বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈনিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ ।

বরুড়ায় কিশোর কিশোরী ক্লাবের সৃজনশীল ও সামাজিক উন্নয়নে ভূমিকা (ভিডিও)

Muktir Lorai / ৫১ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় শনিবার, ২৩ এপ্রিল, ২০২২

স্টাফ রিপোর্টারঃ কুমিল্লার বরুড়ায় কিশোর কিশোরী ক্লাব সৃজনশীল ও সাংস্কৃতিক কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে ব্যক্তিগত ও সামাজিক উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে।

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় আওতাধীন মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর কর্তৃক বাস্তাবায়নধীনের মাধ্যমে প্রতিটি জেলা, উপজেলার প্রত্যকটি পৌরসভা ও ইউনিয়নের সরকারী কিশোর-কিশোরী ক্লাব খুলে দিল সরকার। গত ৩ ডিসেম্বর, ২০২০ দেশের সব ক্লাব চালু করেছে সরকার। এগিয়ে যাচ্ছে কিশোর-কিশোরী ক্লাব।

প্রকল্পের আওতায় মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর সকল জেলায় ২ জন করে ক্লাবের জেলা ফিল্ড সুপারভাইজারদের পরিদর্শন ও তদারকির জন্য দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। সারা বাংলাদেশে এই পর্যন্ত সরকার ৪,৮৮৩ টি কিশোর- কিশোরী ক্লাব সরকারিভাবে চালু করেছে। অন্যন্য জেলার মত বরুড়া উপজেলায় ১৫টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় বিভিন্ন স্কুলে ১৬টি কিশোর-কিশোরী ক্লাব স্থাপন প্রকল্প চালু করা হয়।

উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে ১ টি করে সরকারি কিশোর-কিশোরী ক্লাব আছে।
সেই সাথে প্রতিটি ইউনিয়নের/উপজেলার কাছাকাছি হাই স্কুল ও প্রাইমারী স্কুল থেকে ১০ জন কিশোর ও ২০ জন কিশোরী নিয়ে কিশোর-কিশোরী ক্লাব প্রতিষ্ঠা করা হয়। ক্লাবের সকল সদস্য ৫ম শ্রেণী থেকে ৯বম/১০ম ক্লাসের ছাত্র-ছাত্রী।

দেশের সকল জেলার সকল উপজেলার সরকারি ক্লাব গুলার উপদেষ্টা হিসাবে আছেন স্থানীয় মাননীয় সংসদ সদস্যগণ। উপজেলা ক্লাবের সভাপতি হিসাবে আছেন প্রতি উপজেলার ইউএনও মহোদয় এবং নিয়োগ কমিটির সদস্য আছেন প্রতিটি জেলার ফিল্ড সুপারভাইজার। সরকারি নিয়ম নীতিমালা মেনে পরীক্ষা ও ভাইবার মাধ্যমে ১ জন করে জেন্ডার-প্রোমোটার এবং প্রত্যেকটি ক্লাবের জন্য একজন করে সংগীত শিক্ষক ও একজন করে আবৃতি শিক্ষক চূড়ান্ত নিয়োগ পান।

বরুড়া উপজেলায় বিভিন্ন ব্লকে ১জন করে মোট ৪জন জেন্ডার-প্রোমোটার প্রতিটি ক্লাবে মাসে ২বার কিশোর-কিশোরীদের জেন্ডার ও সমতা ভিত্তিক সমাজ গঠন সম্পর্কে ক্লাবে ক্লাস নেন।

কিশোর অপরাধ থেকে কিভাবে নিজেকে রক্ষা করবে এবং দেশকে সুন্দর ভাবে গড়ে তুলতে হবে সে সম্পর্কে আলোচনা করেন। এছাড়াও ক্লাব ভিত্তিক বাল্যবিয়ের বিরদ্ধে সমাজের মানুষের মাঝে জনসচেতন সৃষ্টি করছে কিশোর কিশোরী ক্লাব। বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে এগিয়ে, সরকারের ২০৪১ সালের ভিশন বাস্তবায়নে, বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে এগিয়ে আছে এই কিশোর কিশোরী ক্লাব। শুধু তাই নয়, সমাজ ও রাষ্ট্রের উন্নয়নমূলক কাজে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে সে বিষয়ে আলোচনা করা হয় দেশের প্রতিটি ক্লাবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিজস্ব অগ্রাধিকার প্রকল্প এই কিশোর কিশোরী ক্লাব।

সরাসরি মানণীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই প্রকল্পের দায়িত্ব নিয়েছে। সমাজের ভালো-মন্দ দিকসহ যাবতীয় বিষয় সম্পর্কে আলোচনা করা হয় এই ক্লাবে। ছেলে-মেয়েদের মানসিক আনন্দের জন্য সংগীত শিক্ষক আর কবিতা শিক্ষার জন্য আবৃতি শিক্ষক কবিতা আবৃত্তি করেন এবং কিশোর-কিশোরীদের সংগীত শিখান।

মাঝ খানে করোনা-ভাইরাসে জন্য কিশোর-কিশোরীদের কথা চিন্তা করে তারা যেন করোনায় আক্রান্ত না হয় সেজন্য মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় এবং মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর ক্লাব বন্ধ করে দেয়।

করোনা প্রাদুর্ভাব কাটিয়ে বর্তমানে পুনরায় ক্লাব গুলো চালু রয়েছে। বরুড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার ভারপ্রাপ্ত মীর রাশেদুজ্জামান রাশেদ মহোদয় ও উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা আফরোজা বেগমের সমন্বিত উদ্যোগ ও পরামর্শ অনুযায়ী কিশোর কিশোরী ক্লাব এলাকার বাল্য বিবাহ বন্ধ, ইভটিজিং রোধ, মাদকাসক্ত নিরাময় ও শিশু শ্রমসহ বিভিন্ন সামাজিক সমস্যা বন্ধ করে এলাকায় প্রসংশা অর্জন করছে ইতিমধ্যে। সামাজিক উন্নয়নের পাশাপাশি খেলাধুলাসহ শিশু ও কিশোর কিশোরীদের ব্যক্তিগত ও সামাজিক উন্নয়নের জন্য কাজ করছে এ ক্লাব।

সমাজের বিভিন্ন স্তরের প্রান্তিক কিশোর কিশোরীদের জেন্ডার বেইজড ভায়োলেন্স প্রতিরোধে সক্ষম করা এবং Sexual & Reproductive Health and Right (SRHR) বিষয়ে সচেনতা বৃদ্ধিমূলক বিভিন্ন প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তাদের অবস্থারকে দৃঢ় করা।
কিশোর-কিশোরী ক্লাবের মাধ্যমে বিভিন্ন সৃজনশীল ও সাংস্কৃতিক কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে কিশোর-কিশোরীদের সম্পর্ককে সুদৃঢ় করার মাধ্যমে সমাজে ইতিবাচক পরিবর্তন আনায়ন করা।


এই বিভাগের আরো সংবাদ
Translate »
Translate »