মহেশপুরে অন্যান্য নিত্য পণ্যের সঙ্গে পাল্লা দিয়েই বেড়েছে মৌসুমি ফলের দাম

ডাবের সর্বোচ্চ দাম মহেশপুরে

শাহিনুর রহমান পিন্টু, ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ একদিকে চলছে রোজার মাস, অন্যদিকে প্রচণ্ড দাবদাহ। সারাদিন রোজা রেখে ইফতারের সময় অধিকাংশ মানুষ চাইছেন একটু ফল খেতে। কিন্তু ঝিনাইদহ মহেশপুরে অন্যান্য নিত্য পণ্যের সঙ্গে পাল্লা দিয়েই বেড়েছে তরমুজ, ডাব, কলা, তাল, আনারস, বাঙ্গির দাম। বাজারে আম আসতে শুরু করলেও দামের জন্য কিনতে পারছেন না ক্রেতারা।
বৃহস্পতিবারে বিভিন্ন এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আকারভেদে প্রতি পিস ডাব ৬০ টাকা থেকে ৮০ টাকা দরে বিক্রি করা হচ্ছে। কোনো কোনো বিক্রেতা ডাব একটু বড় হলেই তার দাম ডাকছেন শত টাকা। যা স্মরণকালের সর্বোচ্চ হওয়ায় অনেকেই না কিনে ফিরে যাচ্ছেন।
বিক্রেতারা বলছেন, এই গরমে ডাবের চাহিদা অনেক বেশি। কিন্তু সেই চাহিদা অনুযায়ী ডাবের সরবরাহ অত্যন্ত কম। দীর্ঘ দিন ধরে খরার কারণে এবার নারকেল গাছে ফলন খুবই কম উৎপাদন হয়েছে। যে কারণে দাম অনেক বেশি।
কেউ কেউ বলছেন, ইফতারে মানুষ ডাবের পানি খেতে চায়। কিন্তু আড়তে ডাবের সরবরাহ খুবই কম। এ কারণে ডাবের দাম বাড়তি।
বাজারের ব্যবসায়ীরা বলেন ‘গত কিছু দিন আগেও ডাব পাইকারি কেনা সম্ভব হয়েছে ২৫/২৬ টাকা পিস। কিন্তু এখন তা কিনতে হচ্ছে ৪৫ থেকে ৫৫ টাকায়। ফলে বাধ্য হয়ে দাম বাড়াতে হচ্ছে।’ প্রচণ্ড খরায় এবার গ্রামের নারকেল গাছে ডাব কম ধরেছে। গ্রামের পর গ্রাম ঘুরেওhb কাঙ্ক্ষিত ডাব মিলছে না। অথচ প্রচণ্ড গরমে সেই ডাবের চাহিদাই বেশি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *