ঢাকা ০৪:৫৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মিথ্যা মামলা দিয়ে প্রতারণা করায় বাদীর ১৫ দিনের কারাদণ্ড

সাইফুল্লাহ নাসির, আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধিঃ বরগুনার আমতলী উপজেলা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জমির মালিকানা না হওয়া সত্ত্বেও প্রতারণা করে টাকা নিয়ে জমি বিক্রি ও দলিল রেজিস্ট্রি করেছে মর্মে বাদী আব্দুর রশিদ একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেন।

আলালতে মামলাটি মিথ্যা প্রমাণিত হওয়ায় আদালতের বিজ্ঞ বিচারক বাদীকে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেছেন।

মামলা ও আদালত সূত্রে জানা গেছে, তালতলী উপজেলার ৪২নং বড় নিশান বাড়িয়া মৌজার এসএ ১৯৪, ১৯৫, ১৯৬নং খতিয়ানে ৩০টি দাগ উল্লেখ পূর্বক জমির মালিকানা না থাকা সত্ত্বেও প্রতারণা করে টাকা নিয়ে উপজেলার ছোট আমখোলা গ্রামের বাসিন্দা ক্বারি আব্দুর রাজ্জাক, সিদ্দিকুর রহমান ও আব্দুল হক সাব কবলা মূলে একই এলাকার আব্দুর রশিদের কাছে জমি বিক্রি ও দলিল রেজিস্ট্রি করেছেন।

এমন অভিযোগ এনে আব্দুর রশিদ বাদী হয়ে ২০২০ সালে আমতলী সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের আইনজীবী অ্যাড. বাকের খানের মাধ্যমে সি.আর ৪৮৫নং ও ৪২০ ধারায় উল্লেখিত ওই তিন জনকে আসামি করে একটি প্রতারণা মামলা দায়ের করেন।

উক্ত মামলায় বাদীর উল্লেখিত বিষয়টি আদালতে মিথ্যা প্রমাণিত হওয়ায় আজ সোমবার (৫ ডিসেম্বর) বাদী আব্দুর রশিদকে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করে বরগুনা জেল হাজতে পাঠানোর আদেশ দেন আমতলী উপজেলা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিজ্ঞ বিচারক আরিফুর রহমান।

আসামি পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট হরিহর চন্দ্র দাস বলেন, আমার মক্কেলদের বিরুদ্ধে করা মামলার বিষয়টি মিথ্যা প্রমাণিত হওয়ায় আদালতের বিজ্ঞ বিচারক বাদীকে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেছেন। আদালতের এমন রায়ে আমরা খুশি।

আপলোডকারীর তথ্য

মিথ্যা মামলা দিয়ে প্রতারণা করায় বাদীর ১৫ দিনের কারাদণ্ড

আপডেট সময় ০২:১৪:৫৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ৫ ডিসেম্বর ২০২২

সাইফুল্লাহ নাসির, আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধিঃ বরগুনার আমতলী উপজেলা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জমির মালিকানা না হওয়া সত্ত্বেও প্রতারণা করে টাকা নিয়ে জমি বিক্রি ও দলিল রেজিস্ট্রি করেছে মর্মে বাদী আব্দুর রশিদ একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেন।

আলালতে মামলাটি মিথ্যা প্রমাণিত হওয়ায় আদালতের বিজ্ঞ বিচারক বাদীকে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেছেন।

মামলা ও আদালত সূত্রে জানা গেছে, তালতলী উপজেলার ৪২নং বড় নিশান বাড়িয়া মৌজার এসএ ১৯৪, ১৯৫, ১৯৬নং খতিয়ানে ৩০টি দাগ উল্লেখ পূর্বক জমির মালিকানা না থাকা সত্ত্বেও প্রতারণা করে টাকা নিয়ে উপজেলার ছোট আমখোলা গ্রামের বাসিন্দা ক্বারি আব্দুর রাজ্জাক, সিদ্দিকুর রহমান ও আব্দুল হক সাব কবলা মূলে একই এলাকার আব্দুর রশিদের কাছে জমি বিক্রি ও দলিল রেজিস্ট্রি করেছেন।

এমন অভিযোগ এনে আব্দুর রশিদ বাদী হয়ে ২০২০ সালে আমতলী সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের আইনজীবী অ্যাড. বাকের খানের মাধ্যমে সি.আর ৪৮৫নং ও ৪২০ ধারায় উল্লেখিত ওই তিন জনকে আসামি করে একটি প্রতারণা মামলা দায়ের করেন।

উক্ত মামলায় বাদীর উল্লেখিত বিষয়টি আদালতে মিথ্যা প্রমাণিত হওয়ায় আজ সোমবার (৫ ডিসেম্বর) বাদী আব্দুর রশিদকে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করে বরগুনা জেল হাজতে পাঠানোর আদেশ দেন আমতলী উপজেলা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিজ্ঞ বিচারক আরিফুর রহমান।

আসামি পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট হরিহর চন্দ্র দাস বলেন, আমার মক্কেলদের বিরুদ্ধে করা মামলার বিষয়টি মিথ্যা প্রমাণিত হওয়ায় আদালতের বিজ্ঞ বিচারক বাদীকে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেছেন। আদালতের এমন রায়ে আমরা খুশি।