ঢাকা ০৫:২২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রামপালে চিরকুট লিখে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা, সুদ কারবারি গ্রেপ্তার

বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধিঃ রামপালের গৌরম্ভা গ্রামে সুদ কারবারিদের অত্যাচার সইতে না পেরে রাজকুমার বিশ্বাস (৬০) নামের এক মৎস্য ঘের ব্যবসায়ী আত্মহত্যা করেছেন। এ ঘটনায় আত্মহত্যার প্ররোচণার দায়ে তুহিন রায় নামে এক সুদ কারবারিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার (২০ মে) খুলনা লবনচুরা এলাকা থেকে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। তুহিন রায় উপজেলার গৌরম্ভা ইউনিয়নের গৌরম্ভা গ্রামের হারান চন্দ্র রায় এর ছেলে।

এর আগে গত (১৯ মে) শুক্রবার নিজ বাড়ির আঙ্গিনায় কাঁঠাল গাছে গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা করেন রাজকুমার। এসময় তার পকেট থেকে একটি চিরকুট উদ্ধার করা হয়। যাতে আত্মহত্যার প্ররোচণাকারী হিসেবে স্থানীয় সুদে ব্যবসায়ী তুহিন রায় ও মিলন অধিকারীর নাম উল্লেখ করেন তিনি। পরে রাজকুমারের জামাই জামাই উত্তম কুমার সরকার বাদী হয়ে আত্নহত্যার প্ররোচণার অভিযোগে তুহিন রায় ও মিলন অধিকারী সহ অজ্ঞাত ২/৩ জনের নামে রামপাল থানায় একটি মামলা দায়ের করে।

রামপাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস.এম আশরাফুল আলম জানান, ঘের ব্যবসার লস খেয়ে রাজকুমার বিশ্বাস ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়েন। এক সময় বাধ্য হয়ে একই এলাকার সুদ কারবারি তুহিন ও মিলনের কাছ থেকে ৬ হাজার সুদে ৭ লক্ষ টাকা ধার নেয়। এরপর সুদ বাবদ ভিকটিম ৩ লক্ষ ৬৩ হাজার টাকা পরিশোধ করেন। ২নং আসামি মিলন অধিকারীর কাছে থেকে একই চুক্তিতে ৪ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা নেন। এরপর ভিকটিম ২ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা সুদ বাবদ পরিশোধ করেন। এরই মধ্যে দরিদ্র রাজকুমার কয়েক কিস্তি সুদের টাকা দিতে ব্যার্থ হলে তুহিন ও মিলন সহ তাদের লোকজন রাজকুমারকে গালিগালাজসহ বিভিন্ন ভাবে চাপ প্রয়োগ করতে থাকে।

বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়ভাবে শালিস বৈঠকের মাধ্যমে সুদ বাদে মূল টাকা ফেরত দেওয়ার সিদ্ধান্ত হলেও তুহিন ও মিলন সেটা না মেনে গত (১৮ মে) বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলার গৌরম্ভা বাজার এলাকায় আসামিরা উক্ত টাকার জন্য রাজকুমারকে বিভিন্ন চাপ ও গালিগালাজ করে লাঞ্চিত করেন। এ অপমান সইতে না পেরে রাজকুমার আত্মহত্যা করে। এসময় তার জামার পকেট থেকে একটি চিরকুট উদ্ধার করা হয়। যাতে লেখা ছিলো তুহিন আমাকে অনেক গালিগালাজ করে, তাই আমি এই পথ বেছে নিয়েছি।

ওসি আরও জানান, অপর আসামিকে গ্রেপ্তার করার চেষ্টা চলমান রয়েছে।

আপলোডকারীর তথ্য

রামপালে চিরকুট লিখে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা, সুদ কারবারি গ্রেপ্তার

আপডেট সময় ০৪:৩৫:১৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ মে ২০২৩

বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধিঃ রামপালের গৌরম্ভা গ্রামে সুদ কারবারিদের অত্যাচার সইতে না পেরে রাজকুমার বিশ্বাস (৬০) নামের এক মৎস্য ঘের ব্যবসায়ী আত্মহত্যা করেছেন। এ ঘটনায় আত্মহত্যার প্ররোচণার দায়ে তুহিন রায় নামে এক সুদ কারবারিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার (২০ মে) খুলনা লবনচুরা এলাকা থেকে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। তুহিন রায় উপজেলার গৌরম্ভা ইউনিয়নের গৌরম্ভা গ্রামের হারান চন্দ্র রায় এর ছেলে।

এর আগে গত (১৯ মে) শুক্রবার নিজ বাড়ির আঙ্গিনায় কাঁঠাল গাছে গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা করেন রাজকুমার। এসময় তার পকেট থেকে একটি চিরকুট উদ্ধার করা হয়। যাতে আত্মহত্যার প্ররোচণাকারী হিসেবে স্থানীয় সুদে ব্যবসায়ী তুহিন রায় ও মিলন অধিকারীর নাম উল্লেখ করেন তিনি। পরে রাজকুমারের জামাই জামাই উত্তম কুমার সরকার বাদী হয়ে আত্নহত্যার প্ররোচণার অভিযোগে তুহিন রায় ও মিলন অধিকারী সহ অজ্ঞাত ২/৩ জনের নামে রামপাল থানায় একটি মামলা দায়ের করে।

রামপাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস.এম আশরাফুল আলম জানান, ঘের ব্যবসার লস খেয়ে রাজকুমার বিশ্বাস ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়েন। এক সময় বাধ্য হয়ে একই এলাকার সুদ কারবারি তুহিন ও মিলনের কাছ থেকে ৬ হাজার সুদে ৭ লক্ষ টাকা ধার নেয়। এরপর সুদ বাবদ ভিকটিম ৩ লক্ষ ৬৩ হাজার টাকা পরিশোধ করেন। ২নং আসামি মিলন অধিকারীর কাছে থেকে একই চুক্তিতে ৪ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা নেন। এরপর ভিকটিম ২ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা সুদ বাবদ পরিশোধ করেন। এরই মধ্যে দরিদ্র রাজকুমার কয়েক কিস্তি সুদের টাকা দিতে ব্যার্থ হলে তুহিন ও মিলন সহ তাদের লোকজন রাজকুমারকে গালিগালাজসহ বিভিন্ন ভাবে চাপ প্রয়োগ করতে থাকে।

বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়ভাবে শালিস বৈঠকের মাধ্যমে সুদ বাদে মূল টাকা ফেরত দেওয়ার সিদ্ধান্ত হলেও তুহিন ও মিলন সেটা না মেনে গত (১৮ মে) বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলার গৌরম্ভা বাজার এলাকায় আসামিরা উক্ত টাকার জন্য রাজকুমারকে বিভিন্ন চাপ ও গালিগালাজ করে লাঞ্চিত করেন। এ অপমান সইতে না পেরে রাজকুমার আত্মহত্যা করে। এসময় তার জামার পকেট থেকে একটি চিরকুট উদ্ধার করা হয়। যাতে লেখা ছিলো তুহিন আমাকে অনেক গালিগালাজ করে, তাই আমি এই পথ বেছে নিয়েছি।

ওসি আরও জানান, অপর আসামিকে গ্রেপ্তার করার চেষ্টা চলমান রয়েছে।