ঢাকা ০৪:০৮ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম

চিকিৎসা পত্র ছাড়াই ব্যবহৃত হচ্ছে অ্যান্টিবায়োটিক

নিবন্ধিত চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশন ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ বিক্রি নিষিদ্ধ করে ওষুধ ও প্রসাধনী আইন, ২০২৩ এর খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।খসড়া আইন অনুযায়ী, কোনো নিবন্ধিত চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ বিক্রি করা যাবে না এবং এটি শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলে গণ্য হবে। ‘চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশন ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি করলে ২০ হাজার টাকা জরিমানার বিধান রেখে ওষুধ আইন, ২০২৩ এর খসড়া চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। অথচ সরজমিনে দেখা যায়, রাজধানী ঢাকার নন্দীপাড়া, বনশ্রী ও বাসাবো এলাকায় আইন অমান্য করে চলছে অ্যান্টিবায়োটিক এর ব্যবহার। সর্দি, কাশি, জ্বর হলে ফার্মেসী দোকানদারেরাই পরামর্শ দেন অ্যান্টিবায়োটিক সেবনের জন্য৷ এতে করে রোগী তার নিজের অজান্তেই তার শরীরের ক্ষতি করছে৷ অ্যান্টিবায়োটিকের ডোজ ঠিকমতো না নেওয়ার ফলে বা ভুল ভাবে অ্যান্টিবায়োটিক সেবনের ফলে শরীরে নানা রকমের সমস্যা দেখা দিতে পারে। যেমন ইনফেকশনের পরে পেট ফুলে যাওয়ার মত সমস্যা। বারবার মলত্যাগের বেগ পাওয়ার মত সমস্যা হতে পারে। ইনফেকশনের মত সমস্যা অ্যান্টিবায়োটিক ড্রাগ থেকে হতে পারে। দোকানদার আইনের তোয়াক্বা না করে তারা তাদের মত করে অ্যান্টিবায়োটিক এর ব্যবহার, প্রয়োগ ও বিক্রি করছে চিকিৎসা পত্র ছাড়া৷

আপলোডকারীর তথ্য

নওগাঁ-নাটোর আঞ্চলিক মহাসড়ক নির্মাণ কাজের নানান অনিয়মের অভিযোগ

চিকিৎসা পত্র ছাড়াই ব্যবহৃত হচ্ছে অ্যান্টিবায়োটিক

আপডেট সময় ০৬:৫৮:৫১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২ মার্চ ২০২৩

নিবন্ধিত চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশন ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ বিক্রি নিষিদ্ধ করে ওষুধ ও প্রসাধনী আইন, ২০২৩ এর খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।খসড়া আইন অনুযায়ী, কোনো নিবন্ধিত চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ বিক্রি করা যাবে না এবং এটি শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলে গণ্য হবে। ‘চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশন ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি করলে ২০ হাজার টাকা জরিমানার বিধান রেখে ওষুধ আইন, ২০২৩ এর খসড়া চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। অথচ সরজমিনে দেখা যায়, রাজধানী ঢাকার নন্দীপাড়া, বনশ্রী ও বাসাবো এলাকায় আইন অমান্য করে চলছে অ্যান্টিবায়োটিক এর ব্যবহার। সর্দি, কাশি, জ্বর হলে ফার্মেসী দোকানদারেরাই পরামর্শ দেন অ্যান্টিবায়োটিক সেবনের জন্য৷ এতে করে রোগী তার নিজের অজান্তেই তার শরীরের ক্ষতি করছে৷ অ্যান্টিবায়োটিকের ডোজ ঠিকমতো না নেওয়ার ফলে বা ভুল ভাবে অ্যান্টিবায়োটিক সেবনের ফলে শরীরে নানা রকমের সমস্যা দেখা দিতে পারে। যেমন ইনফেকশনের পরে পেট ফুলে যাওয়ার মত সমস্যা। বারবার মলত্যাগের বেগ পাওয়ার মত সমস্যা হতে পারে। ইনফেকশনের মত সমস্যা অ্যান্টিবায়োটিক ড্রাগ থেকে হতে পারে। দোকানদার আইনের তোয়াক্বা না করে তারা তাদের মত করে অ্যান্টিবায়োটিক এর ব্যবহার, প্রয়োগ ও বিক্রি করছে চিকিৎসা পত্র ছাড়া৷