• শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১, ০৮:১৬ পূর্বাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈনিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ ।

বর ও কনের পিতাকে অর্থদন্ড: বাল্যবিয়ে বন্ধ করলেন শরণখোলার ইউএনও

news / ৪৩ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় সোমবার, ১৯ জুলাই, ২০২১

সাব্বির হোসেন শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধিঃ বাল্যবিয়ে বন্ধে অভিযান চলবে নবাগত ইউএনও খাতুনে জান্নাত।

বাগেরহাট জেলার শরণখোলা উপজেলায় বাল্যবিবাহ বন্ধের বিরুদ্ধে সোচ্চার রয়েছেন নবাগত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) খাতুনে জান্নাত। এ উপজেলায় যোগদানের পরের দিন থেকেই তার এ অভিযান শুরু হয়।
সোমবার (১৯ জুলাই) দুপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে বন্ধ হয়ে যায়। বর ও কনের পিতাকে অর্থদন্ড দেয়া হয়েছে। পালিয়ে গেছে কাজী।

শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী অফিস সূত্রে জানা যায়, সোমবার ১৯ জুলাই দুপুরে উপজেলার গোলবুনিয়া গ্রামের সেলিম গাজীর কিশোরী কন্যা দোলন (১৫)এর বিয়ের আয়োজন করা হয়েছিলো।

গোপন সূত্রে খবর পেয়ে শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট খাতুনে জান্নাতের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত গোলবুনিয়া গ্রামের ওই বাড়িতে অভিযান চালায়।

এ সময় কৌশলে কাজী পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। পরে নির্বাহী মেজিষ্ট্রেট আদালত বসিয়ে শরণখোলা উপজেলার বকুলতলা গ্রামের আ. গণি গাজীর পুত্র (বর) আনোয়ার হোসেনকে তিন হাজার টাকা অর্থদন্ড এবং কনের পিতা সেলিম গাজীকে দুই হাজার টাকা অর্থদন্ড দেন। এ ছাড়া ১৮ বছর না হওয়া পর্যন্ত কণ্যার বিয়ে দেবে না মর্মে কন্যার পিতার কাছ থেকে মুচলেকা নেয়া হয়।

শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার খাতুনে জান্নাত বলেন, শরণখোলা উপজেলায় বাল্য বিয়ে বন্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান অব্যাহত থাকবে।


এই বিভাগের আরো সংবাদ