ডুমুরিয়ায় খুলনা জেলা প্রশাসকের ধান কাটা উৎসব পরিদর্শন

নাহিদ জামান, খুলনা প্রতিনিধি: সারা দেশের ন্যায় খুলনাতেও মহাসমারোহে চলছে ধান কাটার আয়োজন। ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা নিয়ে আজ ২৭ এপ্রিল মঙ্গলবার খুলনার ডুমুরিয়ায় উদযাপিত হলো ধান কাটা উৎসব।
ধান কাটা উৎসবে খুলনা জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, মোহাম্মদ হেলাল হোসেন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ‘নমুনা শস্য কর্তন’-এর মাধ্যমে ধান কাটা উৎসবের শুভ সূচনা করেন।
এই বছর খুলনা জেলার ৬০,১২৫ (ষাট হাজার একশত পচিশ) হেক্টর জমিতে বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। বর্তমান সরকার কর্তৃক কৃষিতে ভর্তুকি প্রদান এই বাম্পার ফলনে সহায়ক ভূমিকা রেখেছে। কৃষকদের প্রণোদনা, পচিশ হাজার কৃষকের প্রত্যেককে ২ কেজি করে উন্নত মানের বীজ এবং কৃষক প্রতি ১০ কেজি করে পটাশ (এমওপি) ও ২০ কেজি করে ডিএপি সরবরাহ করায় ধানের উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রাকে ছাড়িয়ে গেছে।
ধান কাটা উৎসবে জেলা প্রশাসকের সাথে উপস্থিত ছিলেন খুলনার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসান, খুলনার উপ-পরিচালক কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর মোঃ হাফিজুর রহমান, খুলনা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মোঃ সাদিকুর রহমান খান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আব্দুল ওয়াদুদ এবং ডুমুরিয়ার উপজেলা চেয়ারম্যান এজাজ আহমেদ।
অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক উপস্থিত প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকদের বলেন, করোনাকালীন সময়ে দেশের কৃষি অর্থনীতি ও উৎপাদন ঠিক রাখতে সরকার কৃষকদের প্রণোদনা দিয়েছেন এবং কৃষি উপকরণের যথাযথ সরবরাহ নিশ্চিত করেছেন। স্থানীয় প্রশাসন কর্তৃক খুলনার কৃষকদের মাঝে সরকার প্রদত্ত প্রণোদনা ও কৃষি উপকরণের সুষম বণ্টন নিশ্চিত করায় এবং সেই সাথে সরকারের নিয়মিত কৃষি বার্তা, কৃষি বিষয়ক পরামর্শ প্রদান এবং কৃষি বিভাগের নিবিড় কার্যক্রমের মাধ্যমে এই বাম্পার ফলন সম্ভব হয়েছে। তিনি আরো বলেন, খুলনার সাথে সারাদেশে এ বছর যে আশা ব্যাঞ্জক ফলন হয়েছে তা আমাদের খাদ্য নিরাপত্তাকে আরো সুসংহত করবে। কোভিড কালীন শত চ্যালেঞ্জের মধ্যে প্রধান মন্ত্রীর দৃঢ় নেতৃত্ব ও একান্ত সহযোগিতায় এমন অর্জন সত্যিই বিস্ময়কর ও গৌরবের বলেও তিনি অভিমত ব্যক্ত করেন।
অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ মোছাদ্দেক হোসেন, ডুমুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আমিনুল ইসলাম, উপজেলার বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ, স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্যগণ এবং প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকগণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *