ঢাকা ০১:৫৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বরুড়ায় গুণীজন ও মুক্তিযোদ্ধা সন্মাননা দিলেন সাহস

মোঃ ইলিয়াছ আহমদ, বরুড়াঃ কুমিল্লার বরুড়া উপজেলায় সিংগুর গ্রামে প্রতিষ্ঠিত সাহস স্কুল আঙিনায় অনুষ্ঠিত হয় মহান বিজয় দিবস উদযাপন, মুক্তিযোদ্ধা ও গুণীজন সম্মাননা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার এ উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা-৮ বরুড়ার সাংসদ নাছিমুল আলম চৌধুরী (নজরুল), এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সরকারের সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগের যুগ্ম সচিব, মনীন্দ্র কিশোর মজুমদার, বরুড়া পৌরসভা মেয়র মোঃ বকতার হোসেন (বখতিয়ার), বরুড়া উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ তরিকুল ইসলাম, বরুড়া উপজেলা সমাজসেবা অফিসার কামরুল হাসান রনি, কুমিল্লা জেলা সরকারি গণগ্রন্থাগারের সহকারি লাইব্রেরিয়ান মোঃ নাফিস সাদিক শিশির, বরুড়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইকবাল বাহার মজুমদার প্রমুখ।

স্বাবলম্বী হবো সবাই (সাহস)-এর প্রতিষ্ঠাতা নাজমুল হুদা রতনের সভাপতিত্বে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত ও গীতা পাঠের মধ্য দিয়ে শুরু হয় মূল অনুষ্ঠান। এরপর সমবেতকণ্ঠে জাতীয় সঙ্গীত ও শহিদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে একমিনিট নিরবতা পালন করা হয়। অনুষ্ঠানে বীর মুক্তিযোদ্ধা শ্রী অবিনাশ চন্দ্র ভাওয়াল, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ হাবিবুল্লাহ মীর, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আব্দুর রশিদ, নাছিমুল আলম চৌধুরী (নজরুল), এমপি, ও মনীন্দ্র কিশোর মজুমদারকে সাহস স্মারক সম্মাননা প্রদান করা হয়। সাহস লাইব্রেরি আয়োজিত বইপাঠ প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন কুমিল্লা জেলা সরকারি গণগ্রন্থাগারের সহকারি লাইব্রেরিয়ান মোঃ নাফিস সাদিক শিশির।
শুভেচ্ছা বক্তব্যে সাহস-এর উদ্যোক্তা নাজমুল হুদা রতন বলেন, দীর্ঘ ১৬ বছর গ্রামীণ সমাজে আধুনিক ও সময়োপযোগি শিক্ষার প্রসার ও সামাজিক উন্নয়নে সাহস সাধ্যমতো কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। সাহস একটি স্বপ্নের নাম যা বাস্তবায়িত হচ্ছে সকলের সম্পৃক্ততায়। তিনি অতিথি সহ উপস্থিত সকলকে সাহসের পাশে থাকার আহবান জানান।
প্রধান অতিথি বলেন, সাহস সত্যিকার অর্থেই সাহসী ও দূরর্দশী একটি উদ্যোগ নিয়েছে যা পিছিয়ে পরা গ্রামে শিক্ষার আলো ছড়াচ্ছে। আধুনিক শিক্ষার আলোয় আলোকিত হয়ে কুসংস্কমুক্ত হোক আমাদের গ্রামীণ সমাজ ব্যবস্থা। তিনি মায়েদের উদ্যেশ্যে বলেন, শিশুদের পরিচর্যায় মায়ের ভূমিকা অনন্য। তিনি সাহসের যাত্রাপথের সাথে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।
অতিথিবৃন্দ তাদের বক্তব্যে বলেন, সাহস একটি আত্ম প্রত্যয়ের নাম। সাহস স্কুল বরুড়া উপজেলার অন্যতম ও আধুনিক মানের একটি শিক্ষাঙ্গন। তারা পাশে থেকে শিক্ষা ও সমাজ উন্নয়নে সাহসের কার্যক্রম পরিচালনার ক্ষেত্রে সহোযোগিতার আশ্বাস দেন।
অনুষ্ঠানে আরোও বক্তব্য রাখেন সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগের যুগ্ম সচিব, মনীন্দ্র কিশোর মজুমদার, বরুড়া পৌরসভা মেয়র মোঃ বকতার হোসেন (বখতিয়ার), বরুড়া উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ তরিকুল ইসলাম, সাহস ইনটেলেক্ট ডেভেলপমেন্ট স্কুলের সহকারী প্রধান শিক্ষক শামীমা ইয়াছিন, সড়ক ও জনপথ বিভাগের এক্সিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার সুনীতি চাকমা, জেলা সরকারি গণগ্রন্থাগারের সহকারি লাইব্রেরিয়ান মোঃ নাফিস সাদিক শিশির প্রমুখ।
এরপর সাহস স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের পরিবেশনায় ছড়া কবিতা পাঠ, গান, নৃত্য ও শিল্পী মানিক রহমানের গানের মধ্য দিয়ে শেষ হয় এঅনুষ্ঠান। এদিন, দুপুর থেকেই সাহস স্কুলের শিশু শিক্ষার্থীদের উল্লাস আর আনন্দে ভরপুর ছিলো সাহস আঙ্গিনা। অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় ছিলেন সাহস স্কুলের শিক্ষক সুমিত্রা রানী এবং সাহস-এর প্রধান সমন্বয়কারী সবুর বাদশা।

আপলোডকারীর তথ্য

বরুড়ায় গুণীজন ও মুক্তিযোদ্ধা সন্মাননা দিলেন সাহস

আপডেট সময় ১২:০৬:১৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০২২

মোঃ ইলিয়াছ আহমদ, বরুড়াঃ কুমিল্লার বরুড়া উপজেলায় সিংগুর গ্রামে প্রতিষ্ঠিত সাহস স্কুল আঙিনায় অনুষ্ঠিত হয় মহান বিজয় দিবস উদযাপন, মুক্তিযোদ্ধা ও গুণীজন সম্মাননা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার এ উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা-৮ বরুড়ার সাংসদ নাছিমুল আলম চৌধুরী (নজরুল), এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সরকারের সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগের যুগ্ম সচিব, মনীন্দ্র কিশোর মজুমদার, বরুড়া পৌরসভা মেয়র মোঃ বকতার হোসেন (বখতিয়ার), বরুড়া উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ তরিকুল ইসলাম, বরুড়া উপজেলা সমাজসেবা অফিসার কামরুল হাসান রনি, কুমিল্লা জেলা সরকারি গণগ্রন্থাগারের সহকারি লাইব্রেরিয়ান মোঃ নাফিস সাদিক শিশির, বরুড়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইকবাল বাহার মজুমদার প্রমুখ।

স্বাবলম্বী হবো সবাই (সাহস)-এর প্রতিষ্ঠাতা নাজমুল হুদা রতনের সভাপতিত্বে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত ও গীতা পাঠের মধ্য দিয়ে শুরু হয় মূল অনুষ্ঠান। এরপর সমবেতকণ্ঠে জাতীয় সঙ্গীত ও শহিদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে একমিনিট নিরবতা পালন করা হয়। অনুষ্ঠানে বীর মুক্তিযোদ্ধা শ্রী অবিনাশ চন্দ্র ভাওয়াল, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ হাবিবুল্লাহ মীর, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আব্দুর রশিদ, নাছিমুল আলম চৌধুরী (নজরুল), এমপি, ও মনীন্দ্র কিশোর মজুমদারকে সাহস স্মারক সম্মাননা প্রদান করা হয়। সাহস লাইব্রেরি আয়োজিত বইপাঠ প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন কুমিল্লা জেলা সরকারি গণগ্রন্থাগারের সহকারি লাইব্রেরিয়ান মোঃ নাফিস সাদিক শিশির।
শুভেচ্ছা বক্তব্যে সাহস-এর উদ্যোক্তা নাজমুল হুদা রতন বলেন, দীর্ঘ ১৬ বছর গ্রামীণ সমাজে আধুনিক ও সময়োপযোগি শিক্ষার প্রসার ও সামাজিক উন্নয়নে সাহস সাধ্যমতো কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। সাহস একটি স্বপ্নের নাম যা বাস্তবায়িত হচ্ছে সকলের সম্পৃক্ততায়। তিনি অতিথি সহ উপস্থিত সকলকে সাহসের পাশে থাকার আহবান জানান।
প্রধান অতিথি বলেন, সাহস সত্যিকার অর্থেই সাহসী ও দূরর্দশী একটি উদ্যোগ নিয়েছে যা পিছিয়ে পরা গ্রামে শিক্ষার আলো ছড়াচ্ছে। আধুনিক শিক্ষার আলোয় আলোকিত হয়ে কুসংস্কমুক্ত হোক আমাদের গ্রামীণ সমাজ ব্যবস্থা। তিনি মায়েদের উদ্যেশ্যে বলেন, শিশুদের পরিচর্যায় মায়ের ভূমিকা অনন্য। তিনি সাহসের যাত্রাপথের সাথে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।
অতিথিবৃন্দ তাদের বক্তব্যে বলেন, সাহস একটি আত্ম প্রত্যয়ের নাম। সাহস স্কুল বরুড়া উপজেলার অন্যতম ও আধুনিক মানের একটি শিক্ষাঙ্গন। তারা পাশে থেকে শিক্ষা ও সমাজ উন্নয়নে সাহসের কার্যক্রম পরিচালনার ক্ষেত্রে সহোযোগিতার আশ্বাস দেন।
অনুষ্ঠানে আরোও বক্তব্য রাখেন সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগের যুগ্ম সচিব, মনীন্দ্র কিশোর মজুমদার, বরুড়া পৌরসভা মেয়র মোঃ বকতার হোসেন (বখতিয়ার), বরুড়া উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ তরিকুল ইসলাম, সাহস ইনটেলেক্ট ডেভেলপমেন্ট স্কুলের সহকারী প্রধান শিক্ষক শামীমা ইয়াছিন, সড়ক ও জনপথ বিভাগের এক্সিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার সুনীতি চাকমা, জেলা সরকারি গণগ্রন্থাগারের সহকারি লাইব্রেরিয়ান মোঃ নাফিস সাদিক শিশির প্রমুখ।
এরপর সাহস স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের পরিবেশনায় ছড়া কবিতা পাঠ, গান, নৃত্য ও শিল্পী মানিক রহমানের গানের মধ্য দিয়ে শেষ হয় এঅনুষ্ঠান। এদিন, দুপুর থেকেই সাহস স্কুলের শিশু শিক্ষার্থীদের উল্লাস আর আনন্দে ভরপুর ছিলো সাহস আঙ্গিনা। অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় ছিলেন সাহস স্কুলের শিক্ষক সুমিত্রা রানী এবং সাহস-এর প্রধান সমন্বয়কারী সবুর বাদশা।