ঢাকা ০৫:৩৩ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বেইলি রোডের অগ্নিকান্ড, মেয়েদের জন্য খাবার আনতে গিয়ে প্রাণ হারাল মুরাদনগরের পম্পা

মাহফুজুর রহমান, মুরাদনগর (কুমিল্লা)

ঢাকার বেইলি রোডের রেস্টুরেন্ট কাচ্চি ভাই থেকে দুই মেয়ের জন্য রাতের খাবার আনতে গিয়ে অগ্নিকা-ে মৃত্যু হয়েছে মুরাদনগরের পম্পা সাহার (৪৭)। তিনি মুরাদনগর উপজেলার নবীপুর পশ্চিম ইউনিয়নের নবীপুর গ্রামের জয়ন্ত পোদ্দারের স্ত্রী। তারা ঢাকায় বসবাস করতেন। নিহতের স্বামী জয়ন্ত পোদ্দারের ছোট ভাই রানা পোদ্দার মুঠো ফোনে বলেন, পম্পা সাহার ৩মেয়ের মধ্যে বড় মেয়ে কানাডায় থাকে। বাসায় থাকা দুই মেয়ের জন্য বেইলি রোডের ‘কাচ্চি ভাই’ রেস্টেুরেন্ট থেকে রাতের খাবার আনতে গিয়ে আগুনে পুড়ে মারা গেছেন। মায়ের মৃত্যুর খবর এখনো দুই মেয়েকে বলা হয়নি। তাদেরকে বলছি তোমাদের মা আইসিওতে আছে। বড় বোন শনিবার দেশে আসলে এক সাথে দেখতে যেও। তিনি বলেন, শনিবার (২ মার্চ) বড় মেয়ে কানাডা থেকে দেশে এলে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে ঢাকায় নাকি গ্রামের বাড়ি মুরাদনগরে লাশ দাহ হবে।

তিনি আরও বলেন, ‘ মেয়ে দুটিকে তাদের মায়ের মৃত্যুর খবর দেয়া না হলেও তারা কেউ পানিটা পর্যন্ত মুখে তুলছেন না। ডানা কাটা পাখির মতো ছটফট করছে মাকে দেখতে যেতে। আবার ক্ষণে ক্ষণে বাবাকে শান্ত¡না দিচ্ছেন এই বলে, ‘ দেখ বাবা মা সুস্থ্য হয়ে ঠিকই বাসায় চলে আসবে।’

বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) রাত ১০টার দিকে বেইলি রোডের ভবনটিতে আগুন লাগে। আগুন নেভানোর পর হতাহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে নেওয়া হয়। চিকিৎসা নেয়ার আগেই মারা যায় মুরাদনগরের পম্পা সাহা।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

বেইলি রোডের অগ্নিকান্ড, মেয়েদের জন্য খাবার আনতে গিয়ে প্রাণ হারাল মুরাদনগরের পম্পা

আপডেট সময় ০৬:৫৮:৩২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১ মার্চ ২০২৪

মাহফুজুর রহমান, মুরাদনগর (কুমিল্লা)

ঢাকার বেইলি রোডের রেস্টুরেন্ট কাচ্চি ভাই থেকে দুই মেয়ের জন্য রাতের খাবার আনতে গিয়ে অগ্নিকা-ে মৃত্যু হয়েছে মুরাদনগরের পম্পা সাহার (৪৭)। তিনি মুরাদনগর উপজেলার নবীপুর পশ্চিম ইউনিয়নের নবীপুর গ্রামের জয়ন্ত পোদ্দারের স্ত্রী। তারা ঢাকায় বসবাস করতেন। নিহতের স্বামী জয়ন্ত পোদ্দারের ছোট ভাই রানা পোদ্দার মুঠো ফোনে বলেন, পম্পা সাহার ৩মেয়ের মধ্যে বড় মেয়ে কানাডায় থাকে। বাসায় থাকা দুই মেয়ের জন্য বেইলি রোডের ‘কাচ্চি ভাই’ রেস্টেুরেন্ট থেকে রাতের খাবার আনতে গিয়ে আগুনে পুড়ে মারা গেছেন। মায়ের মৃত্যুর খবর এখনো দুই মেয়েকে বলা হয়নি। তাদেরকে বলছি তোমাদের মা আইসিওতে আছে। বড় বোন শনিবার দেশে আসলে এক সাথে দেখতে যেও। তিনি বলেন, শনিবার (২ মার্চ) বড় মেয়ে কানাডা থেকে দেশে এলে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে ঢাকায় নাকি গ্রামের বাড়ি মুরাদনগরে লাশ দাহ হবে।

তিনি আরও বলেন, ‘ মেয়ে দুটিকে তাদের মায়ের মৃত্যুর খবর দেয়া না হলেও তারা কেউ পানিটা পর্যন্ত মুখে তুলছেন না। ডানা কাটা পাখির মতো ছটফট করছে মাকে দেখতে যেতে। আবার ক্ষণে ক্ষণে বাবাকে শান্ত¡না দিচ্ছেন এই বলে, ‘ দেখ বাবা মা সুস্থ্য হয়ে ঠিকই বাসায় চলে আসবে।’

বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) রাত ১০টার দিকে বেইলি রোডের ভবনটিতে আগুন লাগে। আগুন নেভানোর পর হতাহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে নেওয়া হয়। চিকিৎসা নেয়ার আগেই মারা যায় মুরাদনগরের পম্পা সাহা।