ঢাকা ০৩:২৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সোনাগাজীতে বিধবাকে উচ্ছেদ করতে তার কন্যাকে হত্যার চেষ্টা

ফেনীর সোনাগাজীতে জাহানারা বেগম নামে এক বিধবাকে বসত বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করতে তার কন্যাকে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে প্রতিপক্ষের লোকজন। কাটা তারের বেড়া দিয়ে অবরুদ্ধ করার পাঁয়তারাও করছে দুর্বৃত্তরা।সোনাগাজী উপজেলার সদর ইউনিয়নের পূর্ব সুজাপুর গ্রামে বিধবা জাহানারা বেগমের বাড়িতে বৃহস্পতিবার সকালে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার ও এলাকাবাসী জানায়, মৃত নুরনবীর স্ত্রী বিধবা জাহানারা বেগম পিতার সম্পত্তিতে ঘর নির্মাণ করে তিন সন্তান নিয়ে দীর্ঘ দিন যাবৎ বসবাস করছেন। প্রতিবেশী প্রতিপক্ষ আমিন উল্যাহর ছেলে পারভেজ ও তার ভগ্নিপতি আবদুল শুক্কুর বাড়ি থেকে বিধবাকে উচ্ছেদ করতে নানাভাবে অত্যাচার নির্যাতন চালিয়ে আসছে। ইতোপূর্বে চলাচলের পথও বন্ধ করে দিয়েছিল। বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মীমাংসাও হয়েছিল।

গত ২৬ মার্চ ওই বিধবার বসতঘর ঘেঁষে পারভেজ কাটা তারের বেড়া দেয়। সে বাধা দিলে তাকে সন্তানদের সহ হত্যার হুমকি দিয়ে গালমন্দ করেন। সে নিরুপায় হয়ে কাটা তারের বেড়া সরাতে ও জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে সোনাগাজী মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে পারভেজ, তার ভগ্নিপতি আবদুল শুক্কুর, বোন কমলা বেগম ও খালেদা বেগম বিধাবার কন্যা ফিরোজা বেগমকে সকাল নয়টার দিকে বসত ঘর থেকে তুলে নিয়ে বাড়ির সামনে রাস্তার উপর এলোপাথাড়ি পিটিয়ে ও কাস্তে দিয়ে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা চালায়। তার আত্মচিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে এসে উদ্ধার করে তাকে সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

এ ঘটনায় জাহানারা বেগম বাদী হয়ে চারজনের নাম উল্লেখ করে সোনাগাজী মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

সোনাগাজী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ খালেদ হোসেন দাইয়্যান অভিযোগ প্রাপ্তির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে দ্রুত আসামিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

সোনাগাজীতে বিধবাকে উচ্ছেদ করতে তার কন্যাকে হত্যার চেষ্টা

আপডেট সময় ০২:৪২:০৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মার্চ ২০২৩

ফেনীর সোনাগাজীতে জাহানারা বেগম নামে এক বিধবাকে বসত বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করতে তার কন্যাকে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে প্রতিপক্ষের লোকজন। কাটা তারের বেড়া দিয়ে অবরুদ্ধ করার পাঁয়তারাও করছে দুর্বৃত্তরা।সোনাগাজী উপজেলার সদর ইউনিয়নের পূর্ব সুজাপুর গ্রামে বিধবা জাহানারা বেগমের বাড়িতে বৃহস্পতিবার সকালে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার ও এলাকাবাসী জানায়, মৃত নুরনবীর স্ত্রী বিধবা জাহানারা বেগম পিতার সম্পত্তিতে ঘর নির্মাণ করে তিন সন্তান নিয়ে দীর্ঘ দিন যাবৎ বসবাস করছেন। প্রতিবেশী প্রতিপক্ষ আমিন উল্যাহর ছেলে পারভেজ ও তার ভগ্নিপতি আবদুল শুক্কুর বাড়ি থেকে বিধবাকে উচ্ছেদ করতে নানাভাবে অত্যাচার নির্যাতন চালিয়ে আসছে। ইতোপূর্বে চলাচলের পথও বন্ধ করে দিয়েছিল। বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মীমাংসাও হয়েছিল।

গত ২৬ মার্চ ওই বিধবার বসতঘর ঘেঁষে পারভেজ কাটা তারের বেড়া দেয়। সে বাধা দিলে তাকে সন্তানদের সহ হত্যার হুমকি দিয়ে গালমন্দ করেন। সে নিরুপায় হয়ে কাটা তারের বেড়া সরাতে ও জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে সোনাগাজী মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে পারভেজ, তার ভগ্নিপতি আবদুল শুক্কুর, বোন কমলা বেগম ও খালেদা বেগম বিধাবার কন্যা ফিরোজা বেগমকে সকাল নয়টার দিকে বসত ঘর থেকে তুলে নিয়ে বাড়ির সামনে রাস্তার উপর এলোপাথাড়ি পিটিয়ে ও কাস্তে দিয়ে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা চালায়। তার আত্মচিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে এসে উদ্ধার করে তাকে সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

এ ঘটনায় জাহানারা বেগম বাদী হয়ে চারজনের নাম উল্লেখ করে সোনাগাজী মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

সোনাগাজী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ খালেদ হোসেন দাইয়্যান অভিযোগ প্রাপ্তির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে দ্রুত আসামিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।