সিলেটে থানায় জিডির ৮দিন পর যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্বার

স্টাফরিপোর্টার, সিলেট: সিলেটে থানায় জিডির ৮দিন পর সুমন নামের এক যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্বার করা হয়েছে।

শহরের পূর্ব ভাটপাড়া আবাসিক এলাকার মৃত জহুর আলীর ছেলে শামীম এর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। সুমন তার স্ত্রী ও সন্তান নিয়ে ভাড়ায় থাকতেন শামীমের বাড়ীতে। আর সুমনের পরিবার ভাড়া থাকেন সিলেট শহরের শাহপরানের নীপবন আবাসিক এলাকায়।

জানা গেছে, তাহার স্ত্রীর পরকীয়া সম্পর্ক ছিল বাসার মালিক শামীমের সাথে। এ নিয়ে তাদের মনোমালিন্য ছিলো। এক পর‌্যায়ে তারা আলাদা হয়ে যায়। এ নিয়ে গত ০২/০৭/২০২১ ইং তারিখে সুমন শাহপরান থানায় একটি সাধারন ডায়রী করেন এই বলে যে, সুমনের শ্বশুর বাড়ীর লোকজন সুমনকে মারধর করেছে এবং যেকোন সময় তার উপর বড় ধরনের ঘটনা ঘটতে পারে এমন আশংঙ্কা ও প্রকাশ করেন সুমন। পরবর্তীতে ৮ দিনের মাথায় সুমনের ঝুলন্ত লাশ পাওয়া যায়।

পরিবারের দাবী সুমন তাহার স্ত্রীকে ডিভোর্স দিতে না চাইলেও সালিশের মাধ্যমে সুমনকে তাহার স্ত্রী থেকে আলাদা করা হয়। এতে সুমনের দুই বছরের মেয়েকে সমজাইয়া সুমনের সাথে এবং ৬ বছরের ছেলেকে সুমনের স্ত্রীর কাছে দেন। পরবর্তীতে এলাকার ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার সুমনকে ফোন করে তার মেয়েকে মায়ের কাছে দিয়ে আসতে বলেন। সুমন মেয়েকে দিয়ে আসতে গিয়ে হত্যার শিকার হন। তারা আরো বলেন সুমন প্রায় সময় বলতো তাহার স্ত্রীর পরকীয়া সম্পর্ক ছিল বাসার মালিক শামীমের সাথে। সুমন আগেই আশংকা করেছিলেন যেকোন সময় তার উপর এমন বর্বরোচিত হামলার ঘটনা ঘটতে পারে।
সুমনের চাচা বলেন আমার ভাতিজার পায়ের আঙুল ও ডান পায়ে রক্তাক্ত জখম লক্ষ্য করা গেছে এবং তারা থানার পুলিশ অফিসারদের এগুলো দেখিয়েছেন।
সুমনের ভাই ও সুমনের চাচা ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে বিচার দাবী করেন। অন্যদিকে সুমনের স্ত্রী ও শ্বাশুড়ি সুমনকে নেশাগ্রস্ত ও মাদক ব্যবসায়ী বলে প্রশাসনের কাছে দাবী করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *