ঢাকা ১২:৫১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
Logo সাংবাদিকতা নিয়ে পুলিশ সার্ভিস এসোসিয়েশনের বিবৃতি ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান Logo রূপসায় ৮ দলীয় ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত Logo আমতলীতে বৌ-ভাতের অনুষ্ঠানে আসার পথে ব্রীজ ভেঙ্গে ৯জন নিহত Logo বরুড়ায় আ.লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত Logo চাঁপাই নবাবগঞ্জে ১৫০ গ্রাম হেরোইন উদ্ধার সহ দুইজন গ্রেফতার Logo সাংবাদিকের উপর হামলার প্রতিবাদে কালীগঞ্জে মানববন্ধন Logo গলাচিপায় বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট উদ্বোধন Logo তোমাকে যে ধরতে আমি চাই Logo নওগাঁ থেকে বিপুল পরিমান গাঁজাসহ তিন মাদক কারবারি গ্রেফতার Logo মুরাদনগরে রোহিঙ্গাকে জন্ম নিবন্ধন করে দেওয়ায় ইউপি সচিব গ্রেফতার

বিশ্বের শান্তি ও উন্নয়নের চীনের সঙ্গে কাজ করতে আগ্রহী: রেড ক্রস প্রেসিডেন্ট

  • আন্তর্জাতিক:
  • আপডেট সময় ১১:০০:৪৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৯ জুন ২০২৪
  • ১৫ বার পড়া হয়েছে

বর্তমান গাজা পরিস্থিতি অমানবিক; দ্রুত এ অবস্থার অবসান ঘটানো জরুরি। সম্প্রতি চায়না মিডিয়া গ্রুপ (সিএমজি)-র সিজিটিএন-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেন আন্তর্জাতিক রেড ক্রস কমিটির প্রেসিডেন্ট মিরিয়ানা স্পলজারিক এজর।

তিনি বলেন, ৬ জুন পর্যন্ত গাজায় নিহতের সংখ্যা ৩৬৬৫৪ জন এবং আহতের সংখ্যা ৮৩৩০৯ ছাড়িয়েছে। ইসরায়েলি সামরিক অভিযানে ব্যাপকভাবে স্থানীয় মানুষ হতাহত হয়েছেন এবং খাদ্যের অভাবেও অনেকে মারা গেছেন। গাজার চিকিৎসা ব্যবস্থা ধ্বংস হয়ে গেছে।

গত বছরের ডিসেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে তাঁর গাজা সফরের কথা স্মরণ করে মিরিয়ানা বলেন, সেখানকার দৃশ্য দেখে তিনি হতবাক ও দুঃখিত হয়েছে। সবচেয়ে অসহনীয় ছিল শিশুদের কষ্ট দেখা।

তিনি বলেন, রেড ক্রসের প্রথম দায়িত্ব ছিল স্থানীয়দের চিকিৎসা-সহায়তা দেওয়া এবং বাসিন্দাদের জন্য পানির সরবরাহ নিশ্চিত করা। গাজায় এখনও আটক জিম্মিদের মুক্ত করার ব্যাপারেও মনোযোগ দিতে হবে। এর জন্য সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোকে আলোচনার মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট চুক্তিতে উপনীত হতে তাগিদ দেয় রেড ক্রস।

তিনি বলেন, মানবিক সমস্যা সমাধানের সর্বোত্তম উপায় রাজনৈতিক পরামর্শ। সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোকে এ ক্ষেত্রে সদিচ্ছার পরিচয় দিতে হবে।

মিরিয়ানা বলেন, চীনা প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং গভীরভাবে মানবতাবাদকে বোঝেন। সি’র সংকল্প তাকে মুগ্ধ করে। তিনি আন্তর্জাতিক মানবিক কাজে চীনের গুরুত্বপূর্ণ অবদানের ভূয়সী প্রশংসাও করেন। বিশ্বের শান্তি ও উন্নয়নের স্বার্থে তিনি চীনের সঙ্গে ‘বেল্ট অ্যান্ড রোড’ উদ্যোগের আওতায় কাজ করতেও আগ্রহ প্রকাশ করেন।

তিনি আরও বলেন, মানবতাবাদ গভীরভাবে চীনের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিতে মিছে আছে।এর আগে, ২০২৩ সালের ৫ সেপ্টেম্বর মিরিয়ানা চীন সফর করেন এবং ৪৯তম নাইটিংগেল পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকেন। তখন সাত জন চীনা চিকিৎসক পুরস্কার লাভ করেছিলেন। অনুষ্ঠানে দেওয়া ভাষণে তিনি, বিভিন্ন দেশে চীনের চিকিৎসা-সহায়তা কাজের প্রশংসা করেন। ৪৯তম নাইটিংগেল পুরস্কার পাওয়ায় তিনি সংশ্লিষ্টদের অভিনন্দনও জানান। তাঁর সফরের পর রেড ক্রস আন্তর্জাতিক কমিটি চীনের সাথে বিভিন্ন সহযোগিতা-চুক্তি স্বাক্ষর করে।
সূত্র: ছাই ইউয়ে মুক্তা, চায়না মিডিয়া গ্রুপ।

