• শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৩২ অপরাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
শিরোনাম
সিএমপির পাঁচলাইশ মডেল থানার অভিযানে ০২টি স্টিলের টিপছোরা সহ ০১ জন গ্রেফতার ভান্ডারিয়ায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার মান উন্নয়নে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হাজী তৈয়েবুর রহমান সড়কের বেহালদশা শ্রীবরদীতে নদীর পাড় থেকে গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার মুরাদনগরে জালিয়াতির অভিযোগে দুদকের মামলায় শিক্ষক গ্রেফতার গাংনীর কুমারীডাঙ্গা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি ইয়াবাসহ আটক গাংনীতে গলায় ফাঁস দিয়ে গৃহবধুর আত্মহত্যা করলা সাথে শত্রুতা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রলার ডুবিতে নিহত মামুনের পরিবার ফেরত পেল মেডিকেলে ভর্তির ১৮ লাখ টাকা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এমপি হচ্ছেন ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত
বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈনিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ ।

শ্লীলতাহানির অভিযোগে পুলিশের এএসআই প্রত্যাহার

Muktir Lorai / ৪৭ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার, ১০ আগস্ট, ২০২১

রাজশাহী ব‍্যুরোঃ রাজশাহী মহানগরীর একটি পুলিশ ফাঁড়িতে কর্তব‍্যরত সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএস আই) শামীমের বিরুদ্ধে এক তরনীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ পাওয়া গেছে।সোমবার(০৯ আগস্ট)এ ঘটনায় অভিযুক্ত ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে ফাঁড়ি থেকে প্রত্যাহার করে রাজশাহী পুলিশ লাইনে বদলি করা হয়েছে। রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) কমিশনার মো. আবু কালাম সিদ্দিক তাঁকে প্রত্যাহার করেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে- অভিযুক্ত এএসআই’র নাম মো. শামীম। ভুক্তভোগী তরুণীর (১৮) বাড়ি নগরীর ২৫ নম্বর ওয়ার্ডে। তিনি বিবাহিত। স্বামীর নির্যাতনের কারণে তিনি পুলিশের জরুরি সেবার ৯৯৯ নম্বরে ফোন করেছিলেন। এরপর নগরীর বোসপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই শামীম তদন্ত করে আসেন। সেদিন তিনি ওই তরুণীকে পুলিশ ফাঁড়িতে ডেকে পাঠান। সে অনুযায়ী গত রোববার ওই তরুণী তাঁর মাকে নিয়ে ফাঁড়িতে যান।

এ সময় এএসআই শামীম ওই তরুণীর মাকে রুমের বাইরে যেতে বলেন। ওই তরুণী রুমে একা থাকলে এএসআই শামীম তাঁর শ্লীলতাহানি ঘটান। এ নিয়ে সন্ধ্যায় ওই তরুণীর বাবা বোয়ালিয়া থানায় এএসআই শামীমের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ করেন। কিন্তু রাতেই আবার স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর আরমান আলী ওই তরুণীর পরিবার এবং এএসআই শামীমকে ডেকে মীমাংসা করে দেন। তবে এই মীমাংসা না মেনে ভুক্তভোগী তরুণীর বাবা আরএমপি কমিশনারের কাছে যান। এরপরই পুলিশ কমিশনার অভিযুক্তকে প্রত্যাহার করেন।

বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিবারন চন্দ্র বর্মন বলন, থানায় অভিযোগ হওয়ার পর ঘটনাটি সম্পর্কে আমি উধ্বর্তন কর্মকর্তাদের নোট দিয়েছিলাম। ওই তরুণীর বাবাও কমিশনার স্যারের সাথে দেখা করেছিলেন। এরপর অভিযুক্ত এএসআইকে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে। এখন এ অভিযোগের তদন্ত হবে। তারপর উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এ বিষয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ নেবেন।


এই বিভাগের আরো সংবাদ