• সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ১১:২৮ পূর্বাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
শিরোনাম
পাচার বাণিজ্যে মতানৈক্যের জেরে সীমান্তে অপহৃত নাবালক ৬ চিকিৎসক নিয়ে ধুঁকে ধুঁকে চলছে বরগুনা সরকারি হাসপাতাল সামাজিক দূরত্ব ভুলে রাসিক মেয়র লিটনের খাদ্য সামগ্রী বিতরন সলঙ্গায় ১০কেজি গাঁজাসহ মাদক ব‍্যবসায়ী আটক বরুড়ায় ১৫০ অক্সিজেন সিলিন্ডার দিলেন এসকিউ গ্রুপের শফিউদ্দিন শামীম বাবার মৃত্যুর একদিন পর মাকেও হারালেন সহকারী এটর্নি জেনারেল এড. ফারুক সাতক্ষীরা শহরের বাগানবাড়িতে ভূমিহীনদের পুর্নবাসনের দাবিতে উঠান বৈঠক আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে আনতে হবে: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মুরাদনগরে দিনব্যাপী ডিউটি অফিসারের ভূমিকায় এএসপি রূপগঞ্জে ওয়ারেন্টভুক্ত চার পলাতক আসামি গ্রেফতার
বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈনিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ ।

চাঁদকে বলছি…দীপক কুমার দেব নাথ

news / ৭২ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় শুক্রবার, ১৬ জুলাই, ২০২১

প্রিয়,
‘চাঁদ’ ভালো বাসা এক অজানা পথ। কখনো কখনো সেই পথে পৌছা যায় না, আর যদিও পৌছা যায় সেইটা হাতে গুনা কজন, সবার ভাগ্যে হয় না। চাঁদকে ভালো বাসতো খুব অন্ধকার, এখনো ভালো বাসে। বাকি জীবনটাও ভালো বেসে যাবে দূর থেকে। যদিও সেইটা চাঁদের কাছে মূল্যহীন। কিন্তু চাঁদের মনে অন্ধকারের জন্য আর কোন যায়গাই অবশিষ্ট নেই। তবুও সারাজীবন চাঁদকে ভালো বেসে যেতে চায় অন্ধকার। ও চাঁদ তুমি অন্ধকারকে নিঃস্ব করে গেলে! চাঁদ তুমি নিজেকে সূর্যের আলোতে উজ্জ্বল করে মিলে রইলে। এদিকে চাঁদকে হারিয়ে অন্ধকারকে সাথী করে রইলো চাঁদের সেই চিরচেনা অন্ধকার মানুষটি। চাঁদ তুমি কেমন আছো? তোমার সেই চাঁদ মুখটা কি আজও চিনতে পারে অন্ধকারকে? চাঁদকে বলছি। তুমি কি শুনতে পাচ্ছো অন্ধকারের চিৎকার? চাঁদ তোমার পৃথিবীটা এখন অনেক আলোকিত অনেক উজ্জ্বল। চাঁদ পৃথিবীর অনেক সুখী মানুষ, চাঁদের পৃথিবীতে অন্ধকার বলে কোন শব্দ নেই। চাঁদ তোমার মুখটা আর কখনো অন্ধকারে লুকিয়ে রাখা লাগবে না। তুমি অন্ধকার কে ঠেলে দিয়ে ভোরের সূর্যকে আলিঙ্গন করছো। চাঁদ তোমার সূর্য কেমন? সে কি তোমায় অন্ধকারের মতো ভালো বাসে? জানি তোমার সূর্য তোমাকে অন্ধকারের চেয়েও বেশি ভালো বাসে। সত্যি কি তাই? সূর্য তোমার অন্ধকারকে সরিয়ে তোমাকে নতুন পৃথিবী এনে দিয়েছে। চাঁদ তুমি কি এখন অন্ধকারকে একেবারেই ভুলে গেছো? তোমার কি ইচ্ছে করে না অন্ধকারটা ঘুরে দেখতে? জানি সেই পথে চাঁদ আর এখন নেই, চাঁদ তোমার পৃথিবী সূর্যের আলোতে অনেক আলোকিত । চাঁদ সূর্যের সাথে মিশে অন্ধকারকে দূরে ঠেলে দিয়েছে। অন্ধকার বসে থাকে চাঁদের আলোর জন্য যদিও সেই পথ এখন একেবারেই ক্ষীণ। চাঁদ তোমার কি ইচ্ছে হয় না অন্ধকারে আলো ছড়াতে? জানি সূর্য তোমাকে অন্ধকারে ডুবতে দেয় না। চাঁদ সূর্যের আলোতে অন্ধকার এখন মৃতপ্রায়।
চাঁদ তোমার কি মনে পরে পুরনো দিন গুলোর কথা? চাঁদ তুমি কি পারবে সেই দিন গুলোকে ভুলে থাকতে? চাঁদ তোমাকে সেদিনের স্মৃতিগুলো তারা করে বেড়াবে সারাজীবন।

