ঢাকা ০৭:৫২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ব্রাহ্মণপাড়ার মহালক্ষ্মীপাড়া সরকারি খাল পুনঃরুদ্ধারের দাবী

ব্রাহ্মণপাড়া প্রতিনিধিঃ কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার বিভিন্ন সরকারি খাল বেদখলে চলে গেলেও স্বাভাবিক গতি ফেরাতে প্রশাসনের কোন উদ্যোগ নেই বলে অভিযোগ করেন সচেতন নাগরিকগণ। ক্রমাগত সরকারী রেকর্ডিও খালের খাসজমি ভরাট করে প্রভাবশালীদের দখলে চলে গেলেও সংশ্লিষ্টরা রয়েছে নির্বিকার।উপজেলার মহালক্ষ্মীপাড়া গ্রামের দক্ষিণ পাড়ার চৌধুরী বাড়ির দক্ষিণ পাশে মহালক্ষ্মীপাড়া থেকে দুলালপুর যাওয়ার রাস্তার পাশে শতবছরের সরকারি খালটি ভরাট ও প্রভাবশালীদের দখলে আছে। তাই খালটি পুনরুদ্ধারের জন্য ওই গ্রামের দেড় শাতাধিক কৃষক ও সচেতন মানুষ গণস্বাক্ষর করে প্রশাসনের নিকট একটি আবেদন পত্র জমা দেন। গ্রামবাসীদের পক্ষে উক্ত পত্রটি জমা দেন স্থানীয় বাসিন্দা রেয়াশত আলী চৌধুরী ছেলে মোহাম্মদ আহসান চৌধুরী হানিফ। উক্ত আবেদন পত্র সূত্র ধরে জানা যায়,খালটির দাং নং ২৭৫৭ ও ২৭৫৮।এক সময় এই খাল দিয়ে আশেপাশের গ্রামের পানি এই খালে প্রবহমান ছিলো এবং নৌ পথের একটি সচল যাতায়াত ব্যবস্তা ছিলো। কিন্তু বর্তমানে খালটি প্রভাবশালীদের দখলে যাওয়াতে মাটি ভরাট করার ফলে খাল প্রবাহ ও পানি চলাচল এবং নৌ চলাচল বন্ধ হয়ে আছে। ফলে এভাবেই কৃষি প্রধান এলাকার সেচ সুবিধার সহায়ক সরকারী রের্কড খালটি ভরাট ও বেদখল হয়ে অস্তিত্ব সংকটে পড়েছে।এভাবে পানি চলাচলের রেকর্ডিও খাল বেদখল ও ভরাট হয়ে অস্তিত্বের সংকটে পরায় ওই এলাকার কৃষি জমির চাষাবাদে পানির সংকট দেখা দিয়েছে। সেচ সুবিধা বাঁধাগ্রস্থ হওয়ায় প্রতি বছর ফসল হানীর ঝুঁকিতে পড়েছে কৃষিজীবিরা। এলাকাবাসীর প্রাণের দাবী প্রশাসনের নিকট এই খালটি খননের মাধ্যমে পুনঃরুদ্ধার করা হোক। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মূল মন্ত্র ভরাট খাল খনন করে পানি চলাচল প্রবাহিত করে কৃষি জমিগুলো কাজে লাগিয়ে আমাদের দেশকে খাদ্যে সয়ং সম্পূর্ণ করতে হবে।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

ব্রাহ্মণপাড়ার মহালক্ষ্মীপাড়া সরকারি খাল পুনঃরুদ্ধারের দাবী

আপডেট সময় ০৪:৩৮:৫৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২৩

ব্রাহ্মণপাড়া প্রতিনিধিঃ কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার বিভিন্ন সরকারি খাল বেদখলে চলে গেলেও স্বাভাবিক গতি ফেরাতে প্রশাসনের কোন উদ্যোগ নেই বলে অভিযোগ করেন সচেতন নাগরিকগণ। ক্রমাগত সরকারী রেকর্ডিও খালের খাসজমি ভরাট করে প্রভাবশালীদের দখলে চলে গেলেও সংশ্লিষ্টরা রয়েছে নির্বিকার।উপজেলার মহালক্ষ্মীপাড়া গ্রামের দক্ষিণ পাড়ার চৌধুরী বাড়ির দক্ষিণ পাশে মহালক্ষ্মীপাড়া থেকে দুলালপুর যাওয়ার রাস্তার পাশে শতবছরের সরকারি খালটি ভরাট ও প্রভাবশালীদের দখলে আছে। তাই খালটি পুনরুদ্ধারের জন্য ওই গ্রামের দেড় শাতাধিক কৃষক ও সচেতন মানুষ গণস্বাক্ষর করে প্রশাসনের নিকট একটি আবেদন পত্র জমা দেন। গ্রামবাসীদের পক্ষে উক্ত পত্রটি জমা দেন স্থানীয় বাসিন্দা রেয়াশত আলী চৌধুরী ছেলে মোহাম্মদ আহসান চৌধুরী হানিফ। উক্ত আবেদন পত্র সূত্র ধরে জানা যায়,খালটির দাং নং ২৭৫৭ ও ২৭৫৮।এক সময় এই খাল দিয়ে আশেপাশের গ্রামের পানি এই খালে প্রবহমান ছিলো এবং নৌ পথের একটি সচল যাতায়াত ব্যবস্তা ছিলো। কিন্তু বর্তমানে খালটি প্রভাবশালীদের দখলে যাওয়াতে মাটি ভরাট করার ফলে খাল প্রবাহ ও পানি চলাচল এবং নৌ চলাচল বন্ধ হয়ে আছে। ফলে এভাবেই কৃষি প্রধান এলাকার সেচ সুবিধার সহায়ক সরকারী রের্কড খালটি ভরাট ও বেদখল হয়ে অস্তিত্ব সংকটে পড়েছে।এভাবে পানি চলাচলের রেকর্ডিও খাল বেদখল ও ভরাট হয়ে অস্তিত্বের সংকটে পরায় ওই এলাকার কৃষি জমির চাষাবাদে পানির সংকট দেখা দিয়েছে। সেচ সুবিধা বাঁধাগ্রস্থ হওয়ায় প্রতি বছর ফসল হানীর ঝুঁকিতে পড়েছে কৃষিজীবিরা। এলাকাবাসীর প্রাণের দাবী প্রশাসনের নিকট এই খালটি খননের মাধ্যমে পুনঃরুদ্ধার করা হোক। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মূল মন্ত্র ভরাট খাল খনন করে পানি চলাচল প্রবাহিত করে কৃষি জমিগুলো কাজে লাগিয়ে আমাদের দেশকে খাদ্যে সয়ং সম্পূর্ণ করতে হবে।