• শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:০৭ অপরাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
শিরোনাম
বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈনিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ ।

রূপসায় ১৬ বছর পর উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার বদলির আদেশ

Muktir Lorai / ৩৮ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় বুধবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০২১

নাহিদ জামান, খুলনা প্রতিনিধিঃ যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের উপ-পরিচারক (প্রসাসন) স্মাক্ষরিত ৩১|০৮|২০২১ তারিখের ৯১৯ নাম্বার স্মারকের অফিস আদেশে খুলনা জেলার রূপসা উপজেলায় যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মোঃ আবু বক্কর মোল্লার রূপসায় ১৬ বছর চাকুরির পর বদলির আদেশ।

সরকারি কর্মকর্তাদের তিন বছর অন্তর বদলির বিধান রয়েছে। যেখানে প্রতিকূল পরিস্থিতিতে দুই বছর পর ও বদলির কথা বলা থাকলে ও বাস্তবতায় দেখা যায় খুটির জোরে কিছু কর্মকর্তা একই দপ্তরে ১৫-১৬ বছর চাকরি করে একই জায়গায়। আবার অনেক কর্মকর্তা কর্মচারি একই দপ্তরে নিজ উপজেলায় চাকুরীকাল শেষ করে। এই চাকুরিজীবিরা দীর্ঘদিন একই কর্মস্থলে চাকুরী করার সুবাদে ক্ষমতা ও দৌরাত্মে চাকরীকালে বিপদে ফেলেছে দপ্তরের স্বল্পকাল চাকরি করা কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের। দীর্ঘ সময় চাকরি করা এসব কর্মকর্তা নতুন বদলি হয়ে আসা কর্মকর্তা কর্মচারীদের উপর নিয়ন্ত্রণ ও স্থানীয় প্রভাব খাটানোর চেষ্টা করে। তারা যদি একই জায়গায় চাকুরি না করে বিভিন্ন দপ্তর ঘুরে আসতো তাদের বাড়তো অভিজ্ঞতা ও সরকারি চাকুরী সম্বন্ধে বাস্তব ধারণা। সরকারী চাকুরিজীবিদের পরিপত্রে বলা হয়েছে
১)একাই পদের তিন বছরের অধিক কাল যাবৎ নিয়োজিত কর্মচারী বাস্তব অবস্থাভেদে অন্যত্র বদলি করতে হবে।
২) দুর্গম অথবা প্রতিকূল যোগাযোগ ব্যবস্থা সম্পন্ন এলাকা ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট কর্মচারীর মেয়াদ ২ বছর হলেও তাকেও অন্যত্র বদলি করা যেতে পারে।
মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ০৮ জুলাই ২০১৫ তারিখের ০৪.০০.০০০০.৫১৩.৩৫.০৩৭.২০১৫.১৯১ নম্বর পরিপত্রের মাঠ পর্যায়ে কর্মরত কর্মচারীদের বদলির কথা বলা হয়েছে। বদলী বিষয়ে এই নির্দেশনা থাকা স্বত্বেও রূপসা উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মোঃ আবু বকর মোল্লা ১৬ বছর যাবৎ একই পদে রূপসা উপজেলায় কর্মরত থাকার সুবাদে নিজ দপ্তরের কর্মরত অধস্তনঃ কর্মচারীদের নানাবিধ ভাবে অন্যায় অত্যাচার করে গেছে। খোজ নিয়ে জানা যায় ইতিপূর্বে উক্ত আবু বকর মোল্লা একাধিকবার বদলীর আদেশ প্রাপ্ত হওয়ার পরও কোন এক অজানা কারনে বদলীর আদেশ প্রত্যহার হয়েছে। ফলশ্রুতিতে তার স্বেচ্চাচারীতা আরো বৃদ্ধি পেয়েছে। একই পদে দীর্ঘদিন কর্মরত থাকায় যুব উন্নয়ন সংশ্লিষ্ট উপকার ভোগীরা বঞ্চিত হয়েছে। যা তাদের ক্ষোভের কারন হয়েছে। এমন পরিস্থিতে সম্প্রতিক সময়ে বদলীর আদেশ প্রত্যাহার হতে পারে এমন আশংকা সংশ্লষ্টিদের।


এই বিভাগের আরো সংবাদ