ও চাঁদ সেই দিনগুলো কি মনে আছে তোমার? ১০ মার্চ এবং ২৪ এপ্রিল অনেক সুন্দর ছিল দিন গুলো চাঁদ এবং অন্ধকারের কাছে। চাঁদ দিনগুলো স্মরনীয় হয়ে থাকবে অন্ধকারের কাছে। এছাড়াও ১৮মে, (মঙ্গলবার) দিন টাও বেশ ছিল । ২৮ মে শুক্রবার টাও মন্দ ছিল না অন্ধকারের কাছে। এদিন সূর্যকে কাছে পাওয়ার আরেক ধাপ এগিয়ে গেল চাঁদ। অন্ধকার এদিন বিসর্জন দিলো চাঁদ কে । এর চেয়ে আর কি অবশিষ্ট থাকে অন্ধকারের মানুষটির কাছে। দিনটি ছিলো অন্ধকারের জন্য বিভিশিকা ময়। কিন্তু চাঁদ তুমি ছিলে আনন্দে উদবেলিত, চাঁদ সেদিন তুমি অন্ধকারকে বুঝতে দেওনি তুমি সূর্য কে আপন করে নিয়েছো। তুমি সূর্যের আলোর কাছে অন্ধকারকে হারিয়ে দিলে। কারণ সেদিন চাঁদ সূর্য কে পেয়ে অনেক আনন্দে আত্ম হারা ছিলো। চাঁদ তুমি অন্ধকারে আর ফিরে যেতে চাওনি।
১৩ জুলাই চাঁদ দুপুরের পর থেকে অন্ধকারের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিলো, একেবারে মন থেকে এবং মোবাইলের হোয়াটসঅ্যাপ নাম্বার থেকে। একেবারে আইডি টা-ই ব্লক করে দেওয়া হলো যাতে অন্ধকার কোন যোগাযোগ করতে না পারে। ও চাঁদ যেদিন অন্ধকারের সাথে আলাপ না হতো সেদিন কিছুতেই কাটতো না তোমার। আর আজ কিভাবে পারলে চাঁদ? আসলে চাঁদ জানে কিভাবে অন্ধকার কে চাঁদের থেকে আলাদা করতে হয়। তবুও চাঁদ তুমি ভালো থেকো সুখে থেকো। আর কোন অভিমান নেই অভিযোগ নেই চাঁদের প্রতি অন্ধকারের। চাঁদ সূর্যের আলোতে আজ অম্লান হয়ে আছে।
শুনেছি চাঁদের সূর্য অনেক স্মার্ট, বিচক্ষণ, উচ্চ শিক্ষিত, উপায় ভালো, চাঁদের জন্য স্বর্ণকমল বানিয়ে রেখেছে সূর্য। চাঁদ তোমাকে আর অন্ধকারে লুকিয়ে থাকতে হবে না।
সেই দিনটা ছিলো ১৪জুলাই (বুধবার) চাঁদের ছিলো আনন্দের দিন। দিন পেরিয়ে সন্ধ্যা, সন্ধ্যা গড়িয়ে রাত। চাঁদ লাল টুকটুকে সাজ নিয়ে বসে রয়েছে সূর্যের আলোর জন্য। আর অপেক্ষা করছে সূর্যকে আলিঙ্গন করবে বলে। অবশেষে এলো সেই মহেন্দ্রক্ষণ, নিশীথের সূর্য চাঁদের সাথে আবদ্ধ হলো অন্ধকার কেটে গেল। রাত পেরিয়ে সকাল হলো। চাঁদ সূর্যের আলোর দেখা পেলো অন্ধকারকে আর অনুভব করতে হলো না। আর অন্ধকারের জন্য ছিলো তখন বেদনার, কারণ অন্ধকার আর চাঁদ সূর্যের আলোর দেখা পেল না। অন্ধকারের হৃদয় টুকরো করে চাঁদ চলে গেল সূর্যের কাছে। ওইদিন মনটাকে সারাদিন অনেক বুঝাতে চেয়েছিল অন্ধকার। কিন্তু সে কিছুতেই বুঝে উঠতে পারেনি কিভাবে ধাক্কাটা সামলে উঠবে। এই পথ চলার শেষ কোথায়? অন্ধকার সেদিন নিরবে নিভৃতে কেঁদেছে চাঁদের হাসি মুখটার জন্য। কিন্তু সেই সৌভাগ্য তার আর হলো না, অন্ধকার কে চাঁদের আলোতে আর ফুটিয়ে তোলা গেল না। চাঁদ তোমার হৃদয়ে সেদিন কেমন লেগেছিল? একটুও কি নারা দিয়েছিল অন্ধকারের মানুষটিকে দেখার। অন্ধকার আজও সেই অন্ধকারেই পরে রয়েছে তার হৃদয়ে চাঁদের আলো নেই।

