ঢাকা ০৩:৩০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সরাইলে প্রথম শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ চেষ্টা

সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি:
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে প্রথম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে (৬) ধর্ষণের চেষ্টাকালে হাতেনাতে ধরা পড়েছে ৫ সন্তানের জনক বিল্লাল মিয়া (৫০) নামের এক লম্পট।

বুধবার শিশুটির পিতা বাদী হয়ে সরাইল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে বিল্লাল মিয়ার বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।
গত রোববার (২৮ মে) দুপুরের দিকে উপজেলার অরুয়াইল ইউনিয়নের রানীদিয়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে।

ঘটনার পরেই পালিয়ে গেছে বিল্লাল। লম্পট বিল্লালের তান্ডবে এখনো ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে আছে শিশুটি।

মামলা ও ছাত্রীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, ৫ সন্তানের জনক বিল্লাল। শিশুটি রানীদিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী। বিল্লালের বসতঘরও শিশুদের পাশাপাশি। ওই ছাত্রী বিল্লালকে বড় আব্বা ডাকতো বলে জানা গেছে।
গত রোববার দুপুরে স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পর আম দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে শিশুটিকে তার বসত ঘরে নেয় বিল্লাল। শিশুটি ঘরে প্রবেশ করার পরই ভেতরের দিক থেকে দরজা লাগিয়ে দেয় বিল্লাল। শিশুটিকে ভয়ভীতি দেখিয়ে বিবস্ত্র করে দেহের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে সে। শিশুটির চিৎকারে দৌঁড়ে আসে তার মা। দরজা বন্ধ দেখে তিনিও চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করেন। তখন অন্যান্য প্রতিবেশীরা ছুটে আসেন। সকলের চাপাচাপিতে বিল্লাল দরজা খুলে দেয়। ভেতরে গিয়ে কান্নারত ও বিবস্ত্র অবস্থায় থাকা শিশুটিকে উদ্ধার করেন তারা। উপস্থিত লোকজন এই অপকর্ম সম্পর্কে বিল্লালকে জিজ্ঞাসা করলে উত্তেজিত হয়ে শিশুর পিতা মাতাকে হত্যার হুমকি দেয় সে। ঘটনার পর থেকে আতঙ্ক আর শঙ্কায় সময় পার করছেন শিশুর পিতা মাতা।

স্থানীয় একাধিক ব্যক্তি বলেন, ঘরে স্ত্রী ও পাঁচ সন্তান রেখে এমন জঘন্য কাজ কিভাবে করতে পারে? আব্বা ডাকে মেয়েটার দিকে তার কুনজর গেল কিভাবে? সে আগেও এমন অনেক ঘটনা ঘটিয়েছে। আমরা তার বিচার চাই।

ছাত্রীর বাবা বলেন, আমার শিশু বাচ্চাটা তাকে সবসময় বড় আব্বা বলে ডাকে। নিজের মেয়ের মত শিশু বাচ্চাটাকে ধর্ষণ করার চেষ্টা কিভাবে করতে পারে? আমি বিল্লালের দৃষ্টান্তমূলক সর্বোচ্চ বিচার দাবী করছি।

সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আসলাম হোসেন বলেন, শিশুটি আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দী দিয়েছে। বিল্লাল শিশুটিকে ধর্ষণের চেষ্টাকালেই লোকজন হাজির হয়ে গেছে। এর আগেও এমন একাধিক ঘটনা ঘটিয়েছে বিল্লাল। আমরা তাকে দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করব।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

সরাইলে প্রথম শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ চেষ্টা

আপডেট সময় ০৩:০৭:০৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩১ মে ২০২৩

সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি:
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে প্রথম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে (৬) ধর্ষণের চেষ্টাকালে হাতেনাতে ধরা পড়েছে ৫ সন্তানের জনক বিল্লাল মিয়া (৫০) নামের এক লম্পট।

বুধবার শিশুটির পিতা বাদী হয়ে সরাইল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে বিল্লাল মিয়ার বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।
গত রোববার (২৮ মে) দুপুরের দিকে উপজেলার অরুয়াইল ইউনিয়নের রানীদিয়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে।

ঘটনার পরেই পালিয়ে গেছে বিল্লাল। লম্পট বিল্লালের তান্ডবে এখনো ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে আছে শিশুটি।

মামলা ও ছাত্রীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, ৫ সন্তানের জনক বিল্লাল। শিশুটি রানীদিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী। বিল্লালের বসতঘরও শিশুদের পাশাপাশি। ওই ছাত্রী বিল্লালকে বড় আব্বা ডাকতো বলে জানা গেছে।
গত রোববার দুপুরে স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পর আম দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে শিশুটিকে তার বসত ঘরে নেয় বিল্লাল। শিশুটি ঘরে প্রবেশ করার পরই ভেতরের দিক থেকে দরজা লাগিয়ে দেয় বিল্লাল। শিশুটিকে ভয়ভীতি দেখিয়ে বিবস্ত্র করে দেহের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে সে। শিশুটির চিৎকারে দৌঁড়ে আসে তার মা। দরজা বন্ধ দেখে তিনিও চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করেন। তখন অন্যান্য প্রতিবেশীরা ছুটে আসেন। সকলের চাপাচাপিতে বিল্লাল দরজা খুলে দেয়। ভেতরে গিয়ে কান্নারত ও বিবস্ত্র অবস্থায় থাকা শিশুটিকে উদ্ধার করেন তারা। উপস্থিত লোকজন এই অপকর্ম সম্পর্কে বিল্লালকে জিজ্ঞাসা করলে উত্তেজিত হয়ে শিশুর পিতা মাতাকে হত্যার হুমকি দেয় সে। ঘটনার পর থেকে আতঙ্ক আর শঙ্কায় সময় পার করছেন শিশুর পিতা মাতা।

স্থানীয় একাধিক ব্যক্তি বলেন, ঘরে স্ত্রী ও পাঁচ সন্তান রেখে এমন জঘন্য কাজ কিভাবে করতে পারে? আব্বা ডাকে মেয়েটার দিকে তার কুনজর গেল কিভাবে? সে আগেও এমন অনেক ঘটনা ঘটিয়েছে। আমরা তার বিচার চাই।

ছাত্রীর বাবা বলেন, আমার শিশু বাচ্চাটা তাকে সবসময় বড় আব্বা বলে ডাকে। নিজের মেয়ের মত শিশু বাচ্চাটাকে ধর্ষণ করার চেষ্টা কিভাবে করতে পারে? আমি বিল্লালের দৃষ্টান্তমূলক সর্বোচ্চ বিচার দাবী করছি।

সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আসলাম হোসেন বলেন, শিশুটি আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দী দিয়েছে। বিল্লাল শিশুটিকে ধর্ষণের চেষ্টাকালেই লোকজন হাজির হয়ে গেছে। এর আগেও এমন একাধিক ঘটনা ঘটিয়েছে বিল্লাল। আমরা তাকে দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করব।