ঢাকা ০৬:৪৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রূপসায় কার্বন ফ্যাক্টরিতে অগ্নিকাণ্ডে ব্যাপক ক্ষতি

নাহিদ জামান, খুলনা

রূপসার তিলক এলাকায় মীমকো কার্বন ফ্যাক্টরিতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ২৫ ফেব্রুয়ারি রবিবার সকালে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। আগুনের লেলিহান শিখায় মুহূর্তের মধ্যে প্রায় ৪০ লক্ষাধিক টাকার পাটখড়ি ভষ্মিভূত হয়। ফায়ার সার্ভিসের ৫ টি ইউনিট প্রায় তিন ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়- রবিবার আনুমানিক সকাল ৯টায় ফ্যাক্টরিতে আগুন জ্বলতে দেখে, তাৎক্ষনিক ফায়ার সার্ভিস অফিসে সংবাদ দেয়। ফায়ার সার্ভিস টীম খবর পেয়ে অতিদ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছেই আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করলেও শেষ রক্ষা করতে পারেনি।
আগুনের সূত্রপাত সম্পর্কে কারখানা কর্তৃপক্ষ বলেন- চুল্লি থেকে আগুনের ফুলকি বাতাসের সাথে মিশে পাটখড়ির উপর এসে পড়ে অগ্নিকাণ্ডের সূচনা হয়। একই সময় আগুনের ফুলকি উড়ে পাটখড়ি বোঝাই ট্রাকে আগুন লেগে যায়। তখন চালকরা পাশের পুকুরে ৩টি ট্রাকই পানির মধ্যে নামিয়ে দেয় এবং আরো ১টি ট্রাকের আগুনে আংশিক ক্ষতি হয়। তাছাড়া ফ্যাক্টরির মধ্যে ৮ বিঘা জমিতে থাকা পাটখড়ি ও বস্তায় মজুদ অজানা ক্যামিকেল পুড়ে গেছে। তাতে কারখানা কর্তৃপক্ষ আনুমানিক ৩৫/৪০ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেন।
এ ব্যাপারে ফায়ার সার্ভিস খুলনা সহকারী পরিচালক মো. ফারুক হোসেন ও জেলা কর্মকর্তা মো. সাইফুজ্জামান বলেন, আমরা ৯ টা ১৫ মিনিটে খবর পেয়ে অতিদ্রুত ঘটনাস্থল, সকাল সাড়ে ৯ টায় দিকে আগুন নেভানোর কাজ শুরু করে ১২ টা ৫ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রন আনতে সক্ষম হই। এরপরও এই আগুনের শেষ আন্তের শেষ প্রচেষ্টা সারাদিন লাগতে পারে। আমরা একযোগে ফায়ার সার্ভিস বয়রা হেড অফিস, টুটপাড়া ফায়ার সর্ভিসের ২টি টীম ও রূপসা ফায়ার সার্ভিস সম্মিলিত ফায়ার ফাইটার ৪০ জন সদস্য আগুন নেভানোর কাজ করছি। আমাদের ৫টি ইউনিটের ১০টি পানির লাইনে কাজ করা হয়েছে। তবে এখনও নির্বাপনের কাজ চলছে।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

রূপসায় কার্বন ফ্যাক্টরিতে অগ্নিকাণ্ডে ব্যাপক ক্ষতি

আপডেট সময় ০৫:৩৪:১১ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

নাহিদ জামান, খুলনা

রূপসার তিলক এলাকায় মীমকো কার্বন ফ্যাক্টরিতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ২৫ ফেব্রুয়ারি রবিবার সকালে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। আগুনের লেলিহান শিখায় মুহূর্তের মধ্যে প্রায় ৪০ লক্ষাধিক টাকার পাটখড়ি ভষ্মিভূত হয়। ফায়ার সার্ভিসের ৫ টি ইউনিট প্রায় তিন ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়- রবিবার আনুমানিক সকাল ৯টায় ফ্যাক্টরিতে আগুন জ্বলতে দেখে, তাৎক্ষনিক ফায়ার সার্ভিস অফিসে সংবাদ দেয়। ফায়ার সার্ভিস টীম খবর পেয়ে অতিদ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছেই আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করলেও শেষ রক্ষা করতে পারেনি।
আগুনের সূত্রপাত সম্পর্কে কারখানা কর্তৃপক্ষ বলেন- চুল্লি থেকে আগুনের ফুলকি বাতাসের সাথে মিশে পাটখড়ির উপর এসে পড়ে অগ্নিকাণ্ডের সূচনা হয়। একই সময় আগুনের ফুলকি উড়ে পাটখড়ি বোঝাই ট্রাকে আগুন লেগে যায়। তখন চালকরা পাশের পুকুরে ৩টি ট্রাকই পানির মধ্যে নামিয়ে দেয় এবং আরো ১টি ট্রাকের আগুনে আংশিক ক্ষতি হয়। তাছাড়া ফ্যাক্টরির মধ্যে ৮ বিঘা জমিতে থাকা পাটখড়ি ও বস্তায় মজুদ অজানা ক্যামিকেল পুড়ে গেছে। তাতে কারখানা কর্তৃপক্ষ আনুমানিক ৩৫/৪০ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেন।
এ ব্যাপারে ফায়ার সার্ভিস খুলনা সহকারী পরিচালক মো. ফারুক হোসেন ও জেলা কর্মকর্তা মো. সাইফুজ্জামান বলেন, আমরা ৯ টা ১৫ মিনিটে খবর পেয়ে অতিদ্রুত ঘটনাস্থল, সকাল সাড়ে ৯ টায় দিকে আগুন নেভানোর কাজ শুরু করে ১২ টা ৫ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রন আনতে সক্ষম হই। এরপরও এই আগুনের শেষ আন্তের শেষ প্রচেষ্টা সারাদিন লাগতে পারে। আমরা একযোগে ফায়ার সার্ভিস বয়রা হেড অফিস, টুটপাড়া ফায়ার সর্ভিসের ২টি টীম ও রূপসা ফায়ার সার্ভিস সম্মিলিত ফায়ার ফাইটার ৪০ জন সদস্য আগুন নেভানোর কাজ করছি। আমাদের ৫টি ইউনিটের ১০টি পানির লাইনে কাজ করা হয়েছে। তবে এখনও নির্বাপনের কাজ চলছে।