জনপ্রিয় সংবাদ

সাংবাদিকতা নিয়ে পুলিশ সার্ভিস এসোসিয়েশনের বিবৃতি ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান

বিশ্বের শান্তি ও উন্নয়নের চীনের সঙ্গে কাজ করতে আগ্রহী: রেড ক্রস প্রেসিডেন্ট

আপডেট সময় ১১:০০:৪৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৯ জুন ২০২৪

বর্তমান গাজা পরিস্থিতি অমানবিক; দ্রুত এ অবস্থার অবসান ঘটানো জরুরি। সম্প্রতি চায়না মিডিয়া গ্রুপ (সিএমজি)-র সিজিটিএন-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেন আন্তর্জাতিক রেড ক্রস কমিটির প্রেসিডেন্ট মিরিয়ানা স্পলজারিক এজর।

তিনি বলেন, ৬ জুন পর্যন্ত গাজায় নিহতের সংখ্যা ৩৬৬৫৪ জন এবং আহতের সংখ্যা ৮৩৩০৯ ছাড়িয়েছে। ইসরায়েলি সামরিক অভিযানে ব্যাপকভাবে স্থানীয় মানুষ হতাহত হয়েছেন এবং খাদ্যের অভাবেও অনেকে মারা গেছেন। গাজার চিকিৎসা ব্যবস্থা ধ্বংস হয়ে গেছে।

গত বছরের ডিসেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে তাঁর গাজা সফরের কথা স্মরণ করে মিরিয়ানা বলেন, সেখানকার দৃশ্য দেখে তিনি হতবাক ও দুঃখিত হয়েছে। সবচেয়ে অসহনীয় ছিল শিশুদের কষ্ট দেখা।

তিনি বলেন, রেড ক্রসের প্রথম দায়িত্ব ছিল স্থানীয়দের চিকিৎসা-সহায়তা দেওয়া এবং বাসিন্দাদের জন্য পানির সরবরাহ নিশ্চিত করা। গাজায় এখনও আটক জিম্মিদের মুক্ত করার ব্যাপারেও মনোযোগ দিতে হবে। এর জন্য সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোকে আলোচনার মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট চুক্তিতে উপনীত হতে তাগিদ দেয় রেড ক্রস।

তিনি বলেন, মানবিক সমস্যা সমাধানের সর্বোত্তম উপায় রাজনৈতিক পরামর্শ। সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোকে এ ক্ষেত্রে সদিচ্ছার পরিচয় দিতে হবে।

মিরিয়ানা বলেন, চীনা প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং গভীরভাবে মানবতাবাদকে বোঝেন। সি’র সংকল্প তাকে মুগ্ধ করে। তিনি আন্তর্জাতিক মানবিক কাজে চীনের গুরুত্বপূর্ণ অবদানের ভূয়সী প্রশংসাও করেন। বিশ্বের শান্তি ও উন্নয়নের স্বার্থে তিনি চীনের সঙ্গে ‘বেল্ট অ্যান্ড রোড’ উদ্যোগের আওতায় কাজ করতেও আগ্রহ প্রকাশ করেন।

তিনি আরও বলেন, মানবতাবাদ গভীরভাবে চীনের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিতে মিছে আছে।এর আগে, ২০২৩ সালের ৫ সেপ্টেম্বর মিরিয়ানা চীন সফর করেন এবং ৪৯তম নাইটিংগেল পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকেন। তখন সাত জন চীনা চিকিৎসক পুরস্কার লাভ করেছিলেন। অনুষ্ঠানে দেওয়া ভাষণে তিনি, বিভিন্ন দেশে চীনের চিকিৎসা-সহায়তা কাজের প্রশংসা করেন। ৪৯তম নাইটিংগেল পুরস্কার পাওয়ায় তিনি সংশ্লিষ্টদের অভিনন্দনও জানান। তাঁর সফরের পর রেড ক্রস আন্তর্জাতিক কমিটি চীনের সাথে বিভিন্ন সহযোগিতা-চুক্তি স্বাক্ষর করে।
সূত্র: ছাই ইউয়ে মুক্তা, চায়না মিডিয়া গ্রুপ।