• সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ১২:১৫ অপরাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
শিরোনাম
পাচার বাণিজ্যে মতানৈক্যের জেরে সীমান্তে অপহৃত নাবালক ৬ চিকিৎসক নিয়ে ধুঁকে ধুঁকে চলছে বরগুনা সরকারি হাসপাতাল সামাজিক দূরত্ব ভুলে রাসিক মেয়র লিটনের খাদ্য সামগ্রী বিতরন সলঙ্গায় ১০কেজি গাঁজাসহ মাদক ব‍্যবসায়ী আটক বরুড়ায় ১৫০ অক্সিজেন সিলিন্ডার দিলেন এসকিউ গ্রুপের শফিউদ্দিন শামীম বাবার মৃত্যুর একদিন পর মাকেও হারালেন সহকারী এটর্নি জেনারেল এড. ফারুক সাতক্ষীরা শহরের বাগানবাড়িতে ভূমিহীনদের পুর্নবাসনের দাবিতে উঠান বৈঠক আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে আনতে হবে: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মুরাদনগরে দিনব্যাপী ডিউটি অফিসারের ভূমিকায় এএসপি রূপগঞ্জে ওয়ারেন্টভুক্ত চার পলাতক আসামি গ্রেফতার
বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈনিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ ।

বেলকুচিতে যুবকের আত্মহত্যা

news / ২৬ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় রবিবার, ৪ জুলাই, ২০২১

মোঃ শাহাদত হোসেন, সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জের বেলকুচির রাজাপুর ইউনিয়নের হরিনাথপুর বটতলা গ্রামের আলী মোল্লার বড় ছেলে হারুন মোল্লা (৩৪) মা-বোনের নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে গলায় দড়ি পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছে!

শনিবার সকালে হারুন মোল্লা তার নিজ শয়ন কক্ষে মা-বোনের নির্যাতনের দড়ি গলায় পেঁচিয়ে ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করে।

এলাকাবাসী জানান, হারুনের মা ও তার বোনের প্রায় সময়ই হারুনের সাথে খারাপ ব্যবহার ও নির্যাতন করতো যা কোন ভাবেই সহ্য করতে পারতো না। হারুনের আয় রোজগারে তাদের সংসার চলতো। হারুন বোবা মানুষ হওয়ায় প্রায় সময় মা বোন বেশী নির্যাতন করত।

শুক্রবারেও হারুন বাজার থেকে তেল কম আনায় বাড়িতে ঝামেলা বাঁধে তখন হারুনকে রশি দিয়ে বেঁধে উঠানের মধ্যে ফেলে নির্যাতন করে মা ও বোন। তার জন্যই হয়তো আজ গলায় ফাঁসি নিয়ে মারা যায় হারুন। ছেলে হিসেবে গ্রামের মধ্যে অনেক ভালো ছিল।

হারুনের স্ত্রী বলেন, আমার শাশুড়ি ননদ প্রায় সময় আমার স্বামীকে মারধর করত। আজ যে এমন ঘটনা ঘটবে কে জানে। করোনার মধ্যে ইনকাম কম হওয়ায় গতকাল আমার স্বামী বাজার থেকে তেল একটু কম আনায় মা বোন তাকে উঠানের মধ্যে রশি বেঁধে মারধর করে তার পরেই আমার স্বামী বিভিন্ন ভাবে ফাঁসি নেওয়া চেষ্টা করত আজ সকালে আমি বাইরে গেলে শয়ন কক্ষে গলায় ফাঁসি দিয়ে ঝুলে থাকে। আমার স্বামীকে যারা মেরেছে আমি তাদের বিচার চাই, ফাসি চাই।

এ বিষয়ে বেলকুচি থানার ওসি (তদন্ত) নূরে আলম জানান, রাজাপুর ইউনিয়নে হরিনাথপুর গ্রামে হারুন নামের একজন তার শয়ন কক্ষে দড়ি পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। ঘটনা শোনার পরে আমরা লাশ উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ শেখ বঙ্গমাতা ফজিতুলান্নেছা হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছি। এ ব্যাপারে থানায় ইউডি মামলা হয়েছে।


এই বিভাগের আরো সংবাদ