• সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ১২:২২ অপরাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
শিরোনাম
ধোপাজান চলতি নদীতে ৮টি নৌকা আটক, ২ লক্ষ টাকা জরিমানা পাচার বাণিজ্যে মতানৈক্যের জেরে সীমান্তে অপহৃত নাবালক ৬ চিকিৎসক নিয়ে ধুঁকে ধুঁকে চলছে বরগুনা সরকারি হাসপাতাল সামাজিক দূরত্ব ভুলে রাসিক মেয়র লিটনের খাদ্য সামগ্রী বিতরন সলঙ্গায় ১০কেজি গাঁজাসহ মাদক ব‍্যবসায়ী আটক বরুড়ায় ১৫০ অক্সিজেন সিলিন্ডার দিলেন এসকিউ গ্রুপের শফিউদ্দিন শামীম বাবার মৃত্যুর একদিন পর মাকেও হারালেন সহকারী এটর্নি জেনারেল এড. ফারুক সাতক্ষীরা শহরের বাগানবাড়িতে ভূমিহীনদের পুর্নবাসনের দাবিতে উঠান বৈঠক আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে আনতে হবে: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মুরাদনগরে দিনব্যাপী ডিউটি অফিসারের ভূমিকায় এএসপি
বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈনিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ ।

সরাইলে প্রবাসীর বাড়িতে দূর্ধর্ষ ডাকাতিঃ আটক-১

news / ১০০ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় সোমবার, ১৯ জুলাই, ২০২১

সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে প্রবাসীর বাড়িতে দূর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। প্রবাসী শফিকুল ইসলাম (৪০) বাড়িতে দূর্ধর্ষ ডাকাতি হয়েছে। ডাকাতি শেষে যাওয়ার সময় রাসেল (৩০) নামের এক ডাকাতকে জাবরে ধরে আটক করে ফেলেছেন গৃহকর্তী ফুলকিছ বেগম (৩০)।

গত রোববার দিবাগত রাতে উপজেলার আইরল গ্রামে এ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় মামলা করতে রাজি হননি শফিকুল। তবে পুলিশ ভিন্ন পন্থায় মালামাল উদ্ধার ও ডাকাত দলের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য কাজ করছেন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, সৌদী প্রবাসী শফিকুল নোয়াগাঁও ইউনিয়নের আইরল গ্রামে সড়কের পাশেই তার বাড়ি। বাড়ির পাশেই তার এক স্বজনের একটি গরুর ঘর রয়েছে। রোববার রাতে ওই গরুর ঘরে ঘুমিয়ে ছিলেন শফিকুল। আর তার বসত ঘরে ঘুমিয়ে ছিল স্ত্রী ফুলকিছ ও সন্তানরা। রাত ২টার দিকে বাড়ির পেছন দিয়ে ৭-৮ জনের সংঘবদ্ধ মুখোশ পড়া একদল ডাকাত প্রবেশ করে। এর আগে তারা যে ঘরে ঘুমিয়ে আছে সেই ঘরে বাহিরের দিকে তালাবদ্ধ করে দেয়। তারা প্রথমে শফিকুলের বসত ঘরের কলাপসিবল গেইটের তালা ভেঙ্গে ফেলে। ভেতরে প্রবেশ করেই ফুলকিছ বেগম ও তার সন্তানদের মারধর করে। পরে অস্ত্রের মুখে সকলকে জিম্মি করে। পরে আলমিরার তালা ভেঙ্গে নগদ ১লাখ ২০ হাজার টাকা, দেড় ভরি ওজনের স্বর্ণলঙ্কার, মুঠোফোন সেট সহ প্রায় ৩ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। ডাকাতি শেষে দল বেঁধে যেতে থাকে ডাকাতরা। এ সময় ফুলকিছ বেগম দৌঁড়ে গিয়ে সবার পেছনে থাকা ডাকাত দলের এক সদস্যকে পেছনের দিক থেকে জাবরে ধরে ফেলে। পরে ডাকাত ডাকাত বলে চিৎকার করতে থাকেন। প্রাণ ভয়ে ডাকাত দলের অন্য সদস্যরা দৌঁড়ে পালিয়ে যায়। গৃহকর্তীর চিৎকারে স্বজন ও আশপাশের লোকজন দৌঁড়ে আসেন। আটককৃত ডাকাতকে উত্তম মাধ্যম দেয়।

সোমবার ভোরে ঘটনাস্থলে পৌঁছেন পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. কবির হোসেন। তিনি ডাকাত রাসেলকে থানায় নিয়ে আসেন। ডাকাত রাসেল বরগুনা জেলার গোবাখালি থানার বামনা গ্রামের আবদুল আজিজের ছেলে। এ ঘটনায় মামলা দিতে রাজি হননি শফিকুল ও তার স্ত্রী ফুলকিছ। এমনকি গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে ডাকাতির বিষয়ে তথ্য দিতেও অনীহা প্রকাশ করছেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত রাসেলকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছিল।

সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আসলাম হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ পর্যন্ত ১২ ডাকাতকে গ্রেপ্তার করেছি। শীর্ষ স্থানীয় ডাকাত সর্দারকেও গ্রেপ্তার করতে পেরেছি। এ ঘটনার সাথে জড়িতদের খুঁজে বের করার কাজ চলছে । দ্রুত সময়ের মধ্যে জড়িতদের গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনতে পারব।


এই বিভাগের আরো সংবাদ