• শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ০৬:৫৮ পূর্বাহ্ন
  • Arabic Arabic Bengali Bengali English English
শিরোনাম
হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আটক করেছে র‌্যাব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চলমান ছুটি বাড়লো ৩১ আগষ্ট পর্যন্ত হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ মাদক উদ্ধার নবীগঞ্জে বিধিনিষেধ অমান্য করায় জরিমানা পবায় প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় পরিবারের মাঝে ঢেউটিন বিতরণ সরাইলে নমুনা দেয়ার আগেই ঢলে পড়লেন মৃত্যুর কোলে শনিবার থেকে নিবন্ধনকারীদের করোনার টিকা দেওয়া হবে রাজশাহী টিচার্স ট্রেনিং কলেজে পবায় কোভিড-এ ক্ষতিগ্রস্ত পল্লী উদ্যোক্তাদের মাঝে প্রণোদনা ঋণ বিতরণ উল্লাপাড়ায় স্বেচ্ছায় রাস্তা সংস্কার কঠোর লকডাউনে বাড়েনি সবজির দাম, সাধারণ মানুষর স্বস্তি ফিরলেও দুঃশ্চিন্তায় চাষীরা
বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈদিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একদন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ

গোমস্তাপুরে ৯ বছরের শিশুকে ধর্ষণের সাড়ে তিন মাসেও গ্রেপ্তার হয়নি ধর্ষক

news / ৪৪ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার, ১০ জুন, ২০২১

মো কাবিরুল ইসলাম, গোমস্তাপুর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার রাধানগর ইউনিয়নে ৯ বছরের শিশুকে ধর্ষণের সাড়ে তিন মাসেও গ্রেপ্তার হয়নি ধর্ষক।

গত ১২ ফেব্রুয়ারী বুধবার শিশুটিকে তার নিজ বাড়িতে একা পেয়ে পানি খেতে চেয়ে ঘরে ঢুকে মেহেদী নামের এক যুবক ধর্ষণ করে। এই মর্মে শিশুটির বাবা বাদী হয়ে গোমস্তাপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার সাড়ে তিন মাস অতিবাহিত হয়ে গেলেও এখনও পর্যন্ত অভিযুক্ত ধর্ষককে আটক করতে পারেনি গোমস্তাপুর থানা পুলিশ।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগী শিশুর বাবা জানান, তার ৯ বছরের শিশুটি তারা বাড়িতে না থাকায় এই নরপশুর দ্বারাই ধর্ষণের শিকার হয়েছিল। খুবই দুঃখজনক সাড়ে তিন মাস পের হয়ে গেলেও এখনও পর্যন্ত পুলিশ ধর্ষক মেহেদীকে (২০) আটক করতে পারে নি। তাদের অগ্রগতি দেখে তারা হতবাক হয়ে রয়েছে। কারণ এ ধর্ষককে শনাক্ত তারাই করেছে, পুলিশ করতে পারেনি।তার বাড়ি রাধানগর ইউনিয়নের রোকনপুরগঞ্জে।এটা শনাক্ত করে পুরো ঠিকানা পাওয়ার শর্তেও পুলিশ যে কেনো তাকে আটক করছে না। সেই প্রশ্ন এখন তাদের মনে নারা দিচ্ছে ? তারা যদি এটা না করতে পারে,আমরা তীব্র প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি,যে-কোন কৌশলে হোক ওই অভিযুক্ত ধর্ষক মেহেদীকে পুলিশের হাতে তুলে দিবে।আমরা এ ধর্ষকের ফাঁসির দাবি করেন।

অভিযুক্ত ধর্ষক মেহেদী’র আপন চাচা আব্দুল বাসির বলেন, তার ভাতিজা মেহেদী ও তার ভাই সাদিকুল ইসলামসহ তার পরিবারের সকলে দুই মাস থেকে আত্মগোপনে রয়েছে। তবে বিষয়টি তার জানা এবং তাদেরকে কিছুদিন বাইরে থাকতে বলেছে। তারা চেষ্টা করছে মেয়ে পক্ষ ও ছেলে পক্ষের সাথে একটা সালিস করার।

এ বিষয়ে গোমস্তাপুর থানার (ওসি) তদন্ত ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সেলিম রেজা বলেন, আমরা অভিযুক্ত ধর্ষককে শনাক্ত করতে পেরেছি। সে আত্নগোপনে রয়েছে। খুব শীঘ্রই তাকে ধরে ফেলবো বলে আশা করছি।


এই বিভাগের আরো সংবাদ