ঢাকা ০২:৪৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাঙালি সংস্কৃতিকে বাঁচিয়ে রাখতে হবে – স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

xr:d:DAGCJ1WEKAU:25,j:1175864349776267825,t:24041413

মাসুদ পারভেজ রনি লাকসাম (কুমিল্লা)

বাঙালি সংস্কৃতিকে বাঁচিয়ে রাখতে হবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম।

তিনি রোববার কুমিল্লার লাকসামে বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় এ কথ বলেন।

কুমিল্লার লাকসামে সকল সম্প্রদায়ের অংশগ্রহণে সম্প্রীতির মঙ্গল শোভাযাত্রাসহ নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে শুভ নববর্ষ (পহেলা বৈশাখ) উদযাপিত হয়েছে।

রোববার (১৪ এপ্রিল) সকাল ১০ টায় উপজেলা প্রশাসন ও লাকসাম শিল্পকলা একাডেমির উদ্যোগে লাকসাম সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে বাংলা নববর্ষ ১৪৩১ বরণে এক বর্ণাঢ্য সম্প্রীতির মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করা হয়।

মঙ্গল শোভাযাত্রা শেষে শিক্ষক, শিক্ষার্থী সহ উপস্থিত সকলকে নিয়ে বাংলার ঐতিহ্যবাহী খাবার পান্তা ভাত ভোজের আয়োজন করা হয়। শোভাযাত্রা শেষে বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে নববর্ষ মেলার উদ্বোধন করেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম।

পরে লাকসাম বঙ্গবন্ধু পৌর অডিটোরিয়ামে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, প্রতিবারই একটা গোষ্ঠী মঙ্গল শোভাযাত্রা নিয়ে সারা বছর অপপ্রচার চালায়। কিন্তু মানুষ ওই একদিন এসে উৎসবে মেতে সকল অপপ্রচারের জবাব দেয়।
তিনি আরো বলেন, যারা ১৪০০ বঙ্গাব্দে আওয়ামী লীগের মঙ্গল শোভাযাত্রা পণ্ড করে দিয়েছিল সেই অপশক্তি আজও বাংলার মাটিতে। এই অপশক্তি এদেশে জঙ্গিবাদের পৃষ্ঠপোষক। এরা বাঙালি সংস্কৃতিকে সহ্য করতে পারে না। বাংলাদেশকে বাঁচিয়ে রাখতে হলে বাঙালি সংস্কৃতিকে বাঁচিয়ে রাখতে হবে। আমাদের ইতিহাস-ঐতিহ্যকে চেতনায় ধারণ করে বাঁচিয়ে রাখতে হবে। যারা সাম্প্রদায়িক, জঙ্গিবাদের পৃষ্ঠপোষক সেই গোষ্ঠী হচ্ছে বাঙালি সংস্কৃতি, বাংলাদেশ রাষ্ট্রের চেতনা ও মুক্তিযুদ্ধের প্রতিপক্ষ শত্রু। আসুন, এই শত্রুকে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ও বাঙালির ঐতিহাসিক চেতনায় এই অপশক্তিকে প্রতিহত করি, পরাজিত করি এবং বিজয়ের লক্ষ্য অভিমুখে এগিয়ে যাই।

অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুল হাই সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এড ইউনুস ভূঁইয়া, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মহব্বত আলী, পৌর মেয়র অধ্যাপক মোঃ আবুল খায়ের, পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি তাবারক উল্লাহ কায়েস, সাধারণ সম্পাদক এড রফিকুল ইসলাম হিরা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পড়শী সাহাসহ পৌর কাউন্সিলর, ইউপি চেয়ারম্যান, যুবলীগ, ছাত্রলীগ প্রমুখ।

আপলোডকারীর তথ্য

বাঙালি সংস্কৃতিকে বাঁচিয়ে রাখতে হবে – স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

আপডেট সময় ০৮:০৪:৩৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪

মাসুদ পারভেজ রনি লাকসাম (কুমিল্লা)

বাঙালি সংস্কৃতিকে বাঁচিয়ে রাখতে হবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম।

তিনি রোববার কুমিল্লার লাকসামে বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় এ কথ বলেন।

কুমিল্লার লাকসামে সকল সম্প্রদায়ের অংশগ্রহণে সম্প্রীতির মঙ্গল শোভাযাত্রাসহ নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে শুভ নববর্ষ (পহেলা বৈশাখ) উদযাপিত হয়েছে।

রোববার (১৪ এপ্রিল) সকাল ১০ টায় উপজেলা প্রশাসন ও লাকসাম শিল্পকলা একাডেমির উদ্যোগে লাকসাম সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে বাংলা নববর্ষ ১৪৩১ বরণে এক বর্ণাঢ্য সম্প্রীতির মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করা হয়।

মঙ্গল শোভাযাত্রা শেষে শিক্ষক, শিক্ষার্থী সহ উপস্থিত সকলকে নিয়ে বাংলার ঐতিহ্যবাহী খাবার পান্তা ভাত ভোজের আয়োজন করা হয়। শোভাযাত্রা শেষে বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে নববর্ষ মেলার উদ্বোধন করেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম।

পরে লাকসাম বঙ্গবন্ধু পৌর অডিটোরিয়ামে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, প্রতিবারই একটা গোষ্ঠী মঙ্গল শোভাযাত্রা নিয়ে সারা বছর অপপ্রচার চালায়। কিন্তু মানুষ ওই একদিন এসে উৎসবে মেতে সকল অপপ্রচারের জবাব দেয়।
তিনি আরো বলেন, যারা ১৪০০ বঙ্গাব্দে আওয়ামী লীগের মঙ্গল শোভাযাত্রা পণ্ড করে দিয়েছিল সেই অপশক্তি আজও বাংলার মাটিতে। এই অপশক্তি এদেশে জঙ্গিবাদের পৃষ্ঠপোষক। এরা বাঙালি সংস্কৃতিকে সহ্য করতে পারে না। বাংলাদেশকে বাঁচিয়ে রাখতে হলে বাঙালি সংস্কৃতিকে বাঁচিয়ে রাখতে হবে। আমাদের ইতিহাস-ঐতিহ্যকে চেতনায় ধারণ করে বাঁচিয়ে রাখতে হবে। যারা সাম্প্রদায়িক, জঙ্গিবাদের পৃষ্ঠপোষক সেই গোষ্ঠী হচ্ছে বাঙালি সংস্কৃতি, বাংলাদেশ রাষ্ট্রের চেতনা ও মুক্তিযুদ্ধের প্রতিপক্ষ শত্রু। আসুন, এই শত্রুকে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ও বাঙালির ঐতিহাসিক চেতনায় এই অপশক্তিকে প্রতিহত করি, পরাজিত করি এবং বিজয়ের লক্ষ্য অভিমুখে এগিয়ে যাই।

অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুল হাই সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এড ইউনুস ভূঁইয়া, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মহব্বত আলী, পৌর মেয়র অধ্যাপক মোঃ আবুল খায়ের, পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি তাবারক উল্লাহ কায়েস, সাধারণ সম্পাদক এড রফিকুল ইসলাম হিরা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পড়শী সাহাসহ পৌর কাউন্সিলর, ইউপি চেয়ারম্যান, যুবলীগ, ছাত্রলীগ প্রমুখ।