• শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ০৭:৩৯ পূর্বাহ্ন
  • Arabic Arabic Bengali Bengali English English
শিরোনাম
হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আটক করেছে র‌্যাব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চলমান ছুটি বাড়লো ৩১ আগষ্ট পর্যন্ত হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ মাদক উদ্ধার নবীগঞ্জে বিধিনিষেধ অমান্য করায় জরিমানা পবায় প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় পরিবারের মাঝে ঢেউটিন বিতরণ সরাইলে নমুনা দেয়ার আগেই ঢলে পড়লেন মৃত্যুর কোলে শনিবার থেকে নিবন্ধনকারীদের করোনার টিকা দেওয়া হবে রাজশাহী টিচার্স ট্রেনিং কলেজে পবায় কোভিড-এ ক্ষতিগ্রস্ত পল্লী উদ্যোক্তাদের মাঝে প্রণোদনা ঋণ বিতরণ উল্লাপাড়ায় স্বেচ্ছায় রাস্তা সংস্কার কঠোর লকডাউনে বাড়েনি সবজির দাম, সাধারণ মানুষর স্বস্তি ফিরলেও দুঃশ্চিন্তায় চাষীরা
বিজ্ঞাপন
মুক্তিকামী জনতার দৈদিক 'মুক্তির লড়াই' পত্রিকার জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে একদন করে ব্যুরো চীফ, প্রতি জেলা ও উপজেলার একজন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আবেদন করুন। যোগাযোগের ঠিকানাঃ কামরুজ্জামান জনি- সম্পাদক, মুক্তির লড়াই। ইমেইলঃ jobmuktirlorai@gmail.com । ধন্যবাদ

খুলনায় মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের উদ্বোধন

news / ৭৮ বার ভিউ করা হয়েছে
বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার, ১০ জুন, ২০২১

নাহিদ জামান, খুলনা প্রতিনিধিঃ খুলনা মহানগরের আলিয়া মাদরাসা প্রাঙ্গণে নির্মিত মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের শুভ উদ্বোধন করেন আজ ১০ জুন বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
দেশের সকল জেলা ও উপজেলায় ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপন’ প্রকল্পের আওতায় খুলনা মহানগরে উক্ত মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মিত হয়। আজ প্রথম পর্যায়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্তের জেলা ও উপজেলায় নির্মিত ৫০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের শুভ উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে গণ ভবন থেকে প্রধান অতিথি হিসেবে দেশের ৫০টি জেলা ও উপজেলার সাথে সংযুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এদিকে খুলনা প্রান্তে খুলনা জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, মোহাম্মদ হেলাল হোসেনের সঞ্চালনায় মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে উপস্থিত ছিলেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, খুলনার বিভাগীয় কমিশনার মোঃ ইসমাইল হোসেন এনডিসি, কেএমপি’র পুলিশ কমিশনার মাসুদুর রহমান ভূঞা, খুলনার রেঞ্জ ডিআইজি ড. খঃ মহিদ উদ্দিন, খুলনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশিদ, পুলিশ সুপার মোঃ মাহবুব হাসান, খুলনা মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা, খুলনা প্রেস ক্লাবের সভাপতি এস এম জাহিদ হোসেন প্রমুখ।
খুলনা জেলা প্রশাসক তাঁর বক্তব্যে বলেন, “অনন্যসাধারণ এই উদ্যোগে মুসলিমপ্রধান বাংলাদেশে ইসলাম ধর্ম পালন, ইসলামিক সংস্কৃতি চর্চা ও মূল্যবোধের বিকাশের নিমিত্ত ধর্ম মন্ত্রণালয়ের আওতায় ইসলামিক ফাউন্ডেশন কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন ‘দেশের সকল জেলা ও উপজেলায় ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপন’ প্রকল্পটি নিঃসন্দেহে সমগ্র মুসলিম বিশ্বে ইসলামের প্রসার ও উৎকর্ষ সাধনে গৃহীত পদক্ষেপ হিসেবে নজিরবিহীন ও অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।” প্রধানমন্ত্রী খুলনা জেলার একজন উপকারভোগী মুসল্লির সাথে কথা বলার অভিপ্রায় ব্যক্ত করেন। খুলনা প্রান্ত থেকে একজন ধর্মপ্রাণ মুসল্লি তার অভিজ্ঞতার কথা বর্ণনা করে সন্তোষ প্রকাশ করেন এবং এমন উদ্যোগ গ্রহণের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।
উল্লেখ্য, জেলা সদর ও সিটি কর্পোরেশন এলাকায় নির্মানাধীন অত্যাধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্বলিত দৃষ্টিনন্দন এ সকল মসজিদের প্রতিটিতে একসাথে ১২০০ মুসল্লি নামাজ আদায় করতে পারবেন। উপজেলা ও উপকূলীয় এলাকার মডেল মসজিদে একত্রে ৯০০ মুসল্লির নামাজ আদায়ের ব্যবস্থা থাকবে। সারাদেশে এসব মসজিদে প্রতিদিন ৪ লাখ, ৯৪ হাজার ২০০ জন পুরুষ, ও ৩১ হাজার ৪০০ জন নারী একসঙ্গে নামাজ আদায় করতে পারবে। সাধারণ মুসল্লিগণ নির্মিত মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের নানাবিধ সুযোগ পাবেন। সুবিধাগুলোর মধ্যে রয়েছে, নারী ও পুরুষদের পৃথক ওজু ও নামাজ আদায়ের সুবিধা, প্রতিবন্ধী মুসল্লিদের টয়লেটসহ নামাজের পৃথক ব্যবস্থা, ইসলামিক বই বিক্রয় কেন্দ্র, ইসলামিক লাইব্রেরি, অটিজম কর্নার, ইমাম ট্রেনিং সেন্টার, ইসলামিক গবেষণা ও দীনি দাওয়া কার্যক্রম, পবিত্র কুরআন হেফজখানা, শিশু ও গণশিক্ষার ব্যবস্থা, দেশি-বিদেশি পর্যটকদের আবাসন ও অতিথিশালা, মরদেহ গোসল ও কফিন বহনের ব্যবস্থা, ইমামের প্রশিক্ষণ, ইমাম-মুয়াজ্জিনের আবাসনসহ সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে কর্মকর্তা কর্মচারীদের অফিসের ব্যবস্থা।
মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে খুলনা প্রান্তে আরো উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ, জেলা প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ, গণপুর্তের নির্বাহী প্রকৌশলী, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পরিচালক, ইমাম পরিষদের সভাপতি, প্রেসক্লাবের সভাপতি, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও সাংবাদিকবর্গসহ স্থানীয় মুসল্লিগণ।


এই বিভাগের আরো সংবাদ