ঢাকা ০৪:৩৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শোলাকিয়া ঈদগাহ মাঠে ঈদুল ফিতর নামাজের প্রস্তুতি

  • মো: ওয়াহিদ
  • আপডেট সময় ০৬:২৬:৪৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৩
  • ১১৯ বার পড়া হয়েছে

ঈদ-উল-ফিতরের নামাজের প্রস্তুতি দিয়েছেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ রাসেল শেখ পিপিএম। তিনি সাংবাদিকদের সাথে শোলাকিয়া মাঠে উপস্থিত হয়ে মাঠের নিরাপত্তা সংক্রান্তে ব্রিফিং প্রদান করেন৷
এ সময় পুলিশ সুপার বলেন, ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ঈদগাহ মাঠে এবার ১৯৬তম ঈদের জামায়াত অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে৷ ঐতিহাসিক এই ঈদগাহ মাঠের নিরাপত্তার ডিউটির বিষয়ে জেলা পুলিশ একদিকে উচ্ছ্বসিত এবং অন্যদিকে যথেষ্ট সতর্ক৷
শোলাকিয়া ঈদের জামায়তকে কেন্দ্র করে পুরো কিশোরগঞ্জ শহর জুরে নিরাপত্তা পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে৷ জেলা পুলিশের নিকট ঈদ জামায়তকে ঘিরে এখন পর্যন্ত কোনরকম নিরাপত্তা থ্রেট নাই৷ এখানে এমন একটা নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা বলায় প্রস্তুত করা হচ্ছে যাতে সাধারণ মানুষ নি:সংকোচে ঈদগাহ মাঠে আসতে পারে৷
জেলা গোয়েন্দা শাখা, জেলা বিশেষ শাখা পোষাকি পুলিশের সাথে কাজ করবে৷ এখানে এন্টি-টেররিজম ইউনিটের সদস্যগণও এসে নিরাপত্তার জন্য কাজ করবে৷ এপিবিএন এর পুলিশ সদস্য নিয়োজিত থাকবে৷ তাছাড়া নানা গোয়েন্দা শাখা এই ঈদগাহ জামায়াতের বিষয়টিকে অত্যন্ত গুরুত্বসহকারে দেখছেন৷
রমজানের শুরু থেকেই এই এলাকার দিকে বাড়তি নজরদারি রাখা হচ্ছে৷ সাদা পোষাক এবং পোষাকি পুলিশের সদস্যগণ এলাকায় টহলসহ নানাবিধ তথ্য সংগ্রহ করে যাচ্ছে৷
২০১৬ সালে একটি অনাকাঙ্খিত জঙ্গী হামলার ঘটনায় এখানে ২ জন পুলিশ সদস্যসহ (কং আনসারুল ও কং জহিরুল) ৩ জন মর্মান্তিকভাবে শহীদ হয়েছিল৷ আত্মহুতি দেওয়া সকলের আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি৷ ২০১৬ সালের এই হামলার ঘটনাকে জেলা পুলিশ সর্বদাই মাথায় রেখেই নিরাপত্তা পরিকল্পনা প্রস্তুত ও কাজ করে যাচ্ছে৷
তিনি আরো বলেন, সম্মানিত ধর্মপ্রাণ মুসল্লীগণ ঈদগাহ মাঠে শুধুমাত্র জায়নামাজ সাথে নিয়ে আসবেন৷ যে কোন ধরণের ইলেকট্রনিকস ডিভাইস, দাহ্য পদার্থ, ছাতা, ব্যাগ বা অন্যান্য সামগ্রী নিয়ে ঈদগাহ মাঠে না আসার জন্য জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হচ্ছে৷
ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য বজায় রেখে অত্যন্ত সুশৃঙ্খলভাবে ঐতিহাসিক এই ঈদগাহ মাঠে নামাজের জন্য সকলে আসবেন বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে৷
এ সময় জেলার অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণও উপস্থিত ছিলেন৷

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

শোলাকিয়া ঈদগাহ মাঠে ঈদুল ফিতর নামাজের প্রস্তুতি

আপডেট সময় ০৬:২৬:৪৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৩

ঈদ-উল-ফিতরের নামাজের প্রস্তুতি দিয়েছেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ রাসেল শেখ পিপিএম। তিনি সাংবাদিকদের সাথে শোলাকিয়া মাঠে উপস্থিত হয়ে মাঠের নিরাপত্তা সংক্রান্তে ব্রিফিং প্রদান করেন৷
এ সময় পুলিশ সুপার বলেন, ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ঈদগাহ মাঠে এবার ১৯৬তম ঈদের জামায়াত অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে৷ ঐতিহাসিক এই ঈদগাহ মাঠের নিরাপত্তার ডিউটির বিষয়ে জেলা পুলিশ একদিকে উচ্ছ্বসিত এবং অন্যদিকে যথেষ্ট সতর্ক৷
শোলাকিয়া ঈদের জামায়তকে কেন্দ্র করে পুরো কিশোরগঞ্জ শহর জুরে নিরাপত্তা পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে৷ জেলা পুলিশের নিকট ঈদ জামায়তকে ঘিরে এখন পর্যন্ত কোনরকম নিরাপত্তা থ্রেট নাই৷ এখানে এমন একটা নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা বলায় প্রস্তুত করা হচ্ছে যাতে সাধারণ মানুষ নি:সংকোচে ঈদগাহ মাঠে আসতে পারে৷
জেলা গোয়েন্দা শাখা, জেলা বিশেষ শাখা পোষাকি পুলিশের সাথে কাজ করবে৷ এখানে এন্টি-টেররিজম ইউনিটের সদস্যগণও এসে নিরাপত্তার জন্য কাজ করবে৷ এপিবিএন এর পুলিশ সদস্য নিয়োজিত থাকবে৷ তাছাড়া নানা গোয়েন্দা শাখা এই ঈদগাহ জামায়াতের বিষয়টিকে অত্যন্ত গুরুত্বসহকারে দেখছেন৷
রমজানের শুরু থেকেই এই এলাকার দিকে বাড়তি নজরদারি রাখা হচ্ছে৷ সাদা পোষাক এবং পোষাকি পুলিশের সদস্যগণ এলাকায় টহলসহ নানাবিধ তথ্য সংগ্রহ করে যাচ্ছে৷
২০১৬ সালে একটি অনাকাঙ্খিত জঙ্গী হামলার ঘটনায় এখানে ২ জন পুলিশ সদস্যসহ (কং আনসারুল ও কং জহিরুল) ৩ জন মর্মান্তিকভাবে শহীদ হয়েছিল৷ আত্মহুতি দেওয়া সকলের আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি৷ ২০১৬ সালের এই হামলার ঘটনাকে জেলা পুলিশ সর্বদাই মাথায় রেখেই নিরাপত্তা পরিকল্পনা প্রস্তুত ও কাজ করে যাচ্ছে৷
তিনি আরো বলেন, সম্মানিত ধর্মপ্রাণ মুসল্লীগণ ঈদগাহ মাঠে শুধুমাত্র জায়নামাজ সাথে নিয়ে আসবেন৷ যে কোন ধরণের ইলেকট্রনিকস ডিভাইস, দাহ্য পদার্থ, ছাতা, ব্যাগ বা অন্যান্য সামগ্রী নিয়ে ঈদগাহ মাঠে না আসার জন্য জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হচ্ছে৷
ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য বজায় রেখে অত্যন্ত সুশৃঙ্খলভাবে ঐতিহাসিক এই ঈদগাহ মাঠে নামাজের জন্য সকলে আসবেন বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে৷
এ সময় জেলার অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণও উপস্থিত ছিলেন৷