• শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১, ০৯:৩২ পূর্বাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈনিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ ।

ফুলবাড়ীতে ভিজিডির চাল আত্মসাতের অভিযোগ

news / ৪৫ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় রবিবার, ৪ জুলাই, ২০২১

পাভেল মিয়া, কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার ভাঙ্গামোড় ইউনিয়ন পরিষদের এক সংরক্ষিত মহিলা সদস্যদের বিরুদ্ধে ভিজিডির চাল আত্মসাতের অভিযোগ তুলেছেন একই ইউনিয়নের এক বাসিন্দা।

গত ১ জুলাই বৃহস্পতিবার উপজেলার ৫ নং ভাঙ্গামোড় ইউনিয়নে ৭নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা লাল মিয়া ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য আকলিমা বেগমের বিরুদ্ধে ভিজিডির চাল আত্মসাতের বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ২০১৯- ২০২০ চক্রে ওই তিন ওয়ার্ডের গরীব দুস্থ্য পরিবারের সহায়তায় জন্য প্রদত্ত ভিজিডি কার্ড আকলিমা বেগম সঠিক ভাবে বিতরণ করেন নাই। বরং প্রকৃত গরীব অসহায় মানুষকে বঞ্চিত করে নিজের নামসহ নিকটাত্মীয়দের মাঝে ভিজিডি কার্ড বিতরণ করেছেন। আর নিজ নাম ব্যবহার করে গত ২০১৯-২০ চক্রের ৭২০ কেজি ভিজিডির চাল উত্তোলন করে আত্মসাৎ করেছেন। ভিজিডি কর্মসূচির আওতায় উপকারভোগী মহিলা নির্বাচনের তালিকার চুড়ান্ত ছকে আকলিমা বেগমের ক্রমিক নং – ৯৬৬ বলেও অভিযোগ পত্রে উল্লেখ করা হয়েছে।

অভিযোগকারী লাল মিয়া বলেন, আকলিমা বেগম একজন দুর্নীতিবাজ মহিলা। অত্যন্ত লোভী এই মহিলা নিজের স্বার্থ হাসিলের জন্য গরীব অসহায় মানুষের সহায়তায় জন্য প্রদত্ত ভিজিডির কার্ডের তালিকায় নিজের নামসহ নিকটাত্মীয়দের নাম দিয়ে গরীবের হক ৭২০ কেজি চাল আত্মসাৎ করেছেন। এই মহিলার দুর্নীতির কারণে আমার ওয়ার্ডসহ তিন ওয়ার্ডের প্রকৃত গরীব অসহায় মানুষ ভিজিডির সুবিধা থেকে বঞ্চিত। আমি তার দুর্নীতির বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মহোদয়ের নিকট লিখিত অভিযোগ করেছি। অভিযোগের অণুলিপি জেলা প্রশাসক মহোদয়, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মহোদয়ের নিকটও জমা দিব। আমি আশা করি অনতিবিলম্বে তাঁরা তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবেন।

এব্যপারে আকলিমা বেগমের সাথে মোবাইলে কথা হলে তিনি বলেন, আমি অসুস্থ্য এক আত্মীয়ের বাড়ীতে আছি। আমার লোক আছে সেই আপনার সাথে পরবর্তীতে যোগাযোগ করবে বলেই তিনি কলটি কেটে দেন।

অভিযোগের বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুমন দাস বলেন, চাল আত্মসাতের ঘটনার তদন্ত সাপক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।


এই বিভাগের আরো সংবাদ