খুলনায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবিতে মানববন্ধন

ঋতু দে, খুবি প্রতিনিধিঃ সোমবার (২৪ মে) বেলা এগারোটায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবিতে মহানগরীর শিববাড়ি মোড়ে মানববন্ধন করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।মানববন্ধনে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন ।উক্ত মানববন্ধনে সাত দফা দাবিও উত্থান করে তারা।
এসময় শিক্ষার্থীরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে সকল শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান, হল, হোস্টেল খুলে দেয়ার আহবান এবং সকল শিক্ষার্থীর জন্য ভ্যাক্সিন নিশ্চিত করার দাবি জানান। অন্যান্য দাবির মধ্যে রয়েছে সুষ্ঠু পাঠ-পরিকল্পনা, আটকে থাকা গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষাগুলো সংক্ষিপ্ত সিলেবাস এবং সময় বাড়িয়ে নেয়া, যে পরীক্ষা যে সিলেবাস অনুযায়ী হবে তার পরবর্তী ভর্তি পরীক্ষাগুলো সে সিলেবাস অনুযায়ী নেয়া, শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান যতদিন বন্ধ ছিলো তত দিনের শিক্ষার্থীদের বেতন মওকুফ করা, কোন শিক্ষার্থী করোনায় আক্রান্ত হলে সংশ্লিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তদারকিতে আক্রান্ত শিক্ষার্থীর চিকিৎসা, আক্রান্ত হওয়ার ফলে কোন পরীক্ষা দিতে শিক্ষার্থী অপারগ হলে পরবর্তীতে তাকে সাপ্লিমেন্টারী পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ দেয়া, রিভিউ ক্লাস/ এক্সট্রা ক্লাস/ ওপেন ক্রেডিট/ ব্যাকলগ পরীক্ষা ইত্যাদি সুবিধা সমূহ দিয়ে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার ক্ষতিপূরণের সুযোগ দেয়া এবং এজন্য অতিরিক্ত কোন ফি আদায় না করা, অটোপ্রমোশন বা অটোপাশ নয়, সেশনজট এড়াতে প্রয়োজনবোধে সেশনের সময়সীমা কমানো, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে রোডম্যাপ তৈরী ও বাস্তবায়ন করা এবং শিক্ষাখাতে অবকাঠামোগত উন্নয়ন ও সার্বিক কাজে বাজেট বৃদ্ধি করা।
এ মানববন্ধনে অংশ নেয় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, বিএল কলেজ, বয়রা সরকারী মহিলা কলেজ, এমএম সিটি কলেজ, সুন্দরবন কলেজ, বয়রা মডেল কলেজ সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা।

এর আগে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অবিলম্বে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার দাবিতে মানববন্ধন করে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা। সোমবার (২৪ মে) বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে এই মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।
প্রায় অর্ধশত শিক্ষার্থী এ মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন। শিক্ষার্থীরা জানান, দীর্ঘ ১৪ মাস আমাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। এতে অনেক শিক্ষার্থী মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছে। স্বাস্থ্য বিধি মেনে যদি মার্কেট, শপিং মল, দোকানপাট, গণ-পরিবহন চলতে পারে তাহলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানও অবশ্যই চলতে পারবে বলে দাবি করেন শিক্ষার্থীরা।
খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪র্থ বর্ষের শিক্ষার্থী মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেন, সব কিছু খোলা রেখে শুধুমাত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার কোনো মানেই হয় না, এটা সম্পূর্ণ অযৌক্তিক। আমরা অতি দ্রুত আমাদের ক্যাম্পাসে ফিরতে চাই। কর্তৃপক্ষের কাছে আমাদের অনুরোধ সেশনজট না বাড়িয়ে অবিলম্বে ক্লাসে ফেরার ব্যবস্থা করুন।
শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার জন্য আমলাদের সাথে নয় আমাদের শিক্ষকদের সাথে কথা বলুন। তারা অবশ্যই ভালো সিদ্ধান্ত এবং পরামর্শ দিবে। বাড়ি থেকে অনেকেই বিপথে চলে যাচ্ছে। বিপথে যাওয়ার আগেই তাদের ক্লাসে ফেরার ব্যবস্থা করার জন্য শিক্ষামন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। আজ কাল না করে অতি দ্রুত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দিন তা না হলে আমরা আরো কঠিন কর্মসূচি গ্রহণ করতে বাধ্য হবো
রমজান শেখ তারিম বলেন, করোনার এই দীর্ঘ সময়ে কতোজন শিক্ষার্থী করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে আর কতোজন মানসিক চাপ সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যা করেছে যাচাই করে দেখুন। শিক্ষার্থীদের মেন্টাল প্রেশার থেকে মুক্তি দিতে আশা করছি সরকার কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *