ঢাকা ০২:১৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

রূপগঞ্জে জোর পূর্বর হত্যা মামলায় আসামী করার চেষ্টা পিবিআই’র বিরুদ্ধে

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি: নারায়নগঞ্জের রূপগঞ্জে একটি হত্যা মামলাকে কেন্দ্র করে সুজন নামে এক যুবককে ঐ হত্যা মামলায় জোরপূর্বক স্বীকারোক্তি আদায় করতে আটক করছে নারায়নগঞ্জ পিবিআই।

এই ঘটনায় ভুক্তভোগীর স্ত্রী পূর্ণিমা শেখ পুলিশের আইজিপি সেল ও সিনিয়র সচিব জন নিরাপত্তা বিভাগ স্বরারাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ে একটি লিখিত অভিযোগ করেন।

অভিযুক্ত কর্মকর্তার নাম নজরুল ইসলাম (এস আই) তিনি পুলিশ ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) নারায়ণগঞ্জে কর্মরত রয়েছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত ১২ মে শুক্রবার পূর্ণিমা জানতে পারে তার স্বামী মো সুজন শেখকে নারায়নগঞ্জ জেলার পিবিআইর সাব-ইন্সপেক্টর নজরুল ইসলাম আটক করেন।

খবর পেয়ে তিনি পিবিআই নারায়নগঞ্জের সাইনর্বোড গিয়ে, দেখে তার স্বামী খুবই অসুস্থ। তার সমস্ত শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। স্বামীর সাথে কথা বলে জানতে পারে পিবিআই কর্মকর্তা মোঃ নজরুল ইসলাম শারীরিক ভাবে নির্যাতন করেছে। এসময় তার স্বামীকে কেন ধরে এনেছে জানতে চাইলে এস আই নজরুল জানান, সুজনকে একটি হত্যা কান্ডের মামলায় সন্দেহজনক ভাবে আটক করছে। এ কথা বলতে বলতে তিনি আমার সামনে আমার স্বামীকে অকর্থ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। পরে একটি লাঠি দিয়ে বেধড়ক পিটায়। আমি বাধা দেওয়ায় আমাকে ধাক্কা দিলে আমি পড়ে যাই ও আহত হই। মারতে মারতে নজরুল বলেন, তুই স্বীকার কর যে ঐ হত্যা কান্ডে তুই (সুজন) জড়িত। তা না হলে গাড়ী চাপা দিয়ে তোকে মেরে ফেলব। তারপর সড়ক দুর্ঘটনা বলে চালিয়ে দিব। যার রেকর্ড পূর্ণিমার মোবাইলে রয়েছে।

সুজনের ভাই মজিবর জানান, গত ১ বছর আগে রূপগঞ্জে বরপা এলাকায় এক রাখাল খুন হয়। এই ঘটনায় এস আই নজরুল গত এক মাস ধরে আমাদের এলাকায় গিয়ে আমার ভাইকে ডেকে এই খুনের হত্যাকারীদের ধরতে সোর্স হিসাবে কাজ করতে চাপ প্রয়োগ করে। কিন্তু আমার ভাই সুজন এই বিষয় কাজ করতে অস্বীকার করলে তাকে এই হত্যা মামলায় আসামী করবে বলে হুমকি প্রয়োগ করে আসছিল। পিবিআই এর কর্মকর্তার ভয়ে আমার ভাই ফরিদপুর গেলে সেখান থেকে গত শুক্রবার আটক করে নিয়ে আসে।
পুলিশ সুপার নারায়নগঞ্জ গোলাম রাসেল মোস্তফা গণমাধ্যমকে জানান, এই বিষয়টি আমি অবগত নাই।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

রূপগঞ্জে জোর পূর্বর হত্যা মামলায় আসামী করার চেষ্টা পিবিআই’র বিরুদ্ধে

আপডেট সময় ১১:২৪:৩৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ মে ২০২৩

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি: নারায়নগঞ্জের রূপগঞ্জে একটি হত্যা মামলাকে কেন্দ্র করে সুজন নামে এক যুবককে ঐ হত্যা মামলায় জোরপূর্বক স্বীকারোক্তি আদায় করতে আটক করছে নারায়নগঞ্জ পিবিআই।

এই ঘটনায় ভুক্তভোগীর স্ত্রী পূর্ণিমা শেখ পুলিশের আইজিপি সেল ও সিনিয়র সচিব জন নিরাপত্তা বিভাগ স্বরারাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ে একটি লিখিত অভিযোগ করেন।

অভিযুক্ত কর্মকর্তার নাম নজরুল ইসলাম (এস আই) তিনি পুলিশ ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) নারায়ণগঞ্জে কর্মরত রয়েছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত ১২ মে শুক্রবার পূর্ণিমা জানতে পারে তার স্বামী মো সুজন শেখকে নারায়নগঞ্জ জেলার পিবিআইর সাব-ইন্সপেক্টর নজরুল ইসলাম আটক করেন।

খবর পেয়ে তিনি পিবিআই নারায়নগঞ্জের সাইনর্বোড গিয়ে, দেখে তার স্বামী খুবই অসুস্থ। তার সমস্ত শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। স্বামীর সাথে কথা বলে জানতে পারে পিবিআই কর্মকর্তা মোঃ নজরুল ইসলাম শারীরিক ভাবে নির্যাতন করেছে। এসময় তার স্বামীকে কেন ধরে এনেছে জানতে চাইলে এস আই নজরুল জানান, সুজনকে একটি হত্যা কান্ডের মামলায় সন্দেহজনক ভাবে আটক করছে। এ কথা বলতে বলতে তিনি আমার সামনে আমার স্বামীকে অকর্থ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। পরে একটি লাঠি দিয়ে বেধড়ক পিটায়। আমি বাধা দেওয়ায় আমাকে ধাক্কা দিলে আমি পড়ে যাই ও আহত হই। মারতে মারতে নজরুল বলেন, তুই স্বীকার কর যে ঐ হত্যা কান্ডে তুই (সুজন) জড়িত। তা না হলে গাড়ী চাপা দিয়ে তোকে মেরে ফেলব। তারপর সড়ক দুর্ঘটনা বলে চালিয়ে দিব। যার রেকর্ড পূর্ণিমার মোবাইলে রয়েছে।

সুজনের ভাই মজিবর জানান, গত ১ বছর আগে রূপগঞ্জে বরপা এলাকায় এক রাখাল খুন হয়। এই ঘটনায় এস আই নজরুল গত এক মাস ধরে আমাদের এলাকায় গিয়ে আমার ভাইকে ডেকে এই খুনের হত্যাকারীদের ধরতে সোর্স হিসাবে কাজ করতে চাপ প্রয়োগ করে। কিন্তু আমার ভাই সুজন এই বিষয় কাজ করতে অস্বীকার করলে তাকে এই হত্যা মামলায় আসামী করবে বলে হুমকি প্রয়োগ করে আসছিল। পিবিআই এর কর্মকর্তার ভয়ে আমার ভাই ফরিদপুর গেলে সেখান থেকে গত শুক্রবার আটক করে নিয়ে আসে।
পুলিশ সুপার নারায়নগঞ্জ গোলাম রাসেল মোস্তফা গণমাধ্যমকে জানান, এই বিষয়টি আমি অবগত নাই।