বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈনিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ ।

নবজাতক হত্যা: বাবাসহ ৩ জনকে পুলিশ হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ

Muktir Lorai / ৮২ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় বুধবার, ১৮ নভেম্বর, ২০২০

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে ঘুমন্ত মা-বাবার পাশ থেকে নবজাতক সোহানা চুরি ও হত্যার ঘটনায় শিশুর বাবা সুজন খানসহ তিনজনকে পুলিশ হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। বুধবার (১৮ নভেম্বর) বিকেলে পুলিশ তাদের মোরেলগঞ্জ থানায় নিয়ে আসে।

জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আনা অন্য দুজন হলেন, সুজনের ছোট ভাই রিপন খান (২৫) ও ভগ্নিপতি হাসিব শেখকে (৩০)।
এর আগে বুধবার দুপুরে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে সোহানাকে মাথায় আঘাত করে হত্যা করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. কেএম হুমায়ুন কবির। তিনি বলেন, মোরেলগঞ্জ উপজেলার ১৭ দিন বয়সী যে বাচ্চাটি চুরি গিয়েছিল বুধবার দুপুরে সেই শিশুটির ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। ময়নাতদন্তে আমরা দেখেছি শিশুটির মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। আমরা ধারণা করছি, মাথায় আঘাতের পরে মস্তিষ্কের রক্ত ক্ষরণের ফলে শিশুটির মৃত্যু হয়েছে। ময়নাতদন্তের সিদ্ধান্ত হচ্ছে মাথায় আঘাতের মস্তিষ্কের রক্তক্ষরণ হয়ে শিশুটি মারা গেছে।

এদিকে মরদেহ উদ্ধারের পর থানা পুলিশের পাশাপাশি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) ও সিআইডির পৃথক দুটি টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ঘটনাস্থলে পুলিশের একাধিক টিম রয়েছে।
শিশুটির মা শান্তা আক্তারের দাবি, আমার মেয়েকে পরিকল্পিতভাবে তুলে নিয়ে হত্যা করে পুকুরে ফেলে রাখা হয়েছে।
মোরেলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আমরা তিনজনকে থানায় নিয়ে এসেছি। থানায় রেখে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।
মোরেলগঞ্জ উপজেলার গাবতলা গ্রামে বাবা সুজন খান ও মা শান্তা আক্তারের সঙ্গে ঘুমিয়ে থাকা অবস্থায় রোববার (১৫ নভেম্বর) মধ্যরাতে ১৭ দিন বয়সী সোহানা চুরি হয়ে যায়। সোমবার ভোর থেকে পুলিশের একাধিক টিম শিশুটিকে উদ্ধারে অভিযান শুরু করে। সোমবার (১৬ নভেম্বর) রাতে অজ্ঞাতনামা আসামি করে মোরেলগঞ্জ থানায় মামলা করে শিশুটির দাদা আলী হোসেন খান। বুধবার (১৮ নভেম্বর) সকালে নামাজের পরে নিজ ঘরের সামনের পুকুরে নাতির মরদেহ ভাসতে দেখেন আলী হোসেন। পরে পুলিশ শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন।


এই বিভাগের আরো সংবাদ
Translate »
Translate »