আসলে যেতে চাইলে কাউকে ধরে রাখা যায় না। চাঁদ এভাবে হারিয়ে যাবে আর দেখাও হবে না কোন দিন চিন্তাও করে নাই অন্ধকার। সেদিন অন্ধকারের মনে অনেক কষ্ট ছিলো, কারণ চাঁদ একটি বারের জন্যেও অন্ধকারের ভালো মন্দ জিজ্ঞেস করলো না, প্রয়োজনও মনে করলো না। আর সেদিন চাঁদের সাথে থাকা তারা গুলোও নিরব ছিলো। আসলে কি চাঁদের সবটাই সাজানো ছিলো অন্ধকারের জন্য? চাঁদ সেদিন অন্ধকার কি অন্যায় করেছিল তোমার কাছে ? তার প্রায়শ্চিত্ত করতে হচ্ছে? চাঁদ তুমি পারলে না অন্ধকারকে আলোর মুখ দেখাইতে। অন্ধকার পেরিয়ে আলো এলো তোমার জীবনে, আর সেই আলোকে ফুটিয়ে তুললো চাঁদের কাঙ্ক্ষিত সূর্য।
চাঁদ দেখতে দেখতে আজ অনেক দিন পেরিয়ে গেছে। তোমার কি একবার ও মনে পরলো না অন্ধকারের কথা? অবশ্য দিন পেরিয়ে আবার রাত, মাস পেরিয়ে বছর আসবে এভাবেই কেটে যাবে জীবন। অন্ধকার আর চাঁদের আলো স্পর্শ করতে পারবে না। চাঁদ তুমি কেমন আছো সূর্য কে নিয়ে? ভালো থেকো চাঁদ, ভালো থেকো সূর্য কে নিয়ে।

ইতি
অন্ধকার।


এই বিভাগের আরো সংবাদ