ঢাকা ১০:১৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ফরিদপুরে তরুণীকে অপহরণ ও ধর্ষণ মামলায় পালিয়ে বেড়াচ্ছেন রাজিব

ফরিদপুর প্রতিনিধি

ফরিদপুরে এক তরুণীকে অপহরণ ও ধর্ষণের মামলা মাথায় নিয়ে জীবন শংকায় পালিয়ে বেড়াচ্ছেন কামরুজ্জামান রাজিব নামের এক যুবক।

জানা গেছে, ২০২১ সালের ১৫ ডিসেম্বর সকাল ১০ টার ওই তরুনী প্রাইভেট পড়ে বাড়ি যাওয়ার সময় সদরপুর উপজেলার মোনিকোটা বাজারের পাশে এলে তাকে জোর করে পিস্তল ঠেকিয়ে ওই যুবক একটি সাদা প্রাইভেটকারে তুলে অপহরণ করেন।

পরবর্তীতে ওই তরুনীকে ঢাকায় নিয়ে একটি বাসায় আটকে রেখে পালাক্রমে ধর্ষন করেন।
এরপর বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে তাকে ধর্ষণ করেন বলে তার পরিবার অভিযোগ করেন।পরিবারের লোকজন তাকে খোঁজাখুঁজি করে, আবস্থানের খোঁজ পেলে তার ভাই পুলিশের সাব ইন্সপেক্টর সুমন এবং আরেক ভাই মুসা বেপারি তাকে আজ্ঞান আবস্থায় কোকাকোলা হেলালের মেস থেকে উদ্ধার করেন।

এ ঘটনায় ২০২১ সালের ১৯ ডিসেম্বর ভিকটিমের বাবা মিজান বেপারি বাদী হয়ে সদরপুর থানায় রাজিবকে প্রধান আসামি করে মামলা করেন।

ওই যুবতীর বাবা মিজান বেপারি জানায়, পৃর্ব শত্রুতা থেকে কামরুজ্জামান রাজিব আমার মেয়েকে নানা ভাবে উত্ত্যক্ত করে আসছিল। তার বিরুদ্বে থানায় একাধিক মামলা রয়েছে, এলাকায় নানান ধরনের সন্ত্রাসী কর্ম কান্ড করে আসছে। এ ঘটনায় যুবতীর পরিবার কামরুজ্জামান রাজিবকে গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন।
মামলার পর থেকে কামরুজ্জামান রাজিব আত্মাগোপনে চলে যায়।
এছাড়াও কামরুজ্জামান রাজিবের বিরুদ্ধে সরকার বিরোধী আন্দোলনের কয়েকটি মামলা রয়েছে। এখন সে জীবন শংকায় পালিয়ে বেড়াচ্ছে।

পুলিশ জানায়, আসামিকে গ্রেফতার করার সর্বাত্মক চেষ্টা চলছে।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

ফরিদপুরে তরুণীকে অপহরণ ও ধর্ষণ মামলায় পালিয়ে বেড়াচ্ছেন রাজিব

আপডেট সময় ১২:৪৪:২২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২২

ফরিদপুর প্রতিনিধি

ফরিদপুরে এক তরুণীকে অপহরণ ও ধর্ষণের মামলা মাথায় নিয়ে জীবন শংকায় পালিয়ে বেড়াচ্ছেন কামরুজ্জামান রাজিব নামের এক যুবক।

জানা গেছে, ২০২১ সালের ১৫ ডিসেম্বর সকাল ১০ টার ওই তরুনী প্রাইভেট পড়ে বাড়ি যাওয়ার সময় সদরপুর উপজেলার মোনিকোটা বাজারের পাশে এলে তাকে জোর করে পিস্তল ঠেকিয়ে ওই যুবক একটি সাদা প্রাইভেটকারে তুলে অপহরণ করেন।

পরবর্তীতে ওই তরুনীকে ঢাকায় নিয়ে একটি বাসায় আটকে রেখে পালাক্রমে ধর্ষন করেন।
এরপর বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে তাকে ধর্ষণ করেন বলে তার পরিবার অভিযোগ করেন।পরিবারের লোকজন তাকে খোঁজাখুঁজি করে, আবস্থানের খোঁজ পেলে তার ভাই পুলিশের সাব ইন্সপেক্টর সুমন এবং আরেক ভাই মুসা বেপারি তাকে আজ্ঞান আবস্থায় কোকাকোলা হেলালের মেস থেকে উদ্ধার করেন।

এ ঘটনায় ২০২১ সালের ১৯ ডিসেম্বর ভিকটিমের বাবা মিজান বেপারি বাদী হয়ে সদরপুর থানায় রাজিবকে প্রধান আসামি করে মামলা করেন।

ওই যুবতীর বাবা মিজান বেপারি জানায়, পৃর্ব শত্রুতা থেকে কামরুজ্জামান রাজিব আমার মেয়েকে নানা ভাবে উত্ত্যক্ত করে আসছিল। তার বিরুদ্বে থানায় একাধিক মামলা রয়েছে, এলাকায় নানান ধরনের সন্ত্রাসী কর্ম কান্ড করে আসছে। এ ঘটনায় যুবতীর পরিবার কামরুজ্জামান রাজিবকে গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন।
মামলার পর থেকে কামরুজ্জামান রাজিব আত্মাগোপনে চলে যায়।
এছাড়াও কামরুজ্জামান রাজিবের বিরুদ্ধে সরকার বিরোধী আন্দোলনের কয়েকটি মামলা রয়েছে। এখন সে জীবন শংকায় পালিয়ে বেড়াচ্ছে।

পুলিশ জানায়, আসামিকে গ্রেফতার করার সর্বাত্মক চেষ্টা চলছে।