তাহিরপুরে শিক্ষা অফিসে ঘুষের টাকা না দেওয়ায় শিক্ষক প্রাণনাশের হুমকি

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে ঘুষের টাকা না দেয়ায় এক শিক্ষককে শিক্ষা অফিস থেকে বের করে দেবার পাশাপাশি ভয়ভীতি ও প্রাণনাশের হুমকির দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, মনদিয়াতা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সান্জু মিয়া গত ২০০৯ সালের নিয়োগ প্রাপ্ত প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের উচ্চতর গেট (১০ বছর পুর্তিতে) বাস্থবায়নের জন্য ১২জন শিক্ষকের সাথে মনদিয়াতা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সান্জু মিয়া লিখিত ভাবে আবেদন করেন। কিছু দিন পূর্বে জয়পুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) হাদিউজ্জামান উচ্চতর গ্রেড বাস্থবায়নের জন্য প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির (প্রধান ও সহকারী শিক্ষক সমিতির) সভাপতি অজয় কুমার দে কে ১৫শত টাকা দেয়ার জন্য দাবী করেন। সান্জু মিয়া এই টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে ১২জনের মধ্যে তাকে বাদ দিয়ে ১১জনের উচ্চতর গ্রেড বাস্থবায়ন করা হয়। এই বিষয়ে জানতে গত ১৪জুন বিকালে শিক্ষা অফিসে গিয়ে অফিস সহকারী শাহ জামালের কাছে তার উচ্চতর গ্রেড কেন বাস্থবায়ন হল না জানতে চাইলে কক্ষে থাকা উমেদপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হুমায়ুন আহমেদ তাকে নানান ভাবে ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদর্শন করেন বলে তিনি অভিযোগ করেন।

ভুক্তভোগী শিক্ষক সান্জু মিয়া প্রতিকার চেয়ে রবিবার (২০,জুন) সকালে উপজেলার পাটাবুকা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অজয় কুমার দে ও উমেদপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হুমায়ুন আহমেদ এর বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এর কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

ভুক্তভোগী মনদিয়াতা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সান্জু মিয়া বলেন, ঘুষের টাকা না দেয়ায় আমার উচ্চর গ্রেড বাস্থবায়ন হয়নি। বিষয়টি আমি জানতে চাওয়ায় আমাকে হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শনকারীদের বিচার দাবী করছি।

অভিযুক্ত প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও উপজেলার পাটাবুকা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অজয় কুমার দে বলেন, আমি লিখিত অভিযোগের বিষয়ে কিছুই জানি না।

উমেদপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হুমায়ুন আহমেদ এর সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব না হওয়ায় তার বক্তব্য নেয়া যায় নি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রায়হান কবির জানান, আমি একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে আইন গত ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *