ঢাকা ১০:৩৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
Logo রূপসায় ইটভাটার মাটিতে সড়ক বেহাল দশা : হালকা বৃষ্টিতে একের পর এক দূর্ঘটনা Logo জুয়েলারি খাতে আরোপিত শুল্ক হার কমানো ও আর্থিক প্রণোদনার প্রস্তাব বাজুসের Logo বাড়ির পাশে রাস্তার ঢালাই ঢালু হওয়ার অভিযোগে স্ত্রিকে কুপিয়ে জখম Logo দেবিদ্বারে ১৭ কোটি টাকা ব্যয়ে সড়ক উন্নয়নের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন Logo বড়পুকুরিয়া কয়লাখনিতে স্থানীয়দের ক্ষতিপূরণের দাবি Logo রূপগঞ্জে পূর্বশত্রুতার জেরে দুই জনকে পিটিয়ে আহত : থানায় পাল্টা পাল্টি অভিযোগ Logo শিশুর খতনায় অতিরিক্ত রক্তপাত, উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসারকে বদলি Logo বরুড়া উপজেলা যুব রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ১৫ সদস্যের কমিটি অনুমোদন Logo যশোরে ট্রাক ও মোটরসাইকেলে মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত -২, ঘাতক ট্রাক আটক Logo বনিকপাড়া’র বার্ষিক মহোৎসব শুরু
দশম জাতীয় কবি সম্মেলন অনুষ্ঠিত।মুক্তিযুদ্ধের চেতনাই কবিসংসদ বাংলাদেশের মূল ভিত্তি : প্রফেসর মু. নজরুল ইসলাম তামিজী

স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে কবি সাহিত্যিকদের ভূমিকা রাখতে হবে: আ ক ম মোজাম্মেল হক

কবি সংসদ বাংলাদেশ কর্তৃক ১৯ মে ২০২৩ শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত রাজধানীর পল্লীকবি জসীমউদ্দীনের বাসভবনে অনুষ্ঠিত হয় জাতীয় কবি সম্মেলন ২০২৩। সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি। মুল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন মানবাধিকার তাত্ত্বিক, সমাজবিজ্ঞানী ও কবিসংসদ বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন এর চেয়ারম্যান প্রফেসর মু. নজরুল ইসলাম তামিজী। কবি সংসদ বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় সভাপতি রাজু আলীম এর সভাপতিত্বে সকাল ১০টায় সম্মেলন উদ্বোধনী পর্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলা একাডেমি পুরস্কার প্রাপ্ত কবি ও সাংবাদিক নাসির আহমেদ।
কোরআন থেকে তেলাওয়াত, গীতা পাঠ, ও জাতীয় সঙ্গীতের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, দশম জাতীয় কবি সম্মেলন এর আহবায়ক কবি ও কথা সাহিত্যিক জয়শ্রী দাস। দিনব্যাপী সম্মেলনে সঞ্চালক ছিলেন কবি সংসদ বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক কবি ও ছড়াকার তৌহিদুল ইসলাম কনক। উদ্বোধনী অতিথি ছিলেন লেখক গবেষক মোস্তাক আহমাদ, জাগ্রত সাহিত্য পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা কবি শিহাব রিফাত আলম, ২৯তম বঙ্গবন্ধু কবিতা উৎসবের আহ্বায়ক অধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলী খান চৌধুরী মানিক। বিশেষ অতিথি ছিলেন কবি ও সাংবাদিক অশোক ধর, দৈনিক মুক্তির লড়াই সম্পাদক কামরুজ্জামান জনি, কবি আসাদ কাজল, ডক্টর ফোরকান উদ্দিন আহমেদ, নির্বাহী সভাপতি কবি ও সাংবাদিক আমিনুল রানা, গীতিকবি এমএ করিম, কবি শামস মনোয়ার, ভারতীয় কবি জয়ন্তী চক্রবর্তী, বাপসা এর সাবেক সভাপতি এইচ এম রেজাউল করিম তুহিন, ড. এম শহীদুল ইসলাম এডভোকেট, বাপসা সাবেক সভাপতি শেখ মো. হাবিবুর রহমান, কবি মালেক মাহমুদ, কবি ও সাংবাদিক আব্দুর রশিদ চৌধুরী, কবি এম আর মঞ্জু, বাপসা সাংগঠনিক সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব প্রমুখ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি বলেন, ‘স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে কবি সাহিত্যিকদের ভূমিকা রাখতে হবে। স্বাধীনতাকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে ও বর্তমান সরকারকে বিব্রত করতে বিরোধীরা অব্যাহতভাবে চেষ্টা করে যাচ্ছে। এ অপশক্তি যাতে দেশে শেকড় গাঢ়তে না পারে সে জন্য কবি সাহিত্যিক ও মুক্তিযুদ্ধের সকল পক্ষকে সচেতন থাকতে হবে’।
মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনকালে প্রফেসর মু. নজরুল ইসলাম তামিজী বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনাই কবিসংসদ বাংলাদেশের মূল ভিত্তি। ‘বঙ্গবন্ধু কবিতা উৎসব’ শিরোনামে এ পর্যন্ত মোট ২৮টি এবং দেশের জেলা পর্যায়ে শতাধিক আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ৪টি কবি সম্মেলন করেছে এ সংগঠন। নবীন কবিদের প্রশিক্ষণ কেন্দ্র হিসেবে কবিসংসদ বাংলাদেশের ভূমিকা প্রশংসনীয়’।
সারা দেশ থেকে আগত ২০০ কবি জাতীয় কবি সম্মেলনে অংশগ্রহণ করেন। স্বরচিত কবিতা পাঠ করেন কবি ইকবাল হোসেন, কবি সুপর্ণা দাস, কবি রেবেকা রিবা, কবি শিপন হোসেন মানব, কবি মাদবর রফিক, কবি প্রদীপ মিত্র, কবি ফারুক প্রধান, কবি অরণ্য মজিদ,কবি কুমকুম কবির, ড. হাফিজুর রহমান, মোহাম্মাদ মাসুম বিল্লাহ, অনুরাধা রায়, হালিমা বেগম, কবি মঈনুল ইসলাম টিপু, কবি রুবেল আহমেদ, কবি সম হাফিজুল ইসলাম, কবি মাহমুদা খানম, কবি মায়াবী হোসাইন, কবি কামরুল ইসলাম, জামাল উদ্দিন দামাল, কবি নমিতা সরকার, কবি রানা মুসাফির, কবি ও সাংবাদিক আতাউল্লাহ খান, জালাল উদ্দিন নলুয়া, লুৎফা জালাল, কবি আলী মুহাম্মদ লিয়াকত, কবি শেখ আবদুল চাষী। পালকি শিল্পীগোষ্ঠীর সার্বিক সহযোগিতায় জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের বিদ্রোহী কবিতায় অভিনয় করেন অভিনেতা এবি বাদল।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

রূপসায় ইটভাটার মাটিতে সড়ক বেহাল দশা : হালকা বৃষ্টিতে একের পর এক দূর্ঘটনা

দশম জাতীয় কবি সম্মেলন অনুষ্ঠিত।মুক্তিযুদ্ধের চেতনাই কবিসংসদ বাংলাদেশের মূল ভিত্তি : প্রফেসর মু. নজরুল ইসলাম তামিজী

স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে কবি সাহিত্যিকদের ভূমিকা রাখতে হবে: আ ক ম মোজাম্মেল হক

