ঢাকা ০২:৫৯ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যশোরে ২৫ টি বিপদজনক বাঁক চিহ্নিত

  • যশোর প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট সময় ০৩:২৭:০৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩
  • ১৩৫ বার পড়া হয়েছে

যশোরে সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করেছে জেলা প্রশাসন। বিভিন্ন সড়কে চিহ্নিত করা হয়েছে ২৫টি বিপদজনক বাঁক। এসব বাঁকে দুর্ঘটনা প্রতিরোধে সর্তকতামূলক চিহ্ন ও নির্দেশনা স্থাপন, স্পিড গান দিয়ে যানবাহনের গতিসীমা নিয়ন্ত্রণ, বেধে দেয়া সময়ের মধ্যে পৌঁছানোর বাধ্যবাধকতার সময়সূচি নিয়ে বাস মালিক সমিতি বৈঠক করে পুনঃনির্ধারণ, জনসচেতনতা কার্যক্রম ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করা হবে। গতকাল কালেক্টরেট সভাকক্ষে জেলা সড়ক নিরাপত্তা কমিটির সভায় এসব সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান।
সভাপতির বক্তৃতায় জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ সড়কে জেব্রা ক্রসিং ও ধীরে চলুন সাইন বোর্ড লাগাতে হবে। ইতিমধ্যে যশোর-বেনাপোল, যশোর-ঝিনাইদহ, যশোর-মাগুরা, যশোর-নড়াইল ও যশোর-খুলনা মহাসড়কে ২৫টি বিপদজনক বাঁক চিহ্নিত করা হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ সড়কে সর্তকতামূলক চিহ্ন ও নির্দেশনা স্থাপনসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সড়ক ও জনপথ বিভাগ এবং বিআরটিএ কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

সভায় বিআরটিএ’র সহকারী পরিচালক মাহফুজুর রহমান জানান, পৌর এলাকার হাসপাতাল ও অফিসগুলোকে নিজস্ব পার্কিংয়ের ব্যবস্থা করার জন্য চিঠি দেয়া হয়েছে। তারপরও তারা নিজস্ব পার্কিংয়ের ব্যবস্থা করেনি। এ জন্য মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা প্রয়োজন। শহরের ঝুঁকিপূর্ণ সড়কের স্পিড ব্রেকার রং করার ব্যবস্থা করা ও অল্প বয়সী যুবকদের মোটরসাইকেল চালানোর বিষয়ে কলেজগুলোতে সচেতনতামূলক সভা করা হবে।
সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী হাফিজুর রহমান বলেন, লাউজানি রেলক্রসিংয়ে পর্যাপ্ত রিফ্লেকটিং সাইন্টিফিক সিগন্যালের ব্যবস্থা করা হয়েছে। অন্যান্য রোডে রোড মার্কিং করা হয়েছে। গুরুত্ব অনুসারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।
সভায় আরও বক্তৃতা করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মনোয়ার হোসেন, এলজিইডির সহকারী প্রকৌশলী প্রত্যাশা চাকমা, সরকারি মাইকেল মধুসূদন কলেজের সহকারী অধ্যাপক শাহাদত হোসেন, হাইওয়ে পুলিশের সার্জেন্ট শাহিনুর ইসলাম, যশোর জেলা পরিবহন সংস্থা শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আজিজুল আলম মিন্টু, যশোর বাস মালিক সমিতির সভাপতি বদরুজ্জামান বাবলু প্রমুখ।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

যশোরে ২৫ টি বিপদজনক বাঁক চিহ্নিত

আপডেট সময় ০৩:২৭:০৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

যশোরে সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করেছে জেলা প্রশাসন। বিভিন্ন সড়কে চিহ্নিত করা হয়েছে ২৫টি বিপদজনক বাঁক। এসব বাঁকে দুর্ঘটনা প্রতিরোধে সর্তকতামূলক চিহ্ন ও নির্দেশনা স্থাপন, স্পিড গান দিয়ে যানবাহনের গতিসীমা নিয়ন্ত্রণ, বেধে দেয়া সময়ের মধ্যে পৌঁছানোর বাধ্যবাধকতার সময়সূচি নিয়ে বাস মালিক সমিতি বৈঠক করে পুনঃনির্ধারণ, জনসচেতনতা কার্যক্রম ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করা হবে। গতকাল কালেক্টরেট সভাকক্ষে জেলা সড়ক নিরাপত্তা কমিটির সভায় এসব সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান।
সভাপতির বক্তৃতায় জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ সড়কে জেব্রা ক্রসিং ও ধীরে চলুন সাইন বোর্ড লাগাতে হবে। ইতিমধ্যে যশোর-বেনাপোল, যশোর-ঝিনাইদহ, যশোর-মাগুরা, যশোর-নড়াইল ও যশোর-খুলনা মহাসড়কে ২৫টি বিপদজনক বাঁক চিহ্নিত করা হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ সড়কে সর্তকতামূলক চিহ্ন ও নির্দেশনা স্থাপনসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সড়ক ও জনপথ বিভাগ এবং বিআরটিএ কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

সভায় বিআরটিএ’র সহকারী পরিচালক মাহফুজুর রহমান জানান, পৌর এলাকার হাসপাতাল ও অফিসগুলোকে নিজস্ব পার্কিংয়ের ব্যবস্থা করার জন্য চিঠি দেয়া হয়েছে। তারপরও তারা নিজস্ব পার্কিংয়ের ব্যবস্থা করেনি। এ জন্য মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা প্রয়োজন। শহরের ঝুঁকিপূর্ণ সড়কের স্পিড ব্রেকার রং করার ব্যবস্থা করা ও অল্প বয়সী যুবকদের মোটরসাইকেল চালানোর বিষয়ে কলেজগুলোতে সচেতনতামূলক সভা করা হবে।
সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী হাফিজুর রহমান বলেন, লাউজানি রেলক্রসিংয়ে পর্যাপ্ত রিফ্লেকটিং সাইন্টিফিক সিগন্যালের ব্যবস্থা করা হয়েছে। অন্যান্য রোডে রোড মার্কিং করা হয়েছে। গুরুত্ব অনুসারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।
সভায় আরও বক্তৃতা করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মনোয়ার হোসেন, এলজিইডির সহকারী প্রকৌশলী প্রত্যাশা চাকমা, সরকারি মাইকেল মধুসূদন কলেজের সহকারী অধ্যাপক শাহাদত হোসেন, হাইওয়ে পুলিশের সার্জেন্ট শাহিনুর ইসলাম, যশোর জেলা পরিবহন সংস্থা শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আজিজুল আলম মিন্টু, যশোর বাস মালিক সমিতির সভাপতি বদরুজ্জামান বাবলু প্রমুখ।