বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈনিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ ।

ঠাকুরগাঁওয়ে ইয়াবা সেবনের অভিযোগে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মানববন্ধন

Muktir Lorai / ১০৮ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় রবিবার, ১৩ জুন, ২০২১

মোঃ ইলিয়াস আলী, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ ঠাকুরগাঁওয়ে এক ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ইয়াবা সেবনের অভিযোগ সত্যতায় বিচারের দাবি করে মানববন্ধন কর্মসুচি পালন করেছে শিক্ষার্থীরা।

রোববার ১৩ই জুন দুপুরে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা শহরের চৌরাস্তায় এ কর্মসুচি পালন করে তারা।

মানববন্ধন চলাকালে লাহিড়ী ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক সোহেল রানা, শিক্ষার্থী রাজু, রুবেল, রবিউল, আক্তারুল, তুষার রতনসহ বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে সরকার জিরো ট্রলারেন্স ঘোষনা করলেও ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার দুওসুও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম গেল কয়েক মাস আগে তার ইউনিয়ন পরিষদে বসে সহযোগীদের নিয়ে ইয়াবা সেবন করেন। পরবর্তিতে ইয়াবা সেবনের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। পরে ইয়াবা সেবনের কর্মকান্ড নিয়ে চেয়াম্যানের বিরুদ্ধে গণমাধ্যমে সংবাদ পরিবেশন হয়। পরে প্রশাসন অভিযোগ খতিয়ে প্রমানও পায়। অভিযোগ প্রমানিত হওয়ার পরেও অজ্ঞাত কারনে তার বিরুদ্ধে এখনো কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। আমরা অনুরোধ করবো দ্রুত সময়ের মধ্যে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করবেন। তা না হলে অপরাধীরা যেমন পার পেয়ে যাবে, তেমনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ঘোষনা কার্যকর হবে না। অভিযুক্ত চেয়ারম্যানকে আইনের আওতায় আনা না হলে শিক্ষার্থীরা আরো কঠোর আন্দোলন করবে বলে হুশিয়াররি উচ্চারণ করেন।

উল্লেখ্য, প্রকাশিত সংবাদের ভিত্তিতে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা নির্বাহী অফিসার জোবায়ের হোসেনকে একটি প্রতিবেদন প্রেরণ করতে বলা হয়। কিন্তু তার দেয়া প্রতিবেদনটিতে সু-স্পস্ট মতামত না থাকায় আবারো প্রতিবেদন দিতে বলেন জেলা প্রশাসন।

পরবর্তিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ভিডিওটি সত্যতা যাচাইয়ে ঢাকার সিআইডিতে প্রেরণ করেন। যাচাই শেষে গেল সপ্তাহে ভিডিওটি সত্যতা রয়েছে উল্লেখ করে সিআইডি থেকে নির্বাহী অফিসারকে প্রতিবেদন প্রেরণ করেন। পরে নির্বাহী আফিসার তা একমত পোষন করে জেলা প্রশাসক বরাবরে প্রেরণ করেন।

এ বিষয়ে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক নুরকুতুবুল আলম এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান ভিডিও সত্য প্রমাণ হয়েছে। তবে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শুধু রিপোর্টির একমত পোষন করে প্রতিবেদন জমা দিয়েছেন। তাই আমরা আবারো নির্বাহী অফিসারকে নির্দেশ দিয়েছি যেহেতু রিপোর্ট প্রমানিত হয়েছে সে বিষয়ে করণীয় নিয়ে আগামী তিন কার্য দিবসের মধ্যে একটি সু-স্পস্ট প্রতিবেদন জমা দিতে। আর সেই প্রতিবেদনটি আসলেই আমরা পরবর্তি ব্যবস্থা গ্রহন করবো।


এই বিভাগের আরো সংবাদ
Translate »
Translate »