বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈনিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ ।

ঝিনাইদহর দুই উপজেলায় অজ্ঞান ডাক্তার ছাড়াই অপারেশন চলছে অহরহ

Muktir Lorai / ১৪৩ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার, ১৫ জুন, ২০২১

শাহিনুর রহমান পিন্টু, ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: চলতি 2021 সালের শুরু থেকেই সারাদেশে ভুক্তভোগী রোগীদের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে গণপ্রজাতন্তী বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এবং ডিসি অফিস বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিক গুলো পরিচালনা করতে কয়েক দফায় নীতিমালা সম্মলিত একটি বিজ্ঞাপন জারি প্রত্যেক জেলা সিভিল সার্জন অফিসে পত্র পাঠাই, এ এরপর উক্ত বিজ্ঞাপনের ফটোকপি সিভিল সার্জনের কার্যালয় হতে প্রত্যেক উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা কে কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রেরণ করা হলেও ঝিনেদাহ সীমান্তবর্তী দুটি উপজেলা যথাক্রমে, মহেশপুর ও কোটচাঁদপুর কোন বেসরকারি ক্লিনিক অথবা হাসপাতলে বিজ্ঞাপনের বোতিক কোন নীতিমালা মানা হচ্ছে না বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে ,সরকারি স্বাস্থ্য বিভাগ উক্ত বিজ্ঞাপনের বলা হয়েছে বেসরকারি সেবা প্রতিষ্ঠান গুলোতে 24 ঘন্টা একজন এমবিবিএস ডাক্তার, একজন ডিপ্লোমা নার্স, উন্নত সেবাযোগ্য অপারেশন থিয়েটার, নিজস্ব বিদ্যুৎ ব্যবস্থা সহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে সকল প্রকার অপারেশনের সময় একজন অজ্ঞান ডাক্তার রেখে ভুক্তভোগী রোগীদের অপারেশন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে, ইতিমধ্যে ঝিনাইদহ 4 আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম (আনার)স্থানীয় উপজেলা নির্বাহি অফিসার সুবর্ণা রানী সাহা এবং জেলা সিভিল সার্জন সেলিনা বেগম স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তাদের সাথে কালিগঞ্জ বেসরকারী হাসপাতাল ও ক্লিনিক মালিকদের কয়েক দফায় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়, সর্বশেষ সিভিল সার্জনের কঠোর মনোভাবের কারণে কালিগঞ্জ প্রত্যেকটি বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিক বিশেষজ্ঞ সার্জন ডাক্তার দ্বারা রোগীদের অপারেশন কার্যক্রম চলমান রয়েছে, কালীগঞ্জ উপজেলা ক্লিনিক মালিক সমিতির সম্পাদক গোলাম রব্বানী ও কোষাধক্ষ্য হাফিজুর রহমান পিন্টু জানাই, এই উপজেলার কোন ক্লিনিক মালিক অজ্ঞানতা ছাড়া রোগী অপারেশন করলে সমিতির পক্ষ থেকে তার প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হবে, তাদের অভিযোগ আমরা কালিগঞ সকল ক্লিনিক সরকারি নীতিমালা মেনে পরিচালনা করলেও পার্শ্ববর্তী সীমান্ত মানাই বালাই নেই ,নাম প্রকাশ অনিশ্চিত কালিগঞ্জ অপারেশন অভিজ্ঞ দুইজন ডাক্তার জানায়, তারা মাঝেমধ্যে কোটচাঁদপুর ও মহেশপুর উপজেলায় কিছু ক্লিনিকে রোগী অপারেশন করতে গেলেও অজ্ঞান ডাক্তার দেখা মেলে না, ক্লিনিক মালিক অথবা বেসরকারি ক্যালিপার্স দিয়ে রোগী অজ্ঞান করে, সেই কারণে তার ডাক পড়লেও কোটচাঁদপুর ও মহেশপুর অপারেশন করতে যায়না, কালিগঞ্জ ক্লিনিক মালিক সমিতির অভিযোগ, এক জেলায় বেসরকারি ক্লিনিক পরিচালনার দ্বৈত আইন চলতে পারে না, কালিগঞ্জ কিলিক মালিক সমিতির দাবি, জেলা অভিজ্ঞ সিভিল সার্জন সেলিনা বেগম এই দুটি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা গণ অতি দ্রুত কোটচাঁদপুর ও মহেশপুর উপজেলায় প্রত্যেকটি বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিক গুলোতে স্বাস্থ্য মন্ত্রালয়ের জারিকৃত বিজ্ঞাপন মানতে বাধ্য করবেন এটাই আমাদের প্রত্যাশা।


এই বিভাগের আরো সংবাদ
Translate »
Translate »