রাজশাহীতে সহযোগিসহ দুই টিকটক-লাইকি নারী ‘তারকা’ আটক

ইউসুফ আলী চৌধুরী, রাজশাহী প্রতিনিধিঃ অশ্লীল ও অশালিন টিকটক-লাইকি মিউজিক ভিডিও তৈরী করে ইউটিউবসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ায় রাজশাহীতে সহযোগিসহ দুই তরুণীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রোববার(৬ জুন)সন্ধ্যায় রাজশাহী মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ বিশেষ অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে।
এরা হলেন, টিকটক-লাইকি তারকা হিসেবে পরিচিত তানিশা ও তিশা। আর তাদের সহযোগিরা হলেন মেহেদী ও রাব্বি। এদের মধ্যে তানিশার বাড়ি নগরের মতিহার থানার খোঁজাপুর, পায়েলের বাড়ি নওগাঁর মান্দা উপজেলার নারায়নপুর এবং মেহেদীর বাড়ি পবার কানপাড়া ও রাব্বির নগরের চন্দ্রিমা থানার মুশরাইল।
নগরের পদ্মা গার্ডেন, জিয়া পার্ক, বিমান চত্তর, টি-বাঁধ ও আই বাঁধ এলাকায় তারা টিকটক-লাইকি মিউজিক ভিডিও তৈরী করে থাকে। সোমবার(৭ জুন)দুপুরে মহানগর পুলিশের সদরদপ্তরে তাদের সাংবাদিকদের সামনে হাজির করা হয়।
সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিকী জানান, টিকটক-লাইকি গ্রুপের হয়ে পায়েল ও তানিশা বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে মিউজিক ভিডিও করার জন্য তরুণ-তরুণীদের আকৃষ্ট করে। তাদের ফাঁদে পড়া একজন ভিকটিমকেও উদ্ধার করে পুলিশ। গ্রেপ্তার পায়েল ও তানিশার কাছ থেকে টিকটক-লাইকি গ্রুপের বেশকিছু গুরুত্বপূর্ন তথ্য পেয়েছে পুলিশ। এ গ্রুপে জড়িত অনেকের নামও পাওয়া গেছে। তাদেরকেউ গ্রেপ্তার করা হবে।
সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ কমিশনার আরও বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে লাইকি গ্রুপের ভিডিও তৈরীর মুল হোতা গ্রেপ্তার আসামী মেহেদী হাসান পুলিশকে জানিয়েছে, লাইকি ভিডিও তৈরি করে প্রতি মাসে আট থেকে দশ হাজার টাকা আয় করে। অভাবি কিশোর-কিশোরীদের দিয়ে অশ্লীল ও আপত্তিকর ভিডিও তৈরি করতো।
আবু কালাম সিদ্দিকী বলেন, রাতারাতি জনপ্রিয়তা পাওয়ার জন্য অনেকেই এ ধরনের ভিডিও তৈরি করে নৈতিকভাবে ধ্বংসের পথে পা বাড়াচ্ছে। অশ্লীল ও আপত্তিকর টিকটক, লাইকি ও বিগো লাইভ ভিডিও সমাজের নৈতিক অবক্ষয় ও যুবক সমাজকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাচ্ছে। এমনকি অনেকে বিভিন্ন ধরনের অপরাধের সাথে জড়িয়ে পড়াসহ মাদক সেবন এবং মাদক ব্যবসায় জড়িত হচ্ছে। এ ধরনের ভিডিও কিশোর অপরাধের মতো ঘটনা উস্কে দিচ্ছে।
তিনি বলেন, এর আগে গত ২ জুন রাজশাহী নগরীতে অভিযান চালিয়ে দুই নারীসহ নয়জনকে গেপ্তার করা হয়েছিল। কিশোর অপরাধ অশ্লীলতা মুক্ত শান্তির রাজশাহী শহর প্রতিষ্ঠায় অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *