার মোঃ আব্দুল রাজ্জাক, উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা মোঃ সেরাজুল ইসলাম অত্র এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ কৃষকগণ ব্রি ধান ৮৯ এর বীজ উৎপাদন ও মাঠ পরিদর্শণ করেন। ব্রি ধান ৮৯ এর ফলন দেখে কৃষকগণ এ ধান চাষে ব্যাপক আগ্রহ প্রকাশ করেন।

নমুনা শস্য কর্তনের আলোচনা সভায় উপজেলা কৃষি অফিসার তানভীর আহমেদ সরকার বলেন, ২০২২-২০২৩ অর্থ বছরে কৃষি প্রদনা কর্মসূচি ও রাজস্ব প্রকল্পের আওতায় প্রায় ১৫০০ শ কৃষকে বীজ ও সার প্রদান করেছি। হিসাবে ব্রি ধান ৮৯ বোরো মৌসুমে অত্যন্ত সম্ভাবনাময় জাত, ও ফলন বেশি। আমাদের আবাদি জমি প্রতিনিয়ত কমে যাচ্ছে অন্যদিকে জনসংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলে কম জমিতে বেশি পরিমাণে ধান উৎপাদন করতে হবে। ব্রি ধান ৮৯ এর গাছ শক্ত, সহজে বাতাসে হেলে পড়ে না, ছড়ায় ধানের সংখ্যা বেশি এবং চিটা হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম। ফলে বোরো মৌসুমে এ জাতের আবাদ বৃদ্ধি করে এদেশের খাদ্য নিরাপত্তা আরও টেকসই করে বিদেশে চাল রপ্তানী করা সম্ভব। বর্তমান কৃষি বান্ধব সরকারের আন্তরিক সহযোগিতায় কৃষি ও কৃষকের উন্নয়ন কার্যক্রম আরোও গতিশীল হবে এবং দেশের খাদ্য নিরাপত্তা হবে টেকসই। উৎপাদনকৃত সকল ধান বীজ হিসেবে সংরক্ষণ করে কৃষকদের মাঝে বীজ বিনিময় ও বিক্রয়ের মাধ্যমে এ জাতের আবাদ সম্প্রসারণ করতে আগত সবাইকে পরামর্শ প্রদান করেন।