আপডেট সময় ০১:০৯:৪৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ মে ২০২৩

কবি সংসদ বাংলাদেশ কর্তৃক ১৯ মে ২০২৩ শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত রাজধানীর পল্লীকবি জসীমউদ্দীনের বাসভবনে অনুষ্ঠিত হয় জাতীয় কবি সম্মেলন ২০২৩। সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি। মুল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন মানবাধিকার তাত্ত্বিক, সমাজবিজ্ঞানী ও কবিসংসদ বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন এর চেয়ারম্যান প্রফেসর মু. নজরুল ইসলাম তামিজী। কবি সংসদ বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় সভাপতি রাজু আলীম এর সভাপতিত্বে সকাল ১০টায় সম্মেলন উদ্বোধনী পর্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলা একাডেমি পুরস্কার প্রাপ্ত কবি ও সাংবাদিক নাসির আহমেদ।
কোরআন থেকে তেলাওয়াত, গীতা পাঠ, ও জাতীয় সঙ্গীতের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, দশম জাতীয় কবি সম্মেলন এর আহবায়ক কবি ও কথা সাহিত্যিক জয়শ্রী দাস। দিনব্যাপী সম্মেলনে সঞ্চালক ছিলেন কবি সংসদ বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক কবি ও ছড়াকার তৌহিদুল ইসলাম কনক। উদ্বোধনী অতিথি ছিলেন লেখক গবেষক মোস্তাক আহমাদ, জাগ্রত সাহিত্য পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা কবি শিহাব রিফাত আলম, ২৯তম বঙ্গবন্ধু কবিতা উৎসবের আহ্বায়ক অধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলী খান চৌধুরী মানিক। বিশেষ অতিথি ছিলেন কবি ও সাংবাদিক অশোক ধর, দৈনিক মুক্তির লড়াই সম্পাদক কামরুজ্জামান জনি, কবি আসাদ কাজল, ডক্টর ফোরকান উদ্দিন আহমেদ, নির্বাহী সভাপতি কবি ও সাংবাদিক আমিনুল রানা, গীতিকবি এমএ করিম, কবি শামস মনোয়ার, ভারতীয় কবি জয়ন্তী চক্রবর্তী, বাপসা এর সাবেক সভাপতি এইচ এম রেজাউল করিম তুহিন, ড. এম শহীদুল ইসলাম এডভোকেট, বাপসা সাবেক সভাপতি শেখ মো. হাবিবুর রহমান, কবি মালেক মাহমুদ, কবি ও সাংবাদিক আব্দুর রশিদ চৌধুরী, কবি এম আর মঞ্জু, বাপসা সাংগঠনিক সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব প্রমুখ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি বলেন, ‘স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে কবি সাহিত্যিকদের ভূমিকা রাখতে হবে। স্বাধীনতাকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে ও বর্তমান সরকারকে বিব্রত করতে বিরোধীরা অব্যাহতভাবে চেষ্টা করে যাচ্ছে। এ অপশক্তি যাতে দেশে শেকড় গাঢ়তে না পারে সে জন্য কবি সাহিত্যিক ও মুক্তিযুদ্ধের সকল পক্ষকে সচেতন থাকতে হবে’।
মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনকালে প্রফেসর মু. নজরুল ইসলাম তামিজী বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনাই কবিসংসদ বাংলাদেশের মূল ভিত্তি। ‘বঙ্গবন্ধু কবিতা উৎসব’ শিরোনামে এ পর্যন্ত মোট ২৮টি এবং দেশের জেলা পর্যায়ে শতাধিক আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ৪টি কবি সম্মেলন করেছে এ সংগঠন। নবীন কবিদের প্রশিক্ষণ কেন্দ্র হিসেবে কবিসংসদ বাংলাদেশের ভূমিকা প্রশংসনীয়’।
সারা দেশ থেকে আগত ২০০ কবি জাতীয় কবি সম্মেলনে অংশগ্রহণ করেন। স্বরচিত কবিতা পাঠ করেন কবি ইকবাল হোসেন, কবি সুপর্ণা দাস, কবি রেবেকা রিবা, কবি শিপন হোসেন মানব, কবি মাদবর রফিক, কবি প্রদীপ মিত্র, কবি ফারুক প্রধান, কবি অরণ্য মজিদ,কবি কুমকুম কবির, ড. হাফিজুর রহমান, মোহাম্মাদ মাসুম বিল্লাহ, অনুরাধা রায়, হালিমা বেগম, কবি মঈনুল ইসলাম টিপু, কবি রুবেল আহমেদ, কবি সম হাফিজুল ইসলাম, কবি মাহমুদা খানম, কবি মায়াবী হোসাইন, কবি কামরুল ইসলাম, জামাল উদ্দিন দামাল, কবি নমিতা সরকার, কবি রানা মুসাফির, কবি ও সাংবাদিক আতাউল্লাহ খান, জালাল উদ্দিন নলুয়া, লুৎফা জালাল, কবি আলী মুহাম্মদ লিয়াকত, কবি শেখ আবদুল চাষী। পালকি শিল্পীগোষ্ঠীর সার্বিক সহযোগিতায় জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের বিদ্রোহী কবিতায় অভিনয় করেন অভিনেতা এবি বাদল।