শিরোনাম
ঠাকুরগাঁওয়ে বিএনপির বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত সন্দ্বীপ ফ্রেন্ডস ইউনিটি ক্লাবের সাধারণ জ্ঞান প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত মালদ্বীপে বৈধ পথে প্রবাসীদের রেমিটেন্স প্রেরণ সংক্রান্ত উদ্বুদ্ধকরণ সভা বরুড়ায় কিশোরের ছুরিকাঘাতে বাবার মৃত্যু মাপে কম দেওয়ায় ঝিনাইদহ ও কালীগঞ্জে দুই পাম্পে এক লক্ষ টাকা জরিমানা ছাত্রী’কে যৌন হয়রানি : নিমসার জুনাব আলী কলেজের অধ্যক্ষের পদত্যাগ দাবিতে প্রতিবন্দী রিকশা চালক জয়নাল মিয়ার মাথার ওপর ভেন্না পাতার ছানি ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি-সম্পাদকের বিরুদ্ধে পদ-বাণিজ্যের অভিযোগ দ্রব্যমূল্যের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে নরসিংদীতে জাতীয় পার্টির মানববন্ধন মানুষ না খেয়ে নাই, গায়ে জামাকাপড়ও আছে: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী
বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈনিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ ।

জয়পুরহাটে ৫ কোটি টাকা নিয়ে এনজিও কর্মকর্তা উধাও

Muktir Lorai / ৯৬ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় সোমবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২০

জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে গ্রাহকদেরর পাঁচ কোটিরও বেশি টাকা নিয়ে গ্রামীণ সঞ্চয় ও ঋণদান সমবায় সমিতি লিমিটেড নামের এনজিও কর্মকর্তা চন্দ্রলাল রবিদাস উধাও হয়েছেন। ফলে বিপাকে পড়েছে শত শত গ্রাহক।

স্থানীয়রা জানান, এনজিওটি ২০১৩ সালে উপজেলা সমবায় কর্তৃক নিবন্ধন নিয়ে উপজেলার কৃষি ব্যাংক মোড় সংলগ্ন ভবনের দ্বিতীয় তলায় অফিস ভাড়া নিয়ে কার্যক্রম শুরু করে। চারজন আদায়কারী নিয়োগ করে এলাকায় ডিপিএসে ১৫ শতাংশ এবং এফডিআরে দ্বিগুণ লভ্যাংশের ঘোষণা দিয়ে গ্রাহক সংগ্রহ শুরু করে।

তাদের বিশ্বাস করে এলাকার অনেক মানুষ ডিপিএস, এফডিআর ও সঞ্চয় করেন। এরই মধ্যে কিছু গ্রাহক সঞ্চয় ফেরত চাইলে এনজিও কর্মকর্তা চন্দ্রলাল রবিদাস টালবাহানা করতে থাকেন।

উপজেলার সুলতানপুর গ্রামের নাফিজুর রহমান নাহিদ বলেন, আমার মায়ের পেনশনের ১২ লাখ টাকা এফডিআর হিসাবে জমা রাখি। মাসে ১ হাজার ৫০০ টাকা লভ্যাংশ দেয়ার কথা থাকলেও এক টাকাও পাইনি। এখন দেখছি সমিতি উধাও। আমার মা এই চিন্তায় শয্যাশায়ী।

গনেশপুর গ্রামের আদিবাসী সাঙ্গাল উড়াও বলেন, জমি বিক্রির চার লাখ টাকা জমা করি। এখন অফিসে দেখছি তালা। আমি এখন কী করে খাব?

শিমুলতলী গ্রামের রুনা মার্জিয়া বানু জানান, লাভের আশায় সমিতিতে চার লাখ টাকা জমা রাখি। অফিস উধাওয়ের খবরে সংসার এখন ভাঙনের মুখে।

সমিতির মাঠ কর্মকর্তা রাশেদ মণ্ডল বলেন, আমি ও আমার স্ত্রী ১০ লাখ টাকা জামানত দিয়ে ২২ হাজার টাকা মাসিক বেতনে চাকরি নিই। নিজের নামে চার লাখ এবং স্ত্রীর নামেও তিন লাখ টাকা সঞ্চয় রাখি। তবে অনেক দিন থেকে সেখানে বেতন দেয় না। এখন ছেলেমেয়ে নিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছি।

পাঁচবিবি পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সমাজকর্মী এস কে হক, ব্যবসায়ী আহসানুল হক বিপ্লবসহ এলাকাবাসী বলেন, গ্রামীণ সঞ্চয় ও ঋণদান সমবায় সমিতি লিমিটেড শত শত গ্রাহকের কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছে। আশা করি সমবায় অফিস এ সমিতির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে।

এ বিষয়ে উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা লুৎফুল কবীর বলেন, গ্রামীণ সঞ্চয় ও ঋণদান সমবায় সমিতি লিমিটেড নামের একটি সমিতি বন্ধের অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত চলছে। রিপোর্ট পেলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।


এই বিভাগের আরো সংবাদ
Translate »
